মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের থেকে লাবনী পয়েন্ট ডায়াবেটিস পয়েন্ট পর্যন্ত ভঙ্গুর ঝাউবাগান রক্ষায় সম্ভব সবকিছু করা হবে। এজন্য ইতিমধ্যে বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ উদ্যোগের অংশ হিসবেই গত সোমবার ১৫ জুলাই থেকে জিও টেক্সটাইল ব্যাগ দিয়ে বাঁধ নির্মাণ শুরু হয়েছে। জিও টেক্সটাইল ব্যাগ বসানোর কাজ এখন দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের কক্সবাজারের নির্বার্হী প্রকৌশলীর কার্যালয় একাজ বাস্তবায়ন করছে। সমুদ্রের ভাঙ্গন থেকে ঝাউবাগান রক্ষা করা প্রসংগে সিবিএন-কে দেয়া এক সাক্ষাতকারে কক্সবাজারের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আশরাফুল আফসার (উপসচিব) সিবিএন-কে মঙ্গলবার ১৬ জুলাই একথা বলেন। জিও টেক্সটাইল ব্যাগ দিয়ে তৈরি বাঁধ সমুদ্রের ভাঙ্গন থেকে ঝাউবাগান রক্ষা করা যাবে বলে তিনি সিবিএন-এর আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
প্রসঙ্গত, কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের ঝাউবন রক্ষা করার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার ১৬ জুলাই সকালে প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) অনুষ্ঠিত সভায় ঝাউবন রক্ষা ও আরো বাগান সৃজনের নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী। পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান দেশের বাইরে থাকায় তার পক্ষে পরিকল্পনা বিভাগের সচিব মো. নূরুল আমিন একনেক সভা-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশনা গণমাধ্যমের সামনে তুলে ধরেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা তুলে ধরে সচিব নূরুল আমিন বলেন, ‘ঝাউবন থাকলে ঘূর্ণিঝড় থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। এজন্য কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত ও শহরকে রক্ষার জন্য ঝাউবন লাগানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •