মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

স্থানীয় খামারিদের উৎপাদিত গরু ও মহিষের বাজারদর ধরে রাখতে মঙ্গলবার ৬ জুলাই হতে মিয়ানমার থেকে সকল প্রকার গবাদি পশু আমদানি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। স্থানীয় ভাবে উৎপাদিত গবাদিপশুর দরপতনের আশংকায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বিষয়টি কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন সিবিএন-কে নিশ্চিত করেছেন। গত এক সপ্তাহে আসন্ন কোরবানকে কেন্দ্র করে টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ করিডোর দিয়ে প্রায় ১০ হাজার গবাদি পশু স্থানীয় ব্যবসায়ীরা আমদানি করেছেন। ফলে হঠাৎ বেড়ে যাওয়া গরু মহিষের উচ্চ মূল্য কিছুটা হলেও ক্রেতাদের নাগালের মধ্যে আসে। আবার মিয়ানমার থেকে গবাদিপশু আমদানীর জন্য টেকনাফ ২ নম্বর বিজিবি’র উদ্যোগে ব্যবসায়ীদের সাথে মতবিনিময় সভা করে মিয়ানমার থেকে পশু আমদানিতে উৎসাহিত করা হয় এবং সভায় দেশে গবাদিপশু পরিবহনে পথে পথে চাঁদাবাজি সহ সব বাঁধা বিপত্তি দূরীকরণের ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেয়া হয়। এছাড়া হঠাৎ করে মিয়ানমার থেকে গবাদি পশু আমদানি বন্ধ করে দেয়ায় বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমন্তের ওপারে আমদানির জন্য বিভিন্ন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে এপারে আনার জন্য জমা করে রাখা গবাদি পশু নিয়েও আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীরা চরম সংকটে পড়েছেন বলে টেকনাফের ক’জন আমদানিকারক সিবিএন-কে জানিয়েছেন। এছাড়া মিয়ানমার থেকে পশু আমদানি মঙ্গলবার থেকে বন্ধ থাকার ঘোষণায় স্থানীয় গবাদি পশুর বাজারেও তার বিরূপ প্রভাব পড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বৃহত্তর কক্সবাজার সহ দক্ষিণ চট্টগ্রামে কোরবানির পশুর বাজারমূল্য আবারও ক্রেতাদের নাগালের বাইরে চলে যাওয়ার আশংকা রয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •