হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী :
নিজ কক্ষ থেকে বেরিয়ে অপরাধ প্রবণ ও প্রান্তিক এলাকায় যেতে চান রামু থানার নবাগত ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল খায়ের।

শনিবার (২০ জুলাই) সকালে ওসি মো. আবুল খায়ের মুঠোফোনে বলেন, ‘পুলিশকে সত্যিকার অর্থে জনগণের বন্ধু হতে হবে- যাতে মানুষ আস্তা রাখতে পারেন। রামুর এগার ইউনিয়নের মধ্যে ঈদগড় ও গর্জনিয়ার বড়বিল ক্রাইমজোন হিসাবে পরিচিত। এসব অপরাধপ্রবণ এলাকায় মাসে একবার হলেও গিয়ে সাধারণ মানুষের কথা শুনবো। তাৎক্ষণিকভাবে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) গ্রহণ, আইনি সমাধান, এলাকায় অপরাধ দমনে সহযোগিতা করতে মানুষকে সচেতন করার নানা পরিকল্পনা রয়েছে।’

সরকারের ঘোষিত মাদকের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি অনুসরণে মাদক বিরোধী সাড়াশি অভিযান জোরদার, ডাকাতি-অপহরণসহ সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সুরক্ষায় পরিকল্পিত ও পেশাদারিত্বের সাথে সবাইকে নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয়ও জানালেন নবাগত ওসি।

গত ১৮ জুলাই ওসি মো. আবুল খায়ের আনুষ্ঠানিকভাবে রামু থানায় যোগদান করেন। এর আগে তিনি উখিয়া থানার ওসি হিসাবে কৃতিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন করেন। ওসি আবুল খায়ের উখিয়া থানায় থাকাকালে রোহিঙ্গা শরনার্থী সমস্যা সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে ব্যবস্থাপনা করেন। উখিয়া উপজেলার আইনশৃঙ্খলা সুরক্ষা ও ইয়াবা বিরোধী অভিযানেও তিনি রেখেছেন সাফল্যের স্বাক্ষর। উখিয়ার আগে তিনি বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় কর্মরত ছিলেন। সেই সময় পাহাড়ি ছড়া থেকে নিজেই এক শিশুর লাশ উদ্ধার করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •