দীপক শর্মা দীপু, কক্সবাজার :

কক্সবাজারে ডেঙ্গু নিধনে অভিযানে নেমেছে স্কুলের ছাত্র ছাত্রীরা। হাতে গ্লাভস, মুখে মার্কস, মাথায় টুপি দিয়ে নিজেদের আগে সুরক্ষা করে মাঠে, রাস্তায়, ঝোপ ঝাড়ে, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ঘরের আঙ্গিনা পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করছে। পাশাপাশি ওষুধ স্প্রে করে মশক নিধন করছে শিক্ষার্থীরা। স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা ডেঙ্গুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করে মশক নিধন অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। স্কুলের শিক্ষাথীদের নিজেদেরা কাঁধে তুলে নিয়েছেন মশক নিধন স্প্রে, হাতে ঝাড়–, কোদাল, বালতি, ভেলসা নিয়ে মাঠে নেমেছে। তারা ময়লা আবর্জনা সাফ করছে, কাটছে অপ্রয়োজনীয় ঝুপঝাড়, মশার উৎপত্তি স্থল ধ্বংস করছে, মশক নিধন স্প্রে করছে সবখানে। তারা নিজেদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মশা মুক্ত রাখার পাশাপাশি আশে পাশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, রাস্তাঘাট, নালা নর্দমা এমন মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে মশা নিধন করছে।

৭ আগষ্ট কক্সবাজার বায়তুশ শরফ জব্বারিয়া একাডেমির স্কুল কেবিনেট, স্কাউটস ও গালর্স গাইড সমন্বয়ে ৫০ সদস্যদের মধ্যে ৩ টি দলে ভাগ হয়ে তারা শহরে বিভিন্ন এলাকায় মশক নিধন অভিযান চালায়।

স্কাউট সদস্য মো: রায়হান জানান, মানুষের বিপদের এগিয়ে যাওয়ার শিক্ষা আমরা পেয়েছি। এই মুহুর্তে মানুষকে বিপদ থেকে রক্ষা করার জন্য ডেঙ্গু নিধন করাই হলো আমাদের হলো আমাদের মুখ্য কাজ।

গালর্স গাইড সদস্য খাইন খাইন ওয়ান রাখাইন জানান, ডেঙ্গুর কারনে আমাদের দেশের অনেক মানুষ মারা গেছে। প্রতিদিন আক্রান্ত হচ্ছে। এই অবস্থায় আমাদের দায়িত্ব হচ্ছে ডেঙ্গুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করা। তাই আমরা মশক নিধনের পাশাপাশি এডিশ মশা যাতে বিস্তার করতে না পারে সেই ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক করছি এবং নিজেরা পরিস্কার পরিচ্ছন্ন কাজে নিয়োজিত রয়েছি।

স্কুল কেবিনেট সভাপতি অর্নয় বড়ুয়া জানান, স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক ডেঙ্গুর ব্যাপারে সবাইকে সচেতন থাকা এবং ভয়াবহতা নিয়ে আমাদের সচেতন করে। সেই সচেতনতা থেকে শিক্ষা নিয়ে ডেঙ্গু যাতে ভয়াবহ রুপ ধারন করতে না পারে সেই জন্য আমরা সবাইকে সচেতন করতে মাঠে নেমেছি শুধু তাই নয় আমরা বাস্তবে ডেঙ্গু প্রতিরোধে কাজ করছি এবং আমাদের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

বায়তুশ শরফ জব্বারিয়া একাডেমির সভাপতি শিক্ষাবিদ এম. এম সিরাজুল ইসলাম জানান, প্রধানমন্ত্রী সবাইকে ডেঙ্গু প্রতিরোধে এগিয়ে আসতে বলেছেন। শুধু বড়রা এগিয়ে আসলে হবেনা। শিক্ষার্র্থীদেরও এগিয়ে আসতে হবে এমন ভেবে স্কুলের শিক্ষার্থীদের ডেঙ্গু নিধনে কাজ করার উৎসাহ দেয়া হলে তারা অভিযানে মাঠে নেমেছেন। এ জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম স্কুল থেকে দেয়া হয়েছে। এভাবে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এগিয়ে আসলে মশক প্রতিরোধ অভিযান সফল হবে বলে জানান তিনি।

ছাত্র ছাত্রীদের এমন মহৎ উদ্যোগের প্রশংসা করে জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেন বলেন, জাতির দু:সময়ে সব সময় শিক্ষার্থীরা এগিয়ে এসেছেন- এটাই বাংলাদেশের ইতিহাস। এবার এমন মুহুতেৃর্ ডেঙ্গু প্রতিরোধে এগিয়ে এসেছেন ছাত্র ছাত্রীরা। যা অত্যন্ত মহৎ উদ্যোগ। বায়তুশ শরফ জব্বারিয়া একাডেমির মতো সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ডেঙ্গু প্রতিরোধে অভিযান চালাবেন এমন প্রত্যাশা করেন তিনি। এই জন্য তিনি ইতিমধ্যে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখাসহ মশক নিধনে কর্মসূচি পালনের জন্য চিঠি দিয়েছেন বলে জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •