চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান সাঈদী’র বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা : সাঈদী বলেছেন জামিনে আছি

 

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফজলুল করিম সাঈদী’র রিরুদ্ধে ঢাকার অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট-৩ মোঃ আসাদাজ্জামান নূর গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন। ঢাকার পল্টন মডেল থানার ২০১৪ সালের ১২(৫)/২০১৪ নম্বর মামলায় ফজলুল করিম সাঈদী’র বিরুদ্ধে এ গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়। ফৌজদারী কার্যবিধি’র ৭৫ ধারা মতে এ গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। মামলার ধারা সমুহ হলো-পেনাল কোড: ৪২০, ৪০৬, ৪৬৫, ৪৬৭, ৪৬৮, ১৭১, ১০৯ এবং ৩৪। আগ্নেয়াস্ত্রের জাল লাইসেন্স দিয়ে পল্টন এলাকার একটি অস্ত্রের দোকান থেকে অস্ত্র কিনার সময় ঢাকার পল্টন থানা পুলিশ সেসময় ফজলুল করিম সাঈদী সহ ২ জনকে গ্রেপ্তার করা করেছিল। এ মামলায় তদন্তকারী কর্মকর্তা ইতিমধ্যে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেছেন এবং মামলাটি আমলী আদালত থেকে বিচারের জন্য বিচারিক আদালতে ট্রান্সফার করা হয়েছে। কক্সবাজারের পুলিশ সুপারের কাছে গত ১৫ জুন প্রেরিত ৯২৪ নম্বর গ্রেপ্তারি পরোয়ানায় বলা হয়েছে-“ফজলুল করিম @ সাঈদী, পিতা-মৃত ইসহাক আহম্মদ, সাং-হাল কাকরা, ২ নম্বর ওয়ার্ড, চকরিয়া পৌরসভা (সাঈদীর বাড়ী), থানা-চকরিয়া, জেলা-কক্সবাজার নিবাসীর প্রতি-এতদ্ধারা আদেশ করা যাইতেছে যে, আসামিকে ধরিয়া আমার নিকটে উপস্থিত করিবেন। ইহাতে ত্রুটি নাহয়।”
এবিষয়ে চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফজলুল করিম সাঈদী সিবিএন-কে বলেছেন-গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারি করা হয়েছিল, সেটা সঠিক। তবে তিনি ৪/৫ দিন আগে হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন নিয়েছেন। আগাম জামিনের সহিমুহুরী নকলের কপি তিনি সংগ্রহ করে কক্সবাজারের পুলিশ সুপারকে সরবরাহ করবেন বলে সিবিএন-কে জানান। তিনি আগে এ মামলায় চার্জশীট দাখিলের পূর্ব পর্যন্ত হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিনে ছিলেন। চার্জশীট হওয়ার পর আগাম জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় তিনি পূণরায় আগাম জামিন নেন। এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সুপ্রিম কোর্টের একজন সিনিয়র আইনজীবী বলেছেন-আদালতে মামলার চার্জশীট দাখিলের পর, সে মামলায় আগাম জামিন নেয়ার কোন আইন এদেশে নেই। ফজলুল করিম সাঈদী’র বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার বিষয়ে কক্সবাজার জেলা পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইনের কাছে জানতে চাইলে তিনি এ ব্যাপারে কিছু জানেননা বলে সিবিএন-কে জানিয়েছেন। চকরিয়া মডেল থানার ওসি মোঃ হাবিবুর রহমানের কাছে এবিষয়ে জানতে চাইলে, তাঁর থানায় ফজলুল করিম সাঈদী’র বিরুদ্ধে কোন ওয়ারেন্ট আসেনি বলে সিবিএন-কে জানান। একই বিষয়ে ঢাকার পল্টন মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ মাহমুদুল হাসান সিবিএন-কে বলেন-এরকম ওয়ারেন্ট হলেও হতে পারে, তবে তা নিশ্চিত হওয়ার জন্য সিবিএন প্রতিনিধিকে তাঁর থানায় স্বশরীরে যাওয়ার পরামর্শ দেন।

এদিকে, দৈনিক কালেরকণ্ঠের কক্সবাজারস্থ স্টাফ রিপোর্টার ও সিনিয়র সাংবাদিক তোফায়েল আহমদ তাঁর ফেসবুকে এ বিষয়ে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। রোববার ১৪ জুলাই বিকেলে দেয়া তাঁর ফেসবুক স্ট্যাটাসে তিনি লিখেছেন, “চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদী গ্রেফতারি পরোয়ানা মাথায় নিয়ে রবিবার জেলা আইন শৃংখলা কমিটির মাসিক সভায় অংশ নেন।”

সর্বশেষ সংবাদ

ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিল রিফাত শরীফ ও নয়ন বন্ড

কক্সবাজার ন্যাশনাল জিওগ্রাফিকের প্রচ্ছদে কক্সবাজারের ছবি!

যেভাবে জানা যাবে এইচএসসির ফল

মাতামুহুরী নদীর ভাঙ্গন আতঙ্কে  সহস্রাধিক পরিবার

রামুতে বিদ্যুৎ সরবরাহ কার্যালয়ে চুরি, কর্তৃপক্ষের দায়সারা ভাব

চকরিয়ার ভুয়া পিতাসহ রোহিঙ্গা নারী আটক

পেকুয়ায় মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি জাদুঘর ভবন নির্মাণে সীমাহীন অনিয়ম-দূর্নীতি!

উচ্চমাধ্যমিকের ফল প্রকাশ: পাশের হার ৭৩.৯৩

কক্সবাজারের জেল সুপার বজলুর রশিদ দিনাজপুরে বদলী

সামাজিক সংগঠন ‘মিছিল’ কক্সবাজার জেলা কমিটি গঠন

চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যানের পক্ষে দুর্গত মানুষদের চাল বিতরণ করলেন লিপি সাঈদী

পেকুয়ায় পাহাড় কাটা ও খাল ভরাটের সত্যতা পেয়েছে পরিবেশ অধিদপ্তর

টেকনাফে বিজিবি’র সাথে বন্দুকযযুদ্ধে চাঁদপুর ও যশোরের ২ মাদক কারবারী নিহত

মিয়ানমার থেকে পশু আমদানি বাড়ানোর জন্য বিজিবি-ব্যবসায়ী যৌথসভা অনুষ্ঠিত

কাল জাতীয় পরিচয়পত্র যাচাইয়ের গেটওয়ের উদ্বোধন করবেন সজীব ওয়াজেদ

রামু উপজেলা ছাত্রদলের নতুন আহবায়ক কমিটি ঘোষণা

সৈকতের ঝাউবন রক্ষায় প্রয়োজনীয় সবকিছু করা হবে : ভারপ্রাপ্ত ডিসি আফসার

স্বামী হত্যায় ফেঁসে গেলেন মিন্নি

উখিয়ায় রহস্যাবৃত্ত ওয়ালরাইটিংয়ে ভাষা উদঘাটন, র্নিঘুম রাত কাটাচ্ছেন স্থানীয়রা

চকরিয়ায় টানা ভারিবর্ষণে ৪০ কোটি ৫৫ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি