একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (৬ষ্ঠ পর্ব)

– অধ্যাপক আকতার চৌধুরী

(৬ষ্ঠ-পর্ব)

তাওয়াফ শুরুর আগে ক্বা’বা ঘরের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে ধারণা থাকা প্রয়োজন। বিশেষ করে ৪টি কর্ণার যথা- হাজরে আসওয়াদ , রুকনে শামি , রুকনে ইরাকি ও রুকনে ইয়ামেনি কর্ণার । এ ছাড়াও আরো ৩টি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট  হাতিম বা অর্ধ চন্দ্রাকৃতির স্থাপনা , কাবাঘরের দরজা এবং মকামে ইব্রাহিম। জমজম কূপে প্রবেশের জায়গাটা এখন বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তবে বিভিন্ন পয়েন্টে পবিত্র জমজমের পানি পানের সুব্যবস্থা করা হয়েছে।

ওমরাহ ও হজের গুরুত্বপূর্ণ অংশ তাওয়াফ। ১ তাওয়াফ মানে ৭টি চক্কর। আবার প্রথম ৩টি চক্করকে রমল বলে । মানে বীরত্ব ভাব দেখিয়ে দ্রুত হাটা । তবে বীরত্ব ভাব দেখিয়ে কাউকে জোর পূর্বক ঠেলে , মাড়িয়ে হাটা নয় । শুধূ ভাব নেয়া । পরের ৪টি চক্করে স্বাভাবিকভাবে হাটতে হয় ।
তাওয়াফকালীন কিছু বিষয় আগে থেকে জানা থাকলে ভাল হয় । এর মধ্যে একটি একটি বাক্য বেশী শুনবেন। যেমন , হয়তো কেউ বলছে ‘শোআইয়া শোআইয়া’- তখন আপনি যদি শোয়ে যান তো খবর আছে । তার মানেটা হল – একটু আস্তে আস্তে চলুন। অনেকে আছে গায়ের জোর খাটিয়ে তাওয়াফ করতে চান। এদের মধ্যে কাল চামড়ার লোকগুলো অন্যতম। এছাড়াও কোন গ্রুপ হয়ে যদি তাওয়াফ করতে দেখেন তাদেরকেও এভয়েড করে হাটা উচিত। ওরা আপনাকে স্বাভাবিক গতিতে চলতে বাধাগ্রস্ত করবে। মাঝখানে ঢুকতে দেবে না। আবার কাউকে দেখবেন স্রোতের বিপরীতে হাটতে । এরাই বেশী বাধাগ্রস্ত করে। হয়তো তাদের ৭টি চক্কর শেষ হয়েছে । বের হয়ে যেতে হচ্ছে । তাই বলে স্রোতের বিপরীতে হাটতে যাবেন না। সব সময় আপনার ডানে চলতে চলতে বের হওয়ার চেষ্টা করবেন।
প্রখর রোদে তাওয়াফ করলে দুর্বল হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশী থাকে তাই সন্ধ্যার পর বা রাতে তাওয়াফ করা ভাল। তাওয়াফের সময় অনেক বেশী ধৈর্য্য বা সহনশীল হতে হয় । কাউকে কটু কথা বলতে নেই ।  অপরকে কষ্ট দেয়া যাবে না।
আমরা নামাজ পড়ার সময় সামনে দিয়ে কেউ হাটাচলা করলে রেগে যাই বা নিষেধ করি। কিন্তু ক্বা’বা শরীফে দেখবেন নামাজ পড়ার সময় আপনি সেজদার জায়গাও পাচ্ছেন না । এটাকেও স্বাভাবিকভাবে মেনে নিতে হবে। হাতে সরিয়ে দিয়ে সেজদা দিতে হবে , সালাত আদায় করতে হবে। রাগারাগি করা চলবে না।

তাওয়াফের অনেক নিয়মকানুন বের হয়েছে । আলেমগণ অনেক মত ও পথের কথা বলেছেন । ৭টি চক্করের জন্য ৭টি নিয়তের কথাও বলা হয়েছে। কোন চক্করে কি কি দোয়া করবেন তাও অনেকে অনেকভাবে বর্ণনা করেছেন। আমি মনে করি, এত মত ও পথে না গিয়ে মৌলিক নিয়মগুলো মেনে চলা উচিত। তাওয়াফ যেন সঠিক হয় সে জন্য তাওয়াফের নিয়ম-কানুন জানা জরুরি।

এভাবে বিভিন্ন পয়েন্টে পবিত্র জমজম কুপের পানি পান করার সু-ব্যবস্থা করা আছে।

১. পবিত্র কাবা শরিফের যে কোনায় হাজরে আসওয়াদ স্থাপিত, সেই কোনা থেকে তাওয়াফের বৃত্তাকৃতির জায়গার ওপর দিয়ে মসজিদে হারামের দিকে একটা দাগ দিয়ে চিহ্নিত করে দেয়া আছে সে বরাবর দাগের ওপর দাঁড়ানো। অথবা দাগ খুজে না পেলে সবুজ লাইট কোন জায়গায় আছে তা দেখে সেখান থেকে তাওয়াফ শুরু করা।

২. তাওয়াফ শুরু করার আগে হাজরে আসওয়াদকে চুম্বন করা অথবা স্পর্শ করা । সম্ভব না হলে দাগের ওপর দাঁড়িয়ে চলা শুরু করার সময় ২ হাত হাজরে আসওয়াদের দিকে ইশারা করে মুখে ‘বিসমিল্লাহি আল্লাহু আকবার’ বলে চক্কর দেয়া শুরু করা।

৩. হাজরে আসওয়াদ থেকে পবিত্র কাবা শরিফের দরজার দিকে অগ্রসর হওয়া। এর পর হাতিমে কাবার বাহিরে দিয়ে রুকনে শামি ও ইরাকি অতিক্রম করে রুকনে ইয়ামেনি বরাবর এসে তা স্পর্শ করা। যদি সম্ভব না হয়ে তবে হাতে ইশারা করা।

রুকনে ইয়ামেনি থেকে হাজরে আসওয়াদ পর্যন্ত আসতে এই দোয়া পড়া-
‘রাব্বানা আতিনা ফিদ দুনইয়া হাসানাতাও ওয়া ফিল আখিরাতে হাসানাতাও ওয়া ক্বিনা আ’জাবান নার।’ অর্থাৎ ‘হে আমাদের প্রতিপালক! আমাদেরকে দুনিয়া এবং পরকালের কল্যাণ দান করুন এবং জাহান্নামের আগুণ থেকে মুক্তি দান করুন।’

হাজরে আসওয়াদের কোনায় এসে আগের মতো আবারো স্পর্শ বা ইশারার মাধ্যমে বিসমিল্লাহি আল্লাহু আকবার বলে চক্কর শুরু করা। এভাবে সাত চক্করের মাধ্যমে তাওয়াফ সম্পন্ন করা।

৪. যারা ইহরাম বেঁধে ওমরার জন্য ফরজ তাওয়াফ করবেন, তাঁদেরকে তাওয়াফের সময় অবশ্যই ইযতিবা করতে হবে। চাদরের মধ্যভাগ থাকবে ডান বগলের নিচে।

আর ফরজ তাওয়াফ না হলে সাধারণ তাওয়াফের বেলায় যে কোনো পোশাকেই তাওয়াফ করা যাবে।

৫.  সম্ভব হলে হাতীমে ক্বাবায় দু’রাকাত নামাজ পড়ুন। এখানে কান্নাকাটি করে দোয়া করুন।

৬.  মাকামে ইব্রাহীমকে বায়তুল্লাহ্ ও নিজের মাঝখানে রেখে দুই রাকাত নামায পড়ুন।
তাওয়াফের পর মাকামে ইব্রাহীমে দু’রাকাত নামাজ আদায় করা ওয়াজিব। ভিড়ের জন্য যদি সম্ভব না হয় তাহলে আশে পাশে বা দূরবর্তী যে কোন স্থানে সহজ সম্ভব হয় পড়ে নিন।

প্রিয় পাঠক আশাকরি আমার অভিজ্ঞতা থেকে যে টিপসগুলো দেয়া হয়েছে, যারা নতুন ওমরাহ করতে যাবেন তাদের কিছুটা হলেও উপকারে আসবে। এটাও বলে রাখি , জ্ঞান সল্পতার কারণে আমার লেখায় অনেক ভুল ভ্রান্তি থাকতে পারে । আপনাদের সু-পরামর্শ পেলে সাদরে গ্রহণ করা হবে।

(সুত্র : উইকিপিডিয়া)

চলবে….

একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (১ম পর্ব)

একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (২য় পর্ব)

একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (৩য় পর্ব)

একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (৪র্থ পর্ব)

একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (৫ম পর্ব)

 

সর্বশেষ সংবাদ

কক্সবাজারসহ দেশের ৭৪ উপজেলায় তৈরি হচ্ছে নতুন আশ্রয়কেন্দ্র

দাবি মেনে নিয়ে ক্রিকেট সংকটের অবসান ঘটাল বিসিবি

অপকর্মে আ’লীগের সুনাম ভূলুন্ডিত হয় এমন নেতৃত্বের প্রয়োজন নেই : এড. সিরাজুল মোস্তফা

চকরিয়ায় অবৈধ নাচ গানের আসর গুড়িয়ে দিলেন পুলিশ

চকরিয়ায় অবৈধ মেলামেশা কালে জনতার হাতে আটক ২

ডুলাহাজারায় ইয়াবা ব্যবসায়ীকে আটক করে পুলিশে দিল জনতা

শিলার মাথায় মুকুট পরিয়ে দিলেন বলিউডের সুস্মিতা সেন

কক্সবাজারে মাধ্যমিক ও নিম্ন মাধ্যমিকে ২৪ টি বিদ্যালয় এমপিও ভুক্ত

মহেশখালী ডিগ্রি কলেজ ও কুতুবদিয়া বিএম কলেজ এমপিও ভুক্ত হলো

কক্সবাজারে ২৯ মাদ্রাসা এমপিও ভুক্ত

কক্সবাজার পৌরসভা ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্মেলন ২৯ অক্টোবর

মহেশখালীর ১১ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত

কুতুবদিয়া মুজিব কিল্লা পাড়া বঙ্গবন্ধু সড়ক নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

ঈদগাঁহ’কে থানা : এমপি কমলের উদ্যোগে শোকরানা সভা ও মেজবান নভেম্বরে

ইসলামের বিরুদ্ধে কটূক্তিকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দিন : লুৎফুর রহমান কাজল

কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার- ১১

খরুলিয়ায় জমি দখলের চেষ্টা, রাত জেগে পাহারা নারীদের

মওলানার কাঁধে পুরোহিতের ঘুমানোর ছবি ফেসবুকে ভাইরাল

গোমাতলী জরাজীর্ণ ব্রীজ পরিদর্শনে উপজেলা চেয়ারম্যান জুয়েল

চারদিকে সহিংসতা ছড়াচ্ছে কেন?