নিজস্ব প্রতিবেদক:
চকরিয়া উপজেলার খুটাখালীর ৫ নং ওয়ার্ডের সিদকারপাড়ার বাসিন্দা সৌদিআরব প্রবাসী ছৈয়দ নবীর বসতভিটা দখলের চেষ্টা ও স্ত্রীকে প্রাণনাশের ভয়ভীতি দেখিয়ে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবীর অভিযোগ ওঠেছে।
এ ঘটনায় অভিযুক্ত নুরুল আবছার (৩৫)কে একমাত্র আসামী করে চকরিয়া থানায় লিখিত এজাহার দিয়েছেন প্রবাসীর স্ত্রী সাদিয়া ফারজানা রুনা। অভিযোগ তদন্তাধীন। নুরুল আবছার ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের পূর্বপাড়ার মোহাম্মদ দানু মিয়ার ছেলে।
এ প্রসঙ্গে তদন্ত কর্মকর্তা চকরিয়া থানার এসআই মুফিজুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে বলেন, ঘটনার বিষয়ে সরেজমিন গিয়ে খোঁজখবর নিয়েছি। অভিযুক্ত ব্যক্তিকে বেশ কয়েকবার নোটিস করেও থানায় হাজির হয়নি। আগামী ধার্য তারিখে চূড়ান্ত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এজাহারে বাদি উল্লেখ করেছেন, তার স্বামী ছৈয়দ নবী বিদেশে থাকার সুযোগে বিভিন্ন সময় চাঁদা দাবী করে আসছিল পার্শ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দা নুরুল আবছার। টাকা না দিলে খরিদা জমিতে গণ্ডগোল সৃষ্টি করবে বলে জানায়।
সাদিয়া ফারজানা রুনা বলেন, খুটাখালী মৌজার নামজারী ও জমাভাগ খতিয়ান নং-১১২৪ ও ১৫৪৭, বিএস-২৭২৪ ও ২৬৮৭ নং দাগের ৪.৩৩ শতক জমির বৈধ মালিক আমি। আমার স্বামীর খরিদা অংশ আমার অপর ভাইয়ের প্রাপ্ত অংশসহ মোট ৬.১৭ শতক জমিতে টিনের বেড়া ও ছাউনিযুক্ত করে ১ কামরাবিশিষ্ট ঘর তৈরী করি। ওই বাড়িতে আমরা বসবাস করে আসতেছি। কিন্তু নুরুল আবছার আমাদের খরিদা জায়গায় গণ্ডগোল পাকানোর ভয়ভীতি দেখিয়ে স্বামীর অনুপস্থিতি ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে। টাকা না দিলে আমাকের প্রাণনাশের হুমকি ও জমি ভোগ দখলে থাকতে দেবেনা বলে জানায়।
প্রবাসীর স্ত্রী সাদিয়া ফারজানা রুনা অভিযোগ করে আরো বলেন, আমি সহজ সরল মহিলা হিসেবে ইজ্জত বাঁচাতে বিগত ১ জুন সকাল ১১টার দিকে নুরুল আবছারকে ১৫ হাজার টাকা প্রদান করি। সে আরো ১ লাখ ৮৫ হাজার টাকার জন্য আমাকে নানাভাবে উত্যক্ত ও বিরক্ত করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৩০ জুলাই আামার বাড়িতে ঢুকে চাঁদার দাবীতে অশ্রাব্য ভাষায় গালমন্দ করে। টাকা প্রদানে অস্বীকৃতি জানালে আমাকে ধাক্কা মেরে প্রকাশ্যে অপদস্ত করে। টাকা না পেলে দখলবাজ-সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে বসতভিটা থেকে উচ্ছেদ করবে বলে হুমকি দেয় নুরুল আবছার।
এ বিষয়ে চকরিয়া থানার ওসি (তদন্ত) একেএম শফিকুল আলম চৌধুরী বলেন, অন্যের মালিকানাধীন জমি, বসতভিটা অবৈধভাবে দখলের কোন সুযোগ নাই। অভিযোগের সঠিক তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি বলেন- মাদক, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, দখলবাজসহ সব ধরণের অপরাধের বিরুদ্ধে পুলিশ কঠোর অবস্থানে থাকবে। চকরিয়া থানার প্রতিটি এলাকা অপরাধমুক্ত রাখতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হবে বলেও জানান ওসি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •