কক্সবাজার নিউজ ডটকম (সিবিএন) ও চকরিয়া নিউজ ডটকমসহ বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পেপার ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ” পেকুয়ার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মনজুকে অপহরণ, ৩ লাখ টাকায় মুক্তিপন দিয়ে ছাড়া পেলেন” শীর্ষক প্রকাশিত সংবাদটি আমার দৃষ্টি গোচর হয়েছে। সংবাদটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ভিত্তিহীন, কাল্পনিক ও উদ্যোশ্য প্রণোদিত। সংবাদের সাথে বাস্তবতার কোন মিলনাই। প্রকৃত ঘটনা হচ্ছে; পেকুয়া উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা নুরুজ্জামান মনজু আমাদের পরিচালিত ম্যানগ্রোভ এসেটস লিঃ এর পক্ষে আমি ম্যানেজিং ডিরেক্টর হিসেবে আমার সাথে তাহার (নুরুজ্জামান মনজু) ব্রীকফিল্ডের ২ লাখ ইট ক্রয়ের চুক্তি হিসেবে নগদে অগ্রিম ১০ লাখ টাকা স্ট্যাম্প মূলে ক্রয় করি। বিগত ০৫/০৫/২০১৭ ইং থেকে মনজু ১০ লাখ টাকা গ্রহণের পর থেকে ইটও দেওয়া হয়নি, টাকাও ফেরৎ দেয়নি। এবিষয়ে আজ দেবে, কাল দেবে বলে বিভিন্নভাবে একাধিকবার কালক্ষেপন করে চলছেন। এমনকি চুক্তির সব শর্তই ভঙ্গ করেছেন উল্লেখিত মনজু। সর্বশেষ গত ২১ জুন বিকেলে তাহাকে চকরিয়া সদরে পাওয়া গেলে চকরিয়া ম্যানগ্রোভ অফিসে ডেকে নিয়ে যাই এবং ইট প্রদান কিংবা টাকা কেন ফেরৎ দিচ্ছেনা জানতে চাওয়া হয়। অথচ তাকে অপহরণের যেসব কথা বলা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। এছাড়াও ৩লাখ টাকা মুক্তিপন আদায়ের যেসব তথ্যা উপস্থাপন করা হয়েছে তাও সঠিক নয়। সে ইতিপূর্বে আমাদের কাছে টাকা ফেরৎ দেবেন বলে আরো দুইবার স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করেছেন। মূলত: প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে ইট ক্রয়ের জন্য দেওয়া ১০ লাখ টাকা আত্বসাত করার অপকৌশল হিসেবে অপহরণ নাটক বেছে নিয়েছে। তাই প্রকাশিত উক্ত মিথ্যা ও সাজানো সংবাদ নিয়ে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আহবান জানাচ্ছি এবং সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী
মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক, পিতা মোহাম্মদ হোছাইন, ডুলাহাজারা মালুমঘাট, চকরিয়া, কক্সবাজার।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •