চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:

চট্টগ্রাম কর্ণফুলী উপজেলার চরপাথরঘাটা ইউনিয়নের ইছানগর গ্রামে আবু হোসেন সাবরিন নামে এক ব্যক্তির দোকান সংস্কারের কাজ বন্ধ রেখে ধারালো ছুরি উচিয়ে মারধর করে চাঁদা দাবি করার গুরুত্বর অভিযোগ উঠেছে।

১৯ আগষ্ট সকাল ৯টার দিকে উপজেলার চরপাথরঘাটা ইছানগর ৭নং ওয়ার্ড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় মৃত আবু কাশেমের ছেলে আবু হোসেন সাবরিন (৩০) বাদি হয়ে একই এলাকার হাজী আরবান আলী বাড়ির মৃত ছালেহ আহমেদ এর ছেলে মো. দিদারুল আলম (৩২) এর বিরুদ্ধে কর্ণফুলী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ১৯ আগষ্ট সকালে সাবরিন ৮জন কাজের লোক নিয়ে তার দোকানে কাজ করলে অভিযুক্ত ব্যক্তি কাজ বন্ধ করে দিয়ে চাঁদা দাবি করে। চাঁদা না দিলে অভিযোগকারী ও মিস্ত্রীদের মারধর করে। পরে আরো ৩/৪ জন লোক নিয়ে ধারালো ছুরি উচিয়ে মারধর করে নির্যাতন ও নানা হুমকি দেন। এমনকি এ ঘটনার রেশ ধরে শিকলবাহা হতে উচ্ছশৃঙ্খল কিছু লোক জড়ো হতে চেষ্টা করে বলে বাদি সাংবাদিকদের অভিযোগ করেন।

এ ঘটনায় অভিযোগ করে কর্ণফুলী থানা পুলিশের সহযোগিতা চাইলে ওসির নির্দেশে দ্রুত গতিতে এস.আই কার্তিক ও সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছলে লোকজন পালিয়ে যায়।

জানতে চাইলে অভিযুক্ত ব্যক্তি মো. দিদারুল আলম বলেন, ‘ঘটনা হয়েছে বাসায় দোকানে কোন ঘটনা হয়নি। আমি বাসায় মুরগী জবাই করতেছিলাম তাই হাতে ছুরি ছিল।’

কর্ণফুলী থানার এস.আই কার্তিক জানান, ‘এ ঘটনার অভিযোগ পেয়ে ইতোমধ্যে দু’বার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। অপরাধীদের আইনের আওতায় আনা হবে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে কাজ বন্ধ রাখার কোন আদালতের অর্ডার পাওয়া যায়নি’।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •