ডা: মোহাম্মদ লোকমান :

মুষলধারে বৃষ্টি, বর্ষণমুখর সন্ধ্যা কিংবা জল থৈথৈ খালবিল। বর্ষার ১০ দিন গত হলেও এসবের দেখা নাই। বাড়ছে অসহ্য গরমের তীব্রতা। রোগজীবাণুদের বংশবিস্তারের অনুকূল পরিবেশ বিরাজমান থাকায় ঘরে ঘরে এখন ভাইরাস জ্বর।ভাইরাস গুলো অত্যন্ত সংক্রামক হওয়ায় একজন আক্রান্ত হলে পরিবারের অন্যরাও রেহাই পাচ্ছেনা।
আসুন ভাইরাস জ্বর সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ কিছু জানার চেষ্টা করি।

ভাইরাস জ্বরের লক্ষণঃ
*শরীরের তাপমাত্রা অতিমাত্রায় বৃদ্ধি পাওয়া।
*মাংস পেশিতে ব্যথা(চাবায়, কামড়ায়)।
*মাথা ব্যথা।
*অত্যন্ত ক্লান্তি অনুভব করা।
*সর্দি হাঁচি কাশি।
*খাওয়ার অরুচি, বমির ভাব।

কি করা উচিৎঃ
*প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে।
(ডাবের পানি, লেবুর শরবত অত্যন্ত উপকারী এবং স্বস্তি দায়ক)
*সহজে হজম হয় এমন পুষ্টিকর খাদ্য বিশেষ করে তরল জাতীয় খাবার, ফলের রস ইত্যাদি খাওয়ার চেষ্টা করতে হবে।
*পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে হবে।
*জ্বর বেশি থাকলে ভেজা গামছা দিয়ে গা মুছতে হবে কিছুক্ষণ পরপর।
*পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে।
*ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া কোন ধরনের ওষুধ বিশেষ করে এন্টিবায়োটিক সেবন থেকে বিরত থাকতে হবে।
এখানে এন্টিবায়োটিকের কোন কাজ নেই। এন্টিবায়োটিক ভাইরাস মারতে সক্ষম নয়।

বেশীরভাগ ভাইরাস জ্বর ৭ দিনের মধ্যে এমনিতেই ভাল হয়ে যায়। উপরোক্ত পরামর্শ গুলো আমল করার চেষ্টা করতে হবে। এক্ষেত্রে ধৈর্যের আসলেই কোন বিকল্প নেই।

লেখক : মেডিকেল অফিসার, চকরিয়া পৌরসভা।

পরিচালক : লোহাগাড়া জেনারেল হাসপাতাল,

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •