শাহেদ মিজান, সিবিএন:
টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিনজন মানবপাচারকারি নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৫ জুন) ভোররাত ৪টার দিকে টেকনাফ উপজেলার মহেশখালিয়াপাড়া নৌঘাটে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ দাবি করছে নিহতরা সবাই রোহিঙ্গাদের সাগরপথে মালয়েশিয়ায় পাচার কাজে জড়িত ছিল। ‘বন্দুকযুদ্ধে’র ঘটনায় পুলিশের দুই সদস্য আহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।
নিহতরা হলো- টেকনাফ উপজেলার নয়াপাড়াস্থ গোলাপাড়া এলাকার আব্দু শুক্কুরের ছেলে কুরবান আলী (৩০), টেকনাফ পৌরসভার কে কে পাড়া এলাকার আলী হোসেনের ছেলে আব্দুল কাদের (২৫) ও একই এলাকার সুলতান আহমদের ছেলে আব্দুর রহমান (৩০)। এঘটনায় টেকনাফ থানার পুলিশের এএসআই সায়েফ, কনস্টেবল মং এবং মোঃ শুককুর আহত হয়। আহতদের টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ।

টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, ‘রাতে ১৫জন রোহিঙ্গা পাচার মামলার আসামীদের ধরতে টেকনাফ উপজেলার মহেশখালিয়াপাড়া নৌঘাটে পৌঁছলে আগে থেকে অবস্থানরত অস্ত্রধারী একদল মানবপাচারকারি পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে মানবপাচারকারিরা পিছু হটে পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে তিনজন মানবপাচারকারিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। এ ব্যাপারে টেকনাফ থানায় সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •