আবদুল্লাহ নয়নঃ

মাদকের বিরুদ্ধে সরকারের জিরো টলারেন্স’র কথা জানিয়ে কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ আদিবুল ইসলাম বলেছেন, যারা ইয়াবার টাকায় আরামের দালান বানাচ্ছেন তারা পাশে সাড়ে তিনহাত জায়গা রাখবেন। মাদকের ব্যাপারে কাউকে বিন্দু পরিমাণ ছাড় দেয়া হবেনা।
শনিবার বিকালে কক্সবাজার পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের উত্তর নুনিয়াছড়ায় “মাদক, ইভটিজিং ও নারী সহিংসতাসহ অপরাধ দমনে কমিউনিটি পুলিশিং সভায়” তিনি এসব কথা বলেন।
মোঃ আদিবুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশ যখন বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট নিয়ে বিশ্বের দরবারে এগিয়ে যাচ্ছে, পদ্ম সেতুর কাজ যখন আমরা শেষ করতে যাচ্ছি-তখনও উত্তর নুনিয়াছড়ার লোকজন ইয়াবা নিয়ে পড়ে আছে।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আরও বলেন, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে উত্তর নুনিয়াছড়ায় মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালিত হবে। এটি লোক দেখানো অভিযান হবেনা। এমন অভিযান হবে যেখানে কোন মাদক ব্যবসায়ী ছাড় পাবেনা।
এসময় তিনি ইয়াবা ব্যবসায়ীদের তালিকা ও তাদের ঘরবাড়ি সনাক্ত করিয়ে পুলিশকে সহযোগিতার এলাকাবাসীকে আহ্বান জানান।
মাদকের শাস্তি মৃত্যুদন্ড জানিয়ে তিনি বলেন, মাদক ব্যবসায়ী নির্মূল ও ইয়াবা ব্যবসায়ীদের পাকড়াও করতে অভিযানের সূচনা হলো উত্তর নুনিয়াছড়া থেকেই। কক্সবাজারের আনাচে-কানাচে এই অভিযান পরিচালিত হবে।
মাদকের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারী দিয়ে তিনি বলেন, কোটি টাকা আয় করবেন অথচ রাত যাপন করতে হবে পাহাড়ে-জঙ্গলে! কেন এই টাকা? মাদক বিক্রি করে বাড়ি বানাচ্ছেন, গাড়ি কিনছেন-কার জন্য? আপনি মরে গেলে আপনার সন্তান-স্ত্রী লাশও নিবেনা। সুতরাং সময় থাকতে এসব ছেড়ে সুন্দর জীবনে ফিরে আসুন। আপনার অপর সহযোগিকেও সতর্ক করুন। অন্যথায় আইনের হাত থেকে কোন ব্যবসায়ীর রক্ষা হবেনা।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কক্সবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ফরিদুল ইসলাম খন্দকার পিপিএম বলেন, মাদক ব্যবসায়ীরা সৎপথে ফিরে না আসলে কঠোর শাস্তি ভোগ করতে হবে। যারা স্কুল-কলেজের সামনে দাঁড়িয়ে ইভটিজিং কর, ভাল হয়ে যাও। অন্যথায় এই অপরাধের দায়ে হাত-পা ভেঙ্গে দেয়া হবে।
তিনি আরও বলেন, দুই/চার জন্য ইয়াবা ব্যবসায়ীর কারণে পুরো এলাকার বদনাম হতে দেয়া যাবেনা। একজন খুনি কিন্তু একটা খুনের জন্য দায়ী। কিন্তু একজন ইয়াবা ব্যবসায়ী শত শত মানুষকে প্রতিনিয়ত খুন করছেন। এদেরকে আর ছাড় দেয়া হবেনা।
সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য রাখেন- কক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র-৩ শাহেনা আকতার পাখি, ২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মিজানুর রহমান, পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হাসান মেহেদী রহমান, কক্সবাজার সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন এন্ড কমিউনিটি পুলিশিং) মোহাম্মদ ইয়াসিন, পৌর কমিউনিটি পুলিশিং এর সভাপতি মিজানুর রহমান, জেলা ছাত্রলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক মঈন উদ্দিন, কমিউনিটি পুলিশিং ২নং সহ-সভাপতি কামাল উদ্দিন, শিল্প এলাকা সমাজ উন্নয়ন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আনছারুল করিম প্রমুখ।

সভায় সমাপনি বক্তব্য রাখেন কমিউনিটি পুলিশিং ২নং ওয়ার্ডের সভাপতি সেলিম উল্লাহ সেলিম।
সভা সঞ্চালনা করেন কমিউনিটি পুলিশ ২নং ওয়ার্ডের সম্পাদক আজিমুল হক আজিম ও সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম হেলাল উদ্দিন। সভায় উত্তর নুনিয়াছড়া, মধ্যম নুনিয়াছড়া, পশ্চিম নতুন বাহারছড়াসহ বিভিন্ন এলাকার সহস্রাধিক নারী-পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •