আবু সায়েমঃ কক্সবাজার জেলার শ্রেষ্ঠ সার্কেল হিসেবে সম্মাননা পেলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আদিবুল ইসলাম।কক্সবাজার সদর ও রামু সার্কেলে মাদক দ্রব্য উদ্ধার, গ্রেপ্তারী পরোয়ানা তামিল, চুরি ছিনতাই রোধে ভূমিকাসহ আইনশৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক পর্যায়ে ব্যাপক ভূমিকা পালন করায় সার্বিক বিষয় বিবেচনা পূর্বক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আদিবুল ইসলামকে সম্মাননা স্মারক ক্রেস্ট দিয়ে পুরস্কৃত করা হয়। ২৬ আগষ্ট সোমবার সকাল ১০ টায় কক্সবাজার জেলা পুলিশ লাইন্সের ড্রিল শিডে মাসিক কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসাইন (বিপিএমবার)। সভায় সঞ্চালনা করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( হেড কোয়ার্টার )রেজওয়ান আহমেদ। উক্ত মাসিক কল্যাণ সভায় বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুলিশ কর্মকর্তাদের পুলিশী কার্যক্রমকে তরান্বিত করার জন্য অর্থ ও ক্রেস্ট দিয়ে শ্রেষ্টত্বের জন্য পুরস্কৃত করা হয়। এতে কক্সবাজার ও রামু সার্কেলে জুলাই মাসের পারফরমন্সে সামগ্রিক কার্যাবলি বিবেচনাপূর্বক শ্রেষ্ঠ সার্কেল হিসেবে সনদ ও সম্মাননা প্রদান করা হয় সদর -রামু সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আদিবুল ইসলামকে। উক্ত মাসিক কল্যাণ সভায় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন)ইকবাল হোছাইন , অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাহিদ আদনান তাইয়্যান ( উখিয়া সার্কেল), সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার( চকরিয়া সার্কেল) কাজী মতিউল ইসলাম, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার শহীদুল ইসলাম (ডিএসবি), সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার রতন দাশ গুপ্ত ( মহেশখালী সার্কেল)সহ সকল থানার অফিসার ইনচার্জগণ।

এ প্রসঙ্গে এক প্রতিক্রিয়ায় পুরুস্কারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আদিবুল ইসলাম বলেন , প্রতিটি পুরস্কার খুবই ভালো লাগে। কাজের গতিকে তরান্বিত করে এবং কাজের প্রতি প্রেষণা সৃষ্টি করে।কক্সবাজার জেলার সদর – রামু সার্কেলে যোগদানের পর থেকে সৃজনশীল কার্যক্রমের বাস্তবিক প্রয়োগ,মাদকের বিরুদ্ধে ঘোষিত জিরো টলারেন্স বাস্তবায়ন , আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি উন্নতকরণ এবং সুন্দর বাসযোগ্য সদর ও রামু গঠনে দৃঢ় কার্যক্রমকে তরান্বিত , সুযোগ্য পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসাইন ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হোসাইনের দিক নির্দেশনা বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছি।সদর- রামু সার্কেল কে কক্সবাজার জেলার শ্রেষ্ট সার্কেল রুপান্তরে রাত দিন পরিশ্রম করেছি ফোর্সদের রাত জেগে কাজের তদারকি করেছি। ইনশাআল্লাহ মাদকমুক্ত , সুন্দর বাসযোগ্য সদর রামু সার্কেল রুপান্তরে আমার যাবতীয় শারীকি ও মানসিক শ্রম অব্যাহত থাকবে। প্রজাতন্ত্রের কর্মকর্তা হিসেবে যে জেলায় নিয়োজিত থাকি না কেনো একজন সফল সুনাগরিক হিসেবে সুন্দর বাসযোগ্য মডেল সার্কেল রুপান্তর এবং সোনার বাংলাদেশ গড়তে আমার যাবতীয় উন্নয়নমূলক কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •