প্রতিশ্রুতি পূরণে ব্যর্থ সৌদি আরব, অনাহারের হুমকিতে লাখ লাখ ইয়েমেনি

বিদেশ ডেস্ক:

মানবিক সহায়তা বন্ধ হয়ে যাওয়ার হুমকিতে রয়েছে যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেনের লাখ লাখ মানুষ। সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ গুরুত্বপূর্ণ অনুদানদাতা দেশগুলোর প্রতিশ্রুত অর্থ না পেলে বড় ধরনের মানবিক বিপর্যয়ে পড়তে পারে তারা। বুধবার (২১ আগস্ট) এক বিবৃতিতে এমন আশঙ্কা প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ।

হাসপাতালে এক ইয়েমেনি শিশু
২০১৫ সালে ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট মনসুর হাদিকে উচ্ছেদ করে রাজধানী সানা দখলে নেয় ইরান সমর্থিত শিয়াপন্থী হুথি বিদ্রোহীরা। সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে পালিয়ে যান হাদি। ২০১৫ সালের মার্চে হুথি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে মিত্রদের নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তায় ‘অপারেশন ডিসাইসিভ স্টর্ম’ নামে সামরিক অভিযান শুরু করে সৌদি আরব। সৌদি জোটের অভিযান শুরুর পর এ পর্যন্ত নারী-শিশুসহ ১০ হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর থেকে ইয়েমেন এখন সর্বোচ্চ পর্যায়ের মানবিক বিপর্যয়ে রয়েছে বলে মনে করে জাতিসংঘ। সৌদি নেতৃত্বাধীন অভিযান ও অবরুদ্ধ পরিস্থিতির কারণে মোট জনসংখ্যার ৫৩ শতাংশ ‘তীব্র মাত্রার খাদ্য অনিরাপত্তা’য় ভুগছে।

ইয়েমেনে জাতিসংঘের মানবিক সহায়তাবিষয়ক সমন্বয়কারী লিসে গ্রান্ডে বলেন, ‘প্রতিশ্রুত তহবিল পাওয়ার জন্য আমরা মরিয়া হয়ে আছি। অর্থ না আসলে মানুষকে বাঁচানো যাবে না।’ গ্রান্ডে জানান, মে মাসে ভ্যাকসিন কর্মসূচির বেশিরভাগই বাতিল করতে বাধ্য হয়েছে জাতিসংঘ। নতুন করে তহবিল পাওয়া না গেলে আগামী দুই মাসে ইয়েমেনে ২২টি জীবন রক্ষাকারী কর্মসূচি বন্ধ হয়ে যাবে। দুই কোটিরও বেশি ইয়েমেনির জরুরি প্রয়োজন মেটাতে ফেব্রুয়ারিতে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রায় ২৬০ কোটি ডলার অনুদানের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল। এর অর্ধেকেরও বেশি তহবিল জোগানোর প্রতিশ্রুতি এসেছিল সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের পক্ষ থেকে। তবে এ পর্যন্ত অর্থ সংগ্রহ হয়েছে অর্ধেকেরও কম।

নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের মানবিক সহায়তাবিষয়ক কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত এ দুই দেশের প্রত্যেকে ‘ইয়েমেন মানবিক সহায়তাবিষয়ক পরিকল্পনা ২০১৯’ খাতে ৭৫ কোটি ডলার করে অনুদানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলো। তবে এখন পর্যন্ত এ তহবিলে সৌদি কর্তৃপক্ষ দিয়েছে ১২ কোটি ৭০ লাখ ডলার ও সংযুক্ত আরব আমিরাত দিয়েছে ১৬ কোটি ডলার।

মানবিক সহায়তা কর্মসূচি থমকে গেলে মানবিক বিপর্যয় অনিবার্য বলে সতর্ক করেছেন লিসে গ্রান্ডে। তিনি জানান, আসন্ন সপ্তাহগুলোতে প্রতিশ্রুত তহবিল যদি না পাওয়া যায়, তবে ১ কোটি ২০ লাখ খাদ্য রেশনের পরিমাণ কমে যাবে এবং অন্তত ২৫ লাখ শিশু জরুরি সেবা থেকে বঞ্চিত হবে।

সর্বশেষ সংবাদ

রামু থানার অভিযানে ইয়াবা নিয়ে আওয়ামীলীগ নেতাসহ আটক ২

এড. নজরুল ইসলাম আর নেই , জেলা আইনজীবী সমিতির শোক

বর্ণাঢ্য আয়োজনে কক্সবাজারে ২দিনব্যাপি সিসিমপুর মেলা শুরু

বিএনপি নেতা দুদুকে আইনের আওতায় আনার দাবিতে উখিয়া ছাত্রলীগের বিক্ষোভ

নিরাপদ সড়ক ও মানব ঝুঁকি

হাজীপাড়া ফুটবল টুর্নামেন্টে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন উত্তর ডিককুল ক্রিড়া সংস্থা

মাদক ও নৈতিক অবক্ষয়ের ছোবল রোধে সুস্থ সংস্কৃতি চর্চার বিকল্প নেই

উখিয়ায় এনজিওকর্মী হত্যাকান্ডের পিছনে রয়েছে পরকীয়া

কক্সবাজার-রামুর উন্নয়নে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে- এমপি কমল

সাকসেস ইন লাইফ

বহর নিয়ে এমপি কমলকে বরণ করলেন ঝিংলজার আ.লীগ নেতা আমিন

এনজিও কর্মী মাজহার হত্যার আসামী আলাউদ্দিন আটক

খানাখন্দে ভরা পোকখালী মুসলিম বাজার সড়ক

চিকিৎসার জন্য ভারত যাচ্ছেন খুরুশকুল ইউপি চেয়ারম্যান জসিম

কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার- ২২

আদালত ও ট্রাইব্যুনাল পরিদর্শনে কক্সবাজার আসছেন বিচারপতি বোরহান উদ্দিন

কক্সবাজার জেলা তাঁতী দলের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

চকরিয়া পৌর এলাকায় ৮০ লাখ টাকা ব্যয়ে আরসিসি সড়ক নির্মান উদ্বোধন

বাংলাদেশী ১০ নারীকে ভারত থেকে বেনাপোলে হস্তান্তর

মসজিদের নগরী ঢাকা আজ ক্যাসিনোর নগরী : যুবদলের মানব বন্ধনে লুৎফুর রহমান কাজল