হেলাল উদ্দিন, টেকনাফ :
টেকনাফে যুবলীগ নেতা ওমর ফারুককে হত্যার পর এবার রোহিঙ্গা অস্ত্রধারীরা তার ভাই আমির হামজাকে নিজ বাড়ির সামনে থেকে অপহরণের চেষ্টা চালিয়েছে। স্থানীয় ও পুলিশের বাধায় অপহরণের চেষ্টা সফল হয়নি। তবে অস্ত্রধারী রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা আমির হামজাকে অপহরণ করতে না পেরে ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে পালিয়ে যায় বলে প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র দাবি করেন।
স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রবিবার (২৫ আগষ্ট) সকাল সাড়ে ১০টায় যুবলীগ নেতা ওমর ফারুক হত্যার সাথে জড়িত রোহিঙ্গা অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা ওমর ফারুকের ভাই আমির হামজাকে অস্ত্র ঠেকিয়ে নিজ বাড়ির সামনে আম বাগান থেকে থেকে অপহরণ করে পাহাড়ের দিকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে স্থানীয় জনতা ও পুলিশের বাধায় তাকে অপহরণ করতে পারেনি। একপর্যায়ে উক্ত রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রুপ গুলিবর্ষণ করে পাহাড়ের দিকে পালিয়ে যায়। ঘটনার পরপর টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশের নেতৃত্বে পুলিশে একটি বিশেষ টিম ক্যাম্পে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের আটকের জন্য চিরুনী অভিযান চালায়।
ঐ পুলিশ কর্মকর্তা জানান, ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে যায়। বর্তমানে পরস্থিতি শান্ত রয়েছে ও সন্ত্রাসীদের আটকের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এদিকে এ ঘটনায় এলাকাতে থমথমে পরিবেশ বিরাজ করছে এবং ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
অন্যদিকে ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতিকে হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে ইউনিয়ন যুবলীগ। বিকালে ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি/সম্পাদকের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিলটি হ্নীলা ষ্টেশনের প্রধান সড়ক প্রতিক্ষণ শেষে চৌ-রাস্তার মোড়ে প্রতিবাদ সভায় মিলিত হয়। এসে ইউনিয়ন ও যুবলীগের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। বক্তারা আগামী ৩দিনের মধ্যে ওমর ফারুকের খুনিদের আটক করে আইনের আওতায় আনার প্রশাসনের অনুরোধ জানান। পাশাপাশি দ্রুত রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাস্তবায়নের জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •