সড়ক উন্নয়ন হাটহাজারী পৌরসভার দৃশ্যপট বদলে দিচ্ছে

মোহাম্মদ হোসেন,হাটহাজারী :

হাটহাজারী পৌরসভা চলমান সড়ক উন্নয়ন, ফুটপাত নির্মাণ ও ড্রেনেজ ব্যবস্থাপনার ফলে ক্রমশ বদলে যাচ্ছে পৌর এলাকার দৃশ্যপট। বর্তমান পৌর প্রশাসক রুহুল আমিন হাটহাজারীতে যোগদানের পর থেকে পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের রাস্তা,কালভার্ট,ড্রেনেজ এর প্রকল্প গুলো হাতে নিয়েছে। পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের ঝিমিয়ে থাকা সড়ক গুলোর কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে,এত দিন এসব সড়কে বরাদ্ধ দেওয়া হলেও নানা কারনে কাজ গুলো মাসের পর মাস আটকা পড়ে। বরাদ্ধ হওয়া বিভিন্ন সড়ক পরিদর্শন করতে গিেেয় পৌর প্রশাসক রুহুল আমিন বলেন,সড়ক উন্নয়নে বরাদ্ধ দেওয়া হলেও কিছু কিছু সড়কে দায়িত্ব অবহেলা ও আন্তরিকতার কারনে দিনের পর দিন মাসের পর মাস সে সব প্রকল্পের কাজ শেষ হয়নি। এক জরিপে দেখা যায়,যে সব সড়কের কাজ পৌর কর্তৃপক্ষের বরাদ্ধ দেওয়ার পরেও কাজ না করে পরে থাকা সে সব সড়ক পরিদর্শন করেন পৌর প্রশাসক রুহুল আমিন। পরিদর্শনের ১৫ দিন পর অথবা এক মাসের মধ্যে নির্মাণ কাজ শেষ করেন ঠিকাদার।

৩ নঙ ওয়ার্ডের পূর্ব দেওয়ান নগর আজিমপাড়া সড়ক পৌরসভা গঠিত হওয়ার পর থেকে নানা কারনে উন্নয়ন হয়নি,বরাদ্ধ হলেও বার বার ঠিকাদার কাজ করেনি অথবা কাজ না করে ফেলে যায়। ইসরাত জাহান পান্না ওই সড়কটি মডেল হিসেবে কাজ করার প্রতিশ্রুত দেন কিন্ত সময়ের অভাবে করে যেতে পারেনি,এর পর হাটহাজারী (ইউএনও) হিসেবে যোগ দেন মোয়াজ্জেম হোসেন,তিনি পৌর প্রশাসকের দায়িত্ব পাওয়ার পরও ওই সড়কটির সমস্যা গুলো শেষ করে যেতে পারেনি।,এর পর হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে যোগ দেন আফছানা বিলকিছ, উনার সময়ে ওই সড়কের উন্নয়ন হয়নি। ওনার বদলী হওয়ার পরে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে যোগ দেন আকতার উননেছা শিউলী উনার সময়ে ওই সময়ে সড়কটি কাজটি হয়নি।ওনি বদলী হলে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে যোগ দেন মোহাম্মদ রুহুল আমিন,তিনি যোগ দিয়ে পৌর প্রশাসকের দাযিত্ব নেওয়ার পর থেকে পৌর সভার ৯টি ওয়ার্ডের নানা সমস্যা গুলো তদারকির করেন। ওয়ার্ডের সমস্যা নিয়ে পৌরসভার কাউন্সিলরদের সাথে বৈঠক করেন এবং ৯টি ওয়ার্ডের রাস্তা ঘাটের উপর নজর দেন। এত বছর পর হাটহাজারী পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ড ও পৌরবাসী অন্তত পক্ষে যোগাযোগ ব্যবস্থা অনেকটা এগিয়ে গেছে,উন্নয়ন হচ্ছে সড়ক,ড্রেনেজ ও কালভার্ট উন্নয়ন। যে সড়কে সমস্যা সে সব সড়কে দ্রুত পরিদর্শন করে সমাধানে এগিয়ে নিচ্ছে পৌর প্রশাসক।

পশ্চিম দেওয়ান নগর রংগীপাড়া ৫০ বছর দখলে থাকা অবৈধ দখন উচ্ছেদ করতে সময় নিয়েছে ১ ঘন্টা, সড়কটি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করায় এখন সে জায়গায় চলাচলের রাস্তার কাজ,সরকারী রাস্তাঘাট বৈধ দখল নিয়ে সেখানে ঘরবাড়ি লেট্রিন নির্মাণ করেন প্রভাবশালীরা।এ ভাবে পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ড এলাকায় অবৈধ দখল থাকা সবাইকে সতর্ক করেন পৌর প্রশাসক। যারা সরকারী জায়গা অবৈধ ভাবে দখল নিয়ে ঘর,দেয়াল,লেট্রিনসহ নানা স্থাপনা নির্মাণ করেছেন তারা যাতে সে সব স্থাপনা দ্রুত সরিযে নেয়।

এ দিকে পৌরসভার ৩ নং পূর্ব দেওয়ান নগর কালা মিয়া সওদাগর বাড়ি সড়কটি বরাদ্ধ হওয়ার দীর্ঘ কয়েক মাস পড়ে থাকার পর হঠাৎ পৌর প্রশাসক রুহুল আমিন,সড়কটি পরিদর্শনে যান এবং এলাকার জনগণের সাথে কথা বলেন, তিনি ওই সময় এলাকাবাসীদের বলেন,আন্তরিকতার অভাবে এই সড়কটি এতদিন কাজ হয়নি না হয় অনেক আগেই সড়কটি উন্নয়ন হয়ে যাওয়ার কথা ছিল। তখন তিনি এলাকাবাসীদের সাথে ওয়াদা করেন তিন দিনের মধ্যে সড়কটির কাজ শুরু করবেন। পৌর প্রশাসকের ওয়াদা মত ওই সড়কটি কাজ শুরু করেন। তবে সড়কটি ড্রেনেক না থাকায় দ্রুত ড্রেনেজ নির্মানের জন্য একটি প্রকল্প হাতে নেবেন বলে জানান পৌর প্রশাসক। এখন সড়কের পাশে ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় বর্ষাকালে অপরিসীম ভোগান্তি থেকে মুক্তি পাচ্ছে না পৌরবাসী। চলতি বছর শুরুতে পৌর শহরের ৯টি ওয়ার্ডে বিভিন্ন সড়কের উন্নয়নকাজ শেষ হয়। এর ফলে পৌরসভার যোগাযোগব্যবস্থার বৈপ্লবিক উন্নতি হয়েছে বলে মনে পৌরবাসী।

পৌর প্রকৌশলী বেলাল আহমেদ খান বলেন, পৌরসভার যোগাযোগব্যবস্থার উন্নয়ন বিভিন্ন পৌরসভার চেয়ে কোনো অংশে কম নয়। এর ফলে পৌরবাসী দীর্ঘদিনের অসহ্য ভোগান্তি থেকে মুক্তি পাচ্ছে।

৩ নং পূর্ব দেওয়ান নগর এলাকার বাসিন্দা নেজাম উদ্দিন,আলাউদ্দিন,আবু তাহের,কামাল উদ্দিন,আলফাছসহ এলাকার মুরুব্বীরা বলেন, আগে বিশেষ করে বর্ষায় পৌরসভার সড়ক দিয়ে হাঁটা যেত না। সিএনজি ও রিকশাওয়ালারা ভাঙা রাস্তার কারণে আমাদের বাড়ি সড়ক দিয়ে যেতে চাইত না। এ উন্নয়ন নিঃসন্দেহে আমরা ও পৌরবাসীকে অনেক সুফল দেবে।

পৌরসভার আজিমপাড়া সড়কের এলাকাবাসীদের সাথে কথা হলে তারা বলেন, পৌর এলাকায় আমাদের সড়কের মতো সড়ক অনেক জেলা শহরে নেই। সড়ক, ড্রেনেজ ও নাগরিক সুবিধা বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। ড্রেনেজ নির্মাণের জন্য ইতিমধ্যে পৌর প্রশাসক রুহুর আমিন আজিমপাড়া সড়কটি পরিদর্শ করে গেছেন।

ফটিকা পৌরবাসী আবু তৈয়ব ও হাটহাজারী উপজেলা পরিষদ সম্মুখে ব্যবসায়ী মোনালিসা স্ট্রোর পরিচালক আজম উদ্দিন এ প্রসঙ্গে বলেন, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের ওপর অনেক কিছু নির্ভর করে। বর্তমান উন্নয়ন যে কোনো সময়কে ছাড়িয়ে গেছে। এর সুফল আমরা প্রতিদিন ভোগ করছি।

সর্বশেষ সংবাদ

সোনালি ব্যাংক সিবিএ কক্সবাজার জেলা কমিটি গঠিত : সভাপতি মনোয়ার, সম্পাদক জাহাঙ্গীর

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিরাপত্তা আরো বৃদ্ধি করা হবে : এসপি মাসুদ

কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার- ২২

কালারমারছড়ায় পুলিশের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসীদের নেতৃত্বে মানববন্ধন

হাইওয়ে পুলিশের অভিযানে ৪৫০০ পিস ইয়াবাসহ আটক ১

জাতির সঙ্কট উত্তরণে ইসলামী নেজাম প্রতিষ্ঠার বিকল্প নেই

ঈদগাহ জাহানারা ইসলাম বালিকা বিদ্যালয়ে বিতর্ক প্রতিযোগিতা

শোভন-রাব্বানী বাদ: অন্যদের জন্য কী হুঁশিয়ারি বার্তা?

জেলা পর্যায়ে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবলে উদ্বোধনীতে রামু উপজেলার জয়

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ৫৫ হাজার ২৯৫

চট্টগ্রাম ইসি থেকে ‘হারিয়ে যাওয়া’ ল্যাপটপ দিয়েই এনআইডি হচ্ছে রোহিঙ্গাদের

রাঙামাটির খাদ্য অফিসে প্রতি সিডিউল ৩০০ টাকা বেশি!

কলাতলী চন্দ্রিমায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে প্লট দখল

চন্দ্রিমা হাউজিং থেকে ২ যুবক আটক

কক্সবাজারের ইয়াবা ডন শাহজাহান আনসারীর ভাই আবু সুফিয়ান অস্ত্র ও ইয়াবাসহ গ্রেফতার

রামু কলেজে ছাত্রলীগের বৃক্ষরোপন

শেখ হাসিনার সরকার বারবার দরকার-বঙ্গ ফজল

রোহিঙ্গা শরণার্থী ব্যবস্থাপনা দেখে মার্কিন প্রতিনিধিদলের সন্তোষ প্রকাশ

হলফনামা মূলে ধর্মান্তরিত ও বিবাহ সম্পন্ন

শকুনের নজরে শামলাপুর ফুটবল খেলার মাঠ