জসীম উদ্দীনঃ

পুলিশ পরিচয়ে বাড়ি থেকে তুলে নেয়ার দুইদিনের মাথায় রমজান আলী (৪০) নামের এক ইয়াবা ব্যবসায়ী গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (২৮ জুন) সকালে কক্সবাজার শহরের ডায়াবেটিক পয়েন্ট থেকে গুলিবিদ্ধ লাশটি উদ্ধার করা হয়। দুপুরে রিপোর্ট লেখাকালে মরদেহটি জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে রয়েছে।

নিহত ব্যক্তি কক্সবাজার কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল সংলগ্ন ইসলামাবাদ লারপাড়া এলাকার মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে।

পুলিশের দাবি, তিনি চিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়ী। তার কাছ থেকে অস্ত্র ও ইয়াবা পাওয়া গেছে। তবে, পরিমাণ জানা যায়নি।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার পুলিশ উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইমরান জানান, কক্সবাজার ডায়াবেটিক পয়েন্টের পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে সকালে গুলিবিদ্ধ একজনের লাশ উদ্ধার করে হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ। তবে লাশের পরিচয় সংক্রান্ত কোন তথ্য জানাতে পারেননি তিনি।

এদিকে নিহতের স্ত্রী রোজিনা আক্তার দাবি করেন বুধবার (২৬ জুন) রাত দুইটার দিকে নিজ বাড়ি থেকে তার স্বামীকে ধরে নিয়ে যায় পুলিশ। পরে সদর থানাসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে খোঁজ নিলে কেউ তার স্বামী আটকের বিষয় স্বীকার করেননি। শুক্রুবার সকালে একজনের মাধ্যমে জানতে পারেন তার স্বামী রমজান আলির লাশ হাসপাতালের মর্গে পড়ে আছে। পরে তিনিসহ পরিবার লোকজন লাশটি শনাক্ত করেন।

রোজিনা আক্তার বলেন, তিনটি শিশু এতিম বাচ্চা নিয়ে এখন আমি কোথায় যাবো? কি খাওয়াবো? সন্তানদের আশ্রয়ের স্থানও নেই।

তিনি বলেন, আমার স্বামীর দোষ থাকলে কেন জেলে পাঠালোনা পুলিশ?

কথিত বন্দুকযুদ্ধের নামে মানুষ হত্যা কোন সমস্যার সমাধান কিনা? প্রশ্ন রাখেন তিনি।

খবর নিয়ে জানা যায়, নিহত রমজান আলি মূলতঃ একজন রাজমিস্ত্রি। বন্ধুদের ফাঁদে পড়ে কয়েক বছর আগে তিনি খুচরা ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গে জড়িয়ে ছিলেন। পরে ভবিষ্যৎ চিন্তা করে নিজেকে শোধরে নেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •