আলমগীর মানিক, রাঙামাটি:

রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের শতভাগ বেতন-ভাতার প্রদানসহ সন্মানী ভাতা প্রদানের দাবিতে দুইদিন ব্যাপী দাপ্তরিক সেবা বন্ধ কর্মসূচী পালন করছে রাঙামাটি পৌর সভার সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারিরা। সোমবার সকাল থেকে রাঙামাটি পৌর কার্যালয় সম্মুখে এই কর্মসূচী শুরু করে বিকেল পাচঁটা পর্যন্ত পালন করবে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনকারিরা।

অবস্থান কর্মসূচীতে আন্দোলনকারি পৌর কর্মচারিরা অভিযোগ করেছেন, দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে আন্দোলন করছে সারাদেশের ৩২৮ পৌরসভার ৩২ হাজার ৫শ কর্মকর্তা-কর্মচারী। সারাদেশের বিভিন্ন পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের তিন থেকে ৬০ মাস পর্যন্ত বেতন ভাতা বকেয়া রয়েছে। সরকার বারবার আশ্বাস দিলেও তাদের সমস্যা সমাধানে কোনো উদ্যোগ নেয়নি। এছাড়াও চলতি “২০১৯-২০২০ অর্থবছরের বাজেটেও পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য কোনো বরাদ্দ রাখা হয়নি।

প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে আন্দোলনকারিরা জানান, আমরা নিজেদের অস্থিত্ব টিকিয়ে রাখতে সম্পূর্ন অহিংস পন্থায় অধিকার আদায়ের আন্দোলন কর্মসূচী পালন করবো। কর্মসূচীতে রাঙামাটি পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী আতিকুর রহমান, প্যানেল মেয়র জামাল উদ্দিন, রাঙামাটি পৌরসভা সার্ভিস এসোসিয়েশনের সভাপতি একেএম বশির হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সনৎ কান্তি বড়–য়া, কাউন্সিলর মিজানুর রহমান বাবু, সচিব সুমন চৌধুরী, হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা ফরুক আহাম্মেদসহ সকল স্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারিরা অংশগ্রহণ করেন।

আন্দোলনরত পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারিরা জানান, ২ জুলাই সকল পৌরসভার সেবা কার্যক্রম বন্ধ রেখে রাঙামাটি প্রেসক্লাবে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হবে। আগামী ১৪ জুলাই সকল পৌরসভার সেবা কার্যক্রম বন্ধ রেখে ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নিবে কর্মকর্তা-কর্মচারিরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •