আবুল কালাম, চট্টগ্রাম:

নগরীর বিভিন্ন এলাকায় টানা অভিযান চালিয়ে অজ্ঞান ও মলম পার্টির সক্রিয় সদস্য সহ পাঁচ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছে নগরের গোয়েন্দা পুলিশ।

অভিযা করেছন বায়েজিদের অক্সিজেন, চান্দগাঁওয়ের বহদ্দারহাট এবং খুলশি থানার টাইগাপাস মোড়ে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ চেতনানাশক পাউডার, ডরমিটল ও সেডিল ট্যাবলেট এবং গামছা উদ্ধার করা হয়। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটকরা নিজ নিজ অপরাধের কথা স্বীকার করেছে।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) বিকাল থেকে টানা অভিযানে তাদের আটক করা হয় বলে জানান মহানগর গোয়েন্দা (উত্তর) বিভাগের উপ কমিশনার মিজানুর রহমান জানান

তিনি আরো বলেন, পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার আসামীরা জানায়, উদ্ধারকৃত আলামত দিয়ে চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন এলাকায় জনসমাগমস্থলে তথা বাসস্ট্যান্ড, বাসকাউন্টার, রেলওয় স্টেশন ও শহর এলাকায় যাত্রীবাহী বাসে মানুষের সাথে ছদ্মবেশে বন্ধুত্ব গড়ে তোলে খাবারের সাথে চেতনা নাশক পাউডার মিশিয়ে ও চোখে-নাকে মলম দিয়ে অজ্ঞান করে মূল্যবান জিনিসপত্র, টাকা পয়সা ও মোবাইল ছিনতাই করে আসছিল। আটকদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা রুজা হয়।

আটকরা হলেন, কুমিল্লার নাঙ্গলকোর্ট থানার বান্নাঘর দারোগা বাড়ির মৃত আইয়ুব আলীর ছেলে মোঃ রফিক মিয়া(৫৫) প্রকাশ বাবুল বর্তমানে বাকলিয়ার শান্তিনগর বগার বিল এলাকার রফিক এর ভাড়াটিয়া। একই এলাকার মৃত রহমত আলীর ছেলে মোঃ সাহাবুদ্দিন(৩১) বর্তমানে আমবাগান সাইক্লোন সেন্টারের পাশের সিএনজি ড্রাইভার সাহাবুদ্দিনের ভাড়াটিয়া এবং কুমিল্লার নাঙ্গলকোর্টের মৃত আব্দুল বারেকের ছেলে মোঃ মাহবুব(৩৮) চৈতন্যগলি, রিয়াজ উদ্দিন বাজার পাশের আলতাফের ভাড়াটিয়া। পটিয়ার কৈইক গ্রামের মৃত সালেহ আহম্মদের ছেলে মোঃ জাহাঙ্গীর আলম (৫৭) বর্তমানে নগরীর লালখাঁন বাজার একেখান বাংলো সংলগ্ন শাহ আলমের ভাড়া বাসায় বসবাস করেন এবং আম বাগানের নালাপাড়ায় ইউসুফ স্কুলের সামনে জাহাঙ্গীরের ভাড়াটিয়া মোঃ সোহরাব হোসেন জনি(২৮)। তার বাবার নাম মৃত মো. সুলতান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •