cbn  

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
ঐতিহ্যের পথ ধরে সব ভালো কাজের সাথেই থাকে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। দেশের সব ধরণের সংকটকালীন মুহূর্তে এগিয়ে যায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। বলতে গেলে কক্সবাজারে ছাত্রলীগের এসব কর্মকান্ড বেশিই। সেই ধারাকে অব্যাহত রাখতে এবার পদ্মা সেতু নির্মাণে ‘মাথা লাগার’ গুজব প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে মাঠে কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগ।  বুধবার থেকে কক্সবাজারে সাধারণ মানুষের গুজব প্রতিরোধে সচেতনতা তৈরিতে প্রচারপত্র বিলিতে জেলা ছাত্রলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক মইন উদ্দীনের নেতৃত্বে এই সচেতনতা অভিযান চালানো হয়।

দিনভর কক্সবাজার শহরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে অভিভাবক, দোকানদার, পথচারী ও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের মাঝে কয়েক হাজার লিফলেট বিতরণ করেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ও কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ছাত্রলীগের সভাপতি মইনউদ্দীন জানান, ‘পদ্মা সেতুতে মাথা লাগবে’ এমন কুসংস্কারকে পুঁজি করে একদল লোক ছড়িয়ে দিয়েছে ‘ছেলে ধরা’ গুজব। মারাত্মক ক্ষতিকর ভাইরাসের মতো তা ছড়িয়ে পড়েছে দেশব্যাপী। সহজ-সরল মানুষের অনেকেই এসব গুজব বিশ্বাস করে আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন। সারাদেশে গুজবের কারণে ইতোমধ্যে গণপিটুনিতে প্রাণ হারিয়েছেন আটজন। যাদের কেউই ছেলেধরা বা অপহরণকারী ছিলেন না। এরকম সময়ে গুজব নামক ভাইরাস প্রতিরোধে সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের নির্দেশে মাঠে নেমেছে ছাত্রলীগ। বুধবার (২৪ জুলাই) সকাল থেকে কক্সবাজারে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ ও শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে ‘ছেলে ধরা’ গুজব ছড়িয়ে স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত করার ষড়যন্ত্র রুখে দেয়ার আহ্বান জানিছে সংগঠনটি।

তিনি আরো বলেন, নেতাকর্মীদের নিয়ে সকাল থেকেই শহরের প্রায় সব স্কুলের সামনে লিফলেট বিতরণ করেছি। গুজব প্রতিরোধে করনীয় সমূহ লিফলেটে লেখা আছে। এছাড়াও গুজব ছড়িয়ে স্বাভাবিক শ্রেণি কার্যক্রম ব্যাহত করার ষড়যন্ত্র সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের অবহিত করি। গুজবের শিকার হলে করণীয় সম্পর্কেও তাদের অবগত করেছি। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের নির্দেশে এই কার্যক্রম শুরু করেন বলে জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •