এম. মোস্তফা কামাল আজিজি :

রুপের রানী খ্যাত, অপূর্ব সৌন্দর্যের লীলাভূমি পর্যটন নগরী কক্সবাজারের ইনানী সী বীচ পর্যটকদের কাছে একটি বিনোদনের উল্ল্যেখযোগ্য স্থান । যেখানে প্রতি নিয়ত হাজার হাজার পর্যটকদের উপচেপড়া ভিড় জমে। তাদের এই আনন্দকে স্মৃতি হিসেবে ফ্রেমবন্দি করে রাখার জন্য ইনানী বীচে রয়েছে শতাধিক ক্যামেরাম্যান। যাদের ইতিপূর্বে তেমন কোন নিয়ম শৃঙ্খলায় আবদ্ধ ছিল না যার কারণে পর্যটকরা প্রতিদিন হেনস্তার শিকার হতো,
এমনকি অনেক ক্যামেরাম্যান এর হাতে মার খেতে হয়েছে অনেক পর্যটকদের। যার কারণে অনেক বদনামের ভাগি হতে হয়েছে পর্যটন বাসিদের। আর এ রকম চলতে থাকলে এক সময় পর্যটকরা মুখ ফিরিয়ে নিবে ইনানী বীচ থেকে।
ফলে অর্থনৈতিকভাবে সমস্যার মুৃখোমুখি হতে হবে ইনানী বসীর।

আর তাই টুকাই, ছিনতাই ও মাদক মুক্ত ইনানী বীচ গড়ার প্রত্যয়ে সবার সহযোগিতা ও ঐক্যবদ্ধতায় পর্যটন নগরী ইনানী স্টুডিও মালিক সমবায় সমিতি নামে একটি সংগঠনের ভিত্তিস্থাপন করা হয়েছে।

কমিটিতে উপদেষ্টা হিসেবে রাখা হয়েছে

স্থানীয় দুই দুইবারের সফল মেম্বার ও উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের অর্থ সম্পাদক
১/ নাজিম উদ্দিন পিতা মৃত বদি আহমদ, সহ
২/ সাবেক সফল মেম্বার শামসুল আলম মাজু পিতা জগির হোসাইন,
৩/ সলিমুল্লাহ (মেম্বার সাবেক)পিতা মৃত নূর আহাম্মদ মেম্বার,
৪/ মোহাম্মদ ইলিয়াছ পিতা ফরিদ মিয়া,
৫/ শফিউল আলম পিতা হাকিম মিয়া
৬/ আদনান চৌধুরী পিতা আব্দুল হক মিয়া
৭/ মমতাজ উদ্দিন মৃত মোজাফফর আহমদ
৮/ মিজানুর রহমান মিজান পিতা আবুল মঞ্জুর
৯/ জাফরুল্লাহ চৌধুরী পিতা সালামত উল্লাহ
১০/ শাহাবুদ্দিন পিতা হাবিবুল্লাহ
১১/আব্দুস সালাম পিতা মৃত হোসেন আলী,
১২/ আবু তাহের আবু মৃত বদিউর রহমান
১৩/ ফরিদুল আলম পিতা মৃত মুসলিম মিয়া
১৪/জাহাঙ্গীর আলম পিতা নুরুল ইসলাম

এবং পরিচালনা কমিটি রাখা হয়েছে।

১/ সভাপতিঃ রাশেদুল আলম রহমত পিতা জাফর আলম
২/ সিঃ সহ সভাপতিঃ নাজেম উদ্দিন নাজু
৩/ সিঃ সহ সভাপতিঃ সালা উদ্দিন সাল্লু
৪/ সহ সভাপতি সাকাওয়াত হোছাইন সোহাগ
৫/ সাধারণ সম্পাদকঃ রুবেল পারবেজ
৬/ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকঃ শহীদুজ্জমান শহীদ
৭/ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকঃ মোহাম্মদ আবছার
৮/সাংগঠনিক সম্পাদকঃ মোহাম্মদ আয়াছ
৯/ সহ সাংগঠনিক সম্পাদকঃ মোহাম্মদ আলম
৯/ সহ সাংগঠনিক সম্পাদকঃ জসিম উদ্দিন
১০/ অর্থ সসম্পাদকঃ ওবাইদুল হক
১১/ প্রচার সসম্পাদকঃ শরীফ সুলতান
১২/ সহ প্রচার সসম্পাদকঃ হামিদ মোঃ জয়।

এতে করে ইনানী বীচের অনেক’দিনের বদনাম হয়তো এবার মুচে যাবে। এবং পর্যটন নগরী ইনানী স্টুডিও মালিক সমবায় সমিতির হাত ধরে ইনানী সী বীচের সৌন্দর্য ফিরে আসবে বলে আশা ব্যক্ত করেন ইনানী বাসী।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •