cbn  

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রট (এডিএম) মোহাঃ শাজাহান আলি বলেছেন-ডেঙ্গু রোগ নির্ণয়ে পরীক্ষার ক্ষেত্রে প্রাইভেট হাসপাতাল, ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও ক্লিনিক গুলো সরকার নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অতিরিক্ত কোন মূল্য নিলে তাদের কঠোর আইনের আওতায় আনা হবে। ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন খুবই সজাগ রয়েছে। সোমবার কক্সবাজার শহরের ৫ টি প্রাইভেট হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালানো হয়েছে। পুরো জেলায় এরকম অভিযান নিয়মিত পরিচালনা করা হবে এবং ডেঙ্গু রোগ পরীক্ষায় সরকার নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে কোন অতিরিক্ত মূল্য দাবী করলে সাথে সাথে প্রশাসনকে জানানোর তিনি সকলের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন। তারপরও কেউ অতিরিক্ত ফি দাবী করলে তাদেরকে কোন অবস্থাতেই মার্জনা করা হবেনা। মানুষের জীবন নিয়ে কাউকে বাণিজ্য করতে দেয়া হবেনা। কক্সবাজারে ডেঙ্গু পরিস্থিতি কি অবস্থায় আছে, এমন প্রশ্নের উত্তরে এডিএম মোহাঃ শাজাহান আলি সিবিএন-কে বলেন, ইনশাল্লাহ সমগ্র জেলায় ডেঙ্গু পরিস্থিতি স্বাস্থ্য বিভাগের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে এবং জেলা ও উপজেলা প্রশাসন সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে ডেঙ্গু’র বিস্তার রোধে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা খুব সহসায় ‘শূণ্যের কোটায়’ নামিয়ে আনতে আমরা সম্মিলিতভাবে কাজ করছি। এডিএম মোহাঃ শাজাহান আলি এ বিষয়ে সকলকে সচেতন হতে অনুরোধ জানান এবং সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। এডিসি (সার্বিক) এর অতিরিক্ত দায়িত্বপালনরত মোহাঃ শাজাহান আলি সিবিএন-কে আরো বলেন, ডেঙ্গু একটি স্পর্শকাতর বিষয়। তাই জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে নিয়ে গত রোববার ২৮ জুলাই ডেঙ্গু রোগ বিষয়ে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের শহীদ এ.টি.এম জাফর আলম সিএসপি সম্মেলন কক্ষে সচেতনতামূলত সমন্বিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এডিএম মোহাঃ শাজাহান আলি সিবিএন-কে জানান, জেলা প্রশাসন থেকে সার্বিক ডেঙ্গু পরিস্থিতি মনিটর করা হচ্ছে। সোমবার ২৯ জুলাই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকারী জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বিধান হালদার সিবিএন-কে বলেন, ডেঙ্গু রোগ পরীক্ষায় অতিরিক্ত মূল্য নেয়ার বিষয়ে স্বাস্থ্য সেবা দানকারী প্রাইভেট প্রতিষ্ঠান গুলোতে কোন প্রমাণ না পাওয়ায় কোন জরিমানা ও শাস্তি দেয়া হয়নি। তাদেরকে এ বিষয়ে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে এবং প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানের দর্শনীয় স্থানে ডেঙ্গু রোগ নির্ণয় করার মূল্য তালিকা দ্রুত টাঙ্গিয়ে দেয়ার জন্য কঠোর নির্দেশনা দেয়া হয়ে বলে সিবিএন-কে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বিধান হালদার জানিয়ছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •