প্রেস বিজ্ঞপ্তি :
২০০৪ সালের ২১শে আগস্ট, ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামীলীগ আয়োজিত সন্ত্রাস বিরোধী সমাবেশ চলছিলো, সমাবেশে প্রধান অথিতি ছিলেন তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী আওয়ামীলীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। তিনি বক্তব্য শুরু করার কয়েক মিনিটের মধ্যে ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা হয় এই সমাবেশে! অল্পের জন্য তিনি রক্ষা পেলেও সেদিন প্রাণ হারান আওয়ামীলীগের ২৪জন নেতাকর্মী!
সেদিনের ভয়াবহ হত্যাকান্ডে নিহত শহীদদের স্মরণে ২১ আগস্টের প্রথম প্রহরে মোমবাতি প্রজ্জলন কর্মসূচির আয়োজন করেন পেকুয়ার মগনামা ইউনিয়ন ছাত্রলীগ। মগনামা বাজারস্থ পুরাতন নির্বাচনী কার্যালয়ের সামনে উক্ত কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। মগনামা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মনছুর আলম নানকের নেতৃত্বে এই কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন পেকুয়া উপজেলা কৃষকলীগের সাবেক সভাপতি আফতাব উদ্দিন বাবুল, আওয়ামীলীগ নেতা আকতার আলম, হেলাল, মনছুর, ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা রাসেল, সোয়াইব, তারেক, আলী হোসাইন, ইকবাল, হানিফ, রিদুয়ান, আজু, শহিদ, মানিক ও বিভিন্ন ওয়ার্ড ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।
বক্তারা বলেন ২১শে আগস্ট বিএনপি-জামাতের সেদিনের ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা পুরো দেশকে আতঙ্কিত করেছিলো! বিরোধীদলকে নিশ্চিহ্ন করতে রাষ্ট্রীয় মদদে এমন জঘন্যতম হত্যাযজ্ঞ পৃথিবীর ইতিহাসে দ্বিতীয়টি নেই। মুল হামলাকারীদের আড়াল করতে, প্রকৃত ঘটনা ধামাচাপা দিতে সেদিন উঠেপড়ে লেগেছিলো বিএনপি-জামাত সরকার। বক্তারা অবিলম্বে গ্রেনেড হামলার মাস্টারমাইন্ড তারেক জিয়া সহ দণ্ডপ্রাপ্ত সকল আসামীর বিচারের রায় দ্রুত কার্যকর করার জোর দাবী জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •