গত ২৪ জুলাই অনলাইন নিউজ পোর্টাল ঢাকা রিপোর্টে প্রকাশিত টেকনাফের শাহাব উদ্দিনের সহযোগি ইয়াবা কারবারি শওকত অধরা শীর্ষক সংবাদটি আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। সংবাদটি সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন এবং শত্রুতামূলক। মূলত হলবনিয়াঘাটের সভাপতি মোসলেম মিয়ার চাঁদাবাজির প্রতিবাদের কারনে আমার বিরুদ্ধে ইয়াবা ব্যবসায়ি সাজানো হয়েছে। এবং শাহাজানের সহযোগি হিসাবে মিথ্যাভাবে উপস্থাপন করে আমাকে প্রশাসনের কাছে ইয়াবা ব্যবসায়ি সাজানোর অপচেষ্টা করেছে চক্রটি। আমি দীর্ঘ ১৪ বছর সৌদিয়ায় প্রবাস শেষে ৩ বছর আগে এলাকায় এসে সুন্দরভাবে জীবন যাবন করছি। কোন দিন ইয়াবা ব্যবসা বা সেবন তো দূরের কথা ধুমপান পর্যন্ত করিনা। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও লোকজনের কাছে আমার বিষয়ে জানা যাবে আমি কেমন। মোসলেম মিয়া নৌকার মাঝিদের কাছ থেকে গণহারে চাঁদাবাজি করার কারনে প্রশাসনের নজরে আসায় এবং সাগর পথে ইয়াবা পাচার করে কোটিপতি হওয়ার পর প্রশাসন তার বাড়িতে তল্লাশি করে। তার সন্দেহজনক রাতারাতি আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হওয়ার বিষয়টি এখন এলাকায় সকলে অবগত। তার ইয়াবা ব্যবসা ঢাকতে আমার বিরুদ্ধে ইয়াবা ব্যবসায়ী সাজানোর পরিকল্পনার অংশ হিসাবে উক্ত মিথ্যা সংবাদ সাজানো হয়েছে। আমি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন সংবাদে প্রশাসনসহ কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি এবং উক্ত ষড়যন্ত্রমূলক সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদ
শওকত রশিদ
পিতা-মৃত নুরুল ইসলাম, হলবনিয়াপাড়া, দ. শিলখালী, টেকনাফ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •