ফরিদুল আলম দেওয়ান, মহেশখালী:

মহেশখালী উপজেলার গোরকঘাটা- জনতাবাজার প্রধান সড়কের কালারমাছড়া ইউনিয়নের মির্জ্জির পাড়া নামক স্থানে ভঙ্গুর একটি কার্লভাটের বেহাল দশা নিয়ে যানবাহন চলাচর এমনকি পথচারিদের চরম ভোগান্তির শিকার ছিল দীর্ঘ দিনের। বারবার জোড়াতালি দিয়ে বেশ ক’বার কালভার্ড টি মেরামত করে যান চলাচলের উপযোগী করা হলেও তার স্থায়িত্ব হয় অল্প ক’দিন। এ নিয়ে সাম্প্রতিক দৈনিক অাজাদীতে বেশ ক’বার স্বচিত্র সংবাদ প্রকাশ হয়।

চলতি বর্ষায় সাম্প্রতিক বৃষ্টিতে পাহাড়ী ঢলে কার্লভাটটির অবস্থা অারো নাজুক হয়ে যানবাহন পারাপার এক প্রকার বন্ধা হওয়ার উপক্রম। এমতাবস্থায় দৈনিক অাজাদীর সংবাদ এবং ওই এলাকার বাসিন্দা সাতকানিয়া মহিলা কলেজের প্রভাষক রুহুল আমিন এর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের লাইভ ভিডিওতে এই কার্লভাটের বেহাল দশা দেখে স্থানীয় সাংসদ অালহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিকের দৃষ্টিগোচর হয়। তিনি তাৎক্ষনিক ভাবে ককসবাজারস্থ সড়ক ও জনপথ ভিভাগের সাথে যোগাযোগ করে জরুরী ভিত্তিতে একটি বেইলী ব্রীজ নির্মাণের নির্দেশ দেন। ফলে সওজ কতৃপক্ষের অান্তরিকতা ও স্থানীয় সাংসদ আশেক উল্লাহ রফিকের সার্বিক তত্বাবধানে ১৬ জুলাই রাত থেকে ১৭ জুলাই সকাল পর্যন্ত মাত্র ১০ ঘন্টায় ভাঙ্গা ও কার্লভাটের স্থানে রাতারাতি একটি বেইলী ব্রীজ স্থাপন করেন।

এ ব্যাপারে মির্জ্জির পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও শেখ রাসেল স্মৃতি সংসদের সভাপতি আব্দুল হাকিম জানান, তিনি স্থানীয় জনগনের সহযোগীতায় ১৬ জুলাই রাত থেকে সড়কটি বন্ধ করে দিয়ে সওজের লোকজনকে সহযোগিতা দিয়ে রাতারাতি ভাঙ্গা কার্লভাটটি সরিয়ে বেইলী ব্রীজটি স্থাপন করা হয়। এ সময় উভয় পাশে শতশত যানবাহন অাটকা পড়ে।

মাত্র ১০ ঘন্টায় মহেশখালীর মিজ্জিরপাড়ায় বেইলী ব্রীজ নির্মিত হওয়ায় স্থানীয় জনগন সাংসদ আশেক উল্লাহ রফিক ও নির্মাণ কাজে সহযোগীদের কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •