শাহনেওয়াজ জিল্লু:

কক্সবাজার সদরের ইসলামাবাদের আউলিয়াবাদে মুক্তিযোদ্ধা মরহুম আব্দুল শুক্কুরের জমিতে হানা দিয়েছে স্থানীয় একটি ভূমিদস্যু চক্র। ২আগস্ট শুক্রবার জুমার নামাজ চলাকালীন সময়ে ভূমিদস্যু চক্রের মূলহোতা ছিদ্দিক আহমেদ প্রকাশ ছিদ্দিক হাজী ও তার সহযোগী শামশুদ্দিন পিতা: মৃত আকবর আলী গং হামলা চালিয়ে মুক্তিযোদ্ধা মরহুম আব্দুল শুক্কুরের জমি জবর দখল করে নেওয়ার চেষ্টা চালায়। এসময় মুক্তিযোদ্ধার পরিবার তাদের বাধা প্রদান এবং হামলা প্রতিহত করতে গেলে তাদের উপরও আক্রমণ চালায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। হামলায় আহত হয় মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী সেতারা বেগম, ছেলে সাজ্জাদুল করিম, ভাইয়ের ছেলে শফিকুল ইসলাম পলাশ ও বড় বোনের ছেলে কামাল হোসেন গুরুতর আহত হয়। প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্যমতে- আহতদের স্থানীয় লোকজনই উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করে।

অভিযোগে জানা যায়- চিহ্নিত এই ভূমিদস্যু চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে সরকারী বনবিভাগের ২নং খতিয়ানের জমিটি অবৈধভাবে জোর পূর্বক ক্ষমতা প্রদর্শন করে ভোগ করে আসছে। পাশাপাশি মুক্তিযোদ্ধা মরহুম আব্দুল শুক্কুরের সরকারী বন্দোবস্তকৃত জমি আর.এস ১০০১ নং দাগের ১.৫০ একর যার খতিয়ান নং- ৩২৭৩ জমিটিও ক্ষমতাপ্রদর্শনপূর্ব জবর দখল করার চেষ্টা চালিয়ে আসছে। সর্বশেষ অদ্য জুমার নামাজের ব্যস্ততার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে চক্রটি উক্ত জমিতে হানা দেয়। এই চক্রের প্রধান সহযোগী শামসুদ্দিন ইদগাও কেন্দ্রিক আলীরাজ পরিবহনের লাইন্সম্যান হিসেবে চাকরি করে বলে জানা যায়। এবিষয়ে শামশুদ্দিনের বক্তব্য জানতে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হয়। কিন্তু মোবাইল বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।

এঘটনায় ইদগাও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে দায়িত্বরত এ.এস.আই মহিউদ্দিনকে অবগত করা হয়। যেহেতু উক্ত জমি নিয়ে অনেক দিন যাবত বিরোধ চলে আসতেছে সেই কারণে স্থানীয় ভূমি ডাকাতদের বিরুদ্ধে মাননীয় পুলিশ সুপার বরাবর একটি অভিযোগ ইতিপূর্বে করা আছে। যাহা সদর মডেল থানার ওসি তদন্তের কাছে রয়েছে। একারণে ওনি সাক্ষ্য শেষে থানায় আসলে ওনার অনুমতি সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জনান এ এস আই মহিউদ্দিন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •