সেলিম উদ্দীন, ঈদগাঁও:
বাড়ির পাশে দিনদুপুরে জুয়া খেলায় বাধা দেয়ায় প্রসুতি নারীকে লোহার রড় দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করা হয়েছে। এসময় ছিনিয়ে নিয়ে গেছে গলার চেইন, কানফুল, নগদ ১০ হাজার টাকাসহ প্রায় অর্ধ লক্ষ টাকার মালামাল। শনিবার দিবাগত রাত পৌনে ৯ টার সময় চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের গর্জনতলী গ্রামে ঘটেছে এ ঘটনা। এ ঘটনায় গুরুতর রক্তাক্ত নারী রুমপা জান্নাত রিপু (২৬) মুক্তিযোদ্ধা বজল আহমদের পু্ত্র নুরুল আবছারের স্ত্রী। তিনি ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। তাকে স্থানীয় একটি বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার অলি আহমদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।
নির্যাতিত নারীর স্বামী ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী নুরুল আবছার জানায়, তিনি খুটাখালী বাজারে ক্ষুদ্র ব্যবসা করে দিনাতিপাত করেন। শনিবার রাতে তিনি দোকানে ছিলেন। এসময় বাড়ির আশ পাশের লোকজনের মারফত খবর পেয়ে তিনি বাড়িতে গিয়ে মুমুর্ষ অবস্থায় স্ত্রীকে হাসপাতালে ভর্তি করেন।
নির্যাতিত ও মারধরের শিকার প্রসুতি রুপমা জান্নাত রিপু বলেন, এদিন রাত পৌনে ৯ টার সময় তিনি ছেলেমেয়ে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। একপর্যায়ে তিনি ঘরের দরজা খুলার আওয়াজ পেয়ে ঘুম থেকে উঠে দেখতে পান লোহার রড় হাতে নিয়ে দরজায় মুখোষধারী লোক। তিনি শোরচিৎকার দিলে মুখোষধারী দুর্বত্ত তাকে লোহার রড় দিয়ে মাথায়, মুখে, হাত-পা ও কোমরে এলোপাতাড়ি আঘাত করে তার গলার চেইন, কানফুল,ছিনিয়ে নেয়। এসময় ঐ নারী মাটিতে লুটিয়ে পড়লে ঘরে রক্ষিত নগদ প্রায়১০ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে স্বামী উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন।
তার অভিযোগ, স্থানীয় চিহ্নিত জুয়াড়ি বাপ্পী বেশ ক’দিন ধরে তাদের বাড়ির পিছনে পায়খানার পাশে জুয়ার আসর বসায়। গত শুক্রবার তাকে এখানে কেন জুয়া খেলা হচ্ছে জানতে চাইলে তেলে বেগুনে জ্বলে উঠে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে দেখে নেয়ার হুমকি দিয়ে চলে যায়। এ ঘটনাকে পুঁজি করে চিহ্নিত জুয়াড়ি বাপ্পী শনিবার রাতে তার বসত বাড়িতে প্রবেশ করে তাকে মারধর করে স্বর্ণ, নগদ টাকা লুট করে।
এসময় সে বাধা দিলে জানে মেরে ফেলারও হুমকি দেয়। বর্তমানে সে পরিবার নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে।
এ ঘটনায় চিহ্নিত জুয়াড়ি বাপ্পীসহ বেশ ক’জনের বিরুদ্ধে চকরিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়েরের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •