cbn  

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার সদর উপজেলার খরুলিয়ার সেই দুধর্ষ সন্ত্রাসী, ইয়াবা কারবারি, পুতু বাহিনীর প্রধান শওকত আলী পুতু ওরফে পুইত্যাকে অবৈধ অস্ত্র ও ইয়াবা সহ কক্সবাজার মডেল থানা পুলিশ গ্রেপ্তারের পর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করেছেন। একইসাথে, মিজানুর রহমান মিজান্যা নামের তার এক সহযোগিকেও গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। কক্সবাজার শহরের কলাতলী বাইপাস সড়কের উত্তরণের সামনে থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয় বলে কক্সবাজার সদর মডেল থানার এসআই প্রদীপ চন্দ্র দে সিবিএন-কে নিশ্চিত করেছেন। শুক্রবার ২৬ জুলাই তাদের আদালতে সোর্পদ করা হলে, আদালত তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। কোর্ট ইন্সেপেক্টর এ তথ্য সিবিএন-কে জানিয়েছেন। কূখ্যাত পুইত্যার বিরুদ্ধে মাদক ও পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় দু’টি মামলা রয়েছে এবং মিজান প্রকাশ মিজাইন্যার বিরুদ্ধেও একটি মাদক মামলা রয়েছে। গ্রেপ্তারের পর তাদের তল্লাশী করে একটি দেশিয় তৈরি বন্দুক, দুই রাউন্ড কার্তুজ ও দুইশত পিস ইয়াবা ট্যাবলেট পাওয়া গেছে। শওকত আলী পুইত্যা খরুলিয়া বাজারপাড়ার ইউছুপ আলীর ছেলে এবং মিজানের বাড়ি রামু উপজেলায়। কক্সবাজার সদর উপজেলার খরুলিয়া এলাকার ভুমিদস্যু, ইয়াবাবাজ, বহু অপকর্মের হোতা, অপরাধ জগতের ডন শওকত আলী পুতু ওরফে পুইত্যা ও তার বাহিনীর দাগী সন্ত্রাসীরা দীর্ঘদিন ধরে বেপরোয়া হয়ে ওঠেছিল। এ অবস্থায় দ্রুত চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী পুইত্যাকে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়ে আসছিল স্থানীয়রা। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা জানান, চট্টগ্রাম দক্ষিণ আঞ্চলের ঐতিহ্যবাহী খরুলিয়া গরুর বাজারে দুর-দুরান্ত থেকে আসা ক্রেতা-বিক্রেতার কাছ থেকে ডাকাতি, ছিনতাই ও জোরপূর্বক আটকে রেখে মুক্তিপণ আদায় করত পুতু বাহিনী। তাছাড়া ঝিলংজা ইউনিয়নের খরুলিয়া বাজার পাড়া, হিন্দু পাড়া, নয়াপাড়া, মুন্সীর বিল, সিকদার পাড়া, ভুত পাড়া, কোনার পাড়া, মাষ্টার পাড়া, সুতারচর, ঘাটপাড়া ও চেযারম্যান পাড়া সহ পুরো বৃহত্তর খরুলিয়ায় দীর্ঘ প্রায় একদশক ধরে মাদকসম্রাজ্য গড়ে তোলে পুইত্যা ও তার কূখ্যাত বাহিনী। বিভিন্ন স্থানে ইয়াবা, মদ, গাঁজা, ফেন্সিডিলসহ বহু প্রকার মাদক দ্রব্যের ব্যবসা চালিয়ে আসত তারা। মাদক ব্যবসায় আধিপত্য বিস্তার, ছিনতাই ও ডাকাতির ভাগভাটুয়ারা নিয়ে প্রায় সময় তাদের মধ্যে হামলা, সংঘর্ষ ও মারামারির ঘটনা ঘটত। এতে এলাকার আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতির অবনতিও হতো। তাদের অত্যাচারে এলাকাবাসী আতঙ্কের মধ্যে দিনযাপন করতো। এ পুইত্যা বাহিনীর কারণে বর্তমানে ইয়াবায় সয়লাব হয়ে গেছে খরুলিয়া এলাকার অলিগলি। স্থানীয় জনসাধারণের মূর্তিমান আতংক এ জগন্য পুইত্যা বাহিনীর সদস্যরা মাঝেমধ্যে গ্রেপ্তার হলেও কিছুদিন জেল খেটে আবার জামিন নিয়ে বেরিয়ে এসে পুনরায় মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়তো।
এদিকে, পুইত্যা বাহিনীর প্রধান শওকত আলী পুইত্যার গ্রেপ্তার করে কারাগারে প্রেরণের খবরে শুক্রবার খরুলিয়া এলাকায় সাধারণ মানুষের মধ্যে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে দেখা গেছে। অপরদিকে, বাহিনী প্রধানের গ্রেপ্তারের খবরে পুইত্যা বাহিনীর অন্যান্য সদস্যরা গা-ঢাকা দিয়েছে বলে এলাকার লোকজন সিবিএন-কে জানিয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •