বার্তা পরিবেশক :
কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁওয়ের কর্মরত সাংবাদিকদের নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য ও হুমকি স্বরুপ আচরণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম পেইজবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে ঈদগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের ৪নং ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃ মিজানুর রহমান প্রকাশ  মহসিন। মহসিন চান্দের ঘোনা এলাকার মাষ্টার আলতাফুর রহমানের ছেলে বলে জানা গেছে। তার এমন কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য ও হুমকি স্বরুপ আচরণের স্ট্যাটাস পোস্ট করার পর সাংবাদিকদের মাঝে চাঁপাক্ষোভ বিরাজ করছে, সর্বত্রে উঠেছে নিন্দার ঝড় । নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে কর্মরত সাংবাদিকরা।

গতকাল ২১ জুলাই রাতে তার নিজ নামীয় পেইজবুক আইডি থেকে একটি স্ট্যাটাস পোস্ট করেন, সেখানে ঈদগাঁওয়ের অবসরপ্রাপ্ত ও তার অনুসারী আরো বেশ সাংবাদিকদের সুনাম করে। এক পর্যায়ে আরো কয়েকজন সিনিয়র জুনিয়র সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে লিখেন, আমাদের ঈদগাঁওতে পিঠের চামড়া টিক রাখার জন্য কিছু কুত্তা সাংবাদিকতা করে। ওদের পিঠের চামড়া ঠিকই চলে যাবে। তার এহেন মন্তব্যে ক্ষোভ প্রকাশ করেন কর্মরত সাংবাদিকরা। দৈনিক কক্সবাজার প্রতিনিধি এসএম তারেক বলেন, সাংবাদিকদের নিয়ে বাজে মন্তব্য ও হুমকি দেওয়ার কারণে ঐ মেম্বারকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে। অন্যথায় আইনী প্রক্রিয়ায় যেতে বাধ্য হবে সাংবাদিকরা। দৈনিক দৈনন্দিন প্রতিনিধি এম, শফিউল আলম আজাদ বলেন, মেম্বার মহসিন কেন,কি কারনে হঠাৎ এমন আচরণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম পেইজবুকে স্ট্যাটাস দিল তা আমাদের বোধগম্য নয়। তাছাড়া অন্যন্যা সাংবাদিকরা তার এই স্ট্যাটাসের নিন্দা জানিয়েছেন।

খোঁজ খবর ও এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, উক্ত মিজানুর রহমান প্রকাশ মহসিন মেম্বার একজন নারী কেলেঙ্কারির অভিযুক্ত।তাছাড়া তার বিরুদ্ধে প্রতারণা, ধর্ষন, ডাকাতির চেষ্টা মামলাসহ অহরহ মামলা রয়েছে। সম্প্রতি পুলিশ তাকে আটক করলে গনমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। ঐ সংবাদের ভিত্তিতে বিভিন্ন সময়ে স্থানীয় সাংবাদিকদের নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করে থাকে সে। বর্তমানে তার বিরুদ্ধে কয়েকটি মামলা ওয়ারেন্ট আছে বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে মিজানুর রহমান মহসিন মেম্বারের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। কল রিসিভ না করায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। পরবর্তীতে পাওয়া গেলে গুরুত্বসহকারে ছাপা হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •