পাঠকের চিঠি :

এমপি জাফরের কাছে এক শিক্ষকের আবেগময় খোলা চিঠি

মাননীয় সংসদ সদস্য (কক্সবাজার-১)
আলহাজ্ব জাফর আলম মহোদয়, আস্সালামু আলাইকুম। আশা করি শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ আছেন। আশা করি চকরিয়া ও পেকুয়ার সর্বস্তরের মানুষের সার্বিক দোয়া ও ভালোবাসা নিয়ে আপনি এগিয়ে যাচ্ছেন। আমি জানি, আপনি চকরিয়া-পেকুয়া তথা কক্সবাজারের গণমানুষের নেতা। স্বাধীনতার পর প্রথম আপনি নৌকার মাঝি হয়ে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে চকরিয়া-পেকুয়া হতে মহান সংসদে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। আশা করি স্বল্প সময়ের মধ্যে আপনি আরো বেশি সফলতার স্বপ্নের সিঁড়িতে পদার্পণ করতে পারবেন।

প্রিয় এমপি মহোদয়,
আমি আপনার স্নেহের ছেলের মতো। তাই ছেলে হিসেবে পিতার কাছে আবদার করে একটি দাবি নিয়ে হাজির হয়েছি। দাবিটা কঠিন হলেও একজন পিতার কাছে তা মোটেও কঠিন নয়। ওগো পিতা, দাবিটা একটু পরে বলছি। প্রথমে কয়েকটি কথা আপনার দৃষ্টিতে উপস্থাপন করছি।

বর্তমান সরকার শিক্ষাবান্ধব সরকার। পুরো দেশে শিক্ষার সর্বোচ্চ বার্তা নিয়ে গ্রামে-গঞ্জে এগিয়ে যাচ্ছেন বর্তমান সরকার। এই সরকারের অন্যতম একজন সংসদ সদস্য আপনি নিজেই। তাই আপনার হাতের গভীরতা অনেক ভেতরে। আপনি যেহেতু একজন শিক্ষা বান্ধব জনপ্রতিনিধি, সেহেতু আমি একটি শিক্ষার দাবী নিয়ে আপনার বিবেকের কাছে হাজির হয়েছি।

ওগো পিতা,
একটিবার ছেলের কথা শুনোন। কক্সবাজার জেলার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চকরিয়া কোরক বিদ্যাপীঠ। এই বিদ্যালয়ের সভাপতি আপনি নিজেই। আপনি সভাপতির দায়িত্ব পাওয়ার পর বিদ্যালয়ের যথেষ্ট পরিমাণ উন্নতি হয়েছে যা সবার কাছে দৃশ্যমান। ১৯৯০ সালে এই বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর থেকে বর্তমান পর্যন্ত ফলাফলের দিক দিয়ে কক্সবাজার জেলাসহ পুরো দেশে আলোড়ন সৃষ্টি করে যাচ্ছে। বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা থেকে দুইটি শাখা বিদ্যমান। একটি হলো প্রাথমিক শাখা অন্যটি হলো মাধ্যমিক শাখা। মাধ্যমিক শাখা এমপিও ভুক্ত আর প্রাথমিক শাখা সম্পূর্ণ বেসরকারি, যা আপনি অবগত আছেন। এই বিদ্যালয়ের দুইটি শাখা পরিচালনা করছেন একটি ম্যানেজিং কমিটি ও একজন প্রধান শিক্ষক। সবার জন্য একই নিয়ম কানুন। প্রতিবছর এই বিদ্যালয়ের প্রাথমিক শাখা চমৎকার ফলাফল করে আসছে। প্রাথমিক শাখায় রয়েছে যোগ্যতা সম্পন্ন ২২ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা। যাঁদের অক্লান্ত পরিশ্রমে এগিয়ে যাচ্ছে প্রাথমিক শাখার সমস্ত কার্যক্রম। এই শাখায় রয়েছে প্রায় এক হাজারের অধিক শিক্ষার্থী। রয়েছে নিজস্ব ভবন ও মাঠ। কিন্তু প্রাথমিক শাখায় এতো কিছু থাকার পরও শিক্ষকদের জন্য নেই সরকারি কোনো সুযোগ সুবিধা। এই বিদ্যালয়ের প্রাথমিক শাখার শিক্ষকদের স্বপ্ন ছিল তাঁরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুনজরে পড়বেন, জাতীয়করণের স্বাদ গ্রহণ করবেন। কিন্তু স্বপ্ন শুধু স্বপ্নের মধ্যেই চক্রাকারে ঘুরছে। তবে তাঁরা এখনো জাতীয়করণের স্বপ্নের সাগরে হাবুডুবু খাচ্ছেন। হয়তঃ একদিন সত্যিই সত্যিই জাতীয়করণের স্বপ্ন ভোগ করতে পারবেন।

ওগো নেতা,
কোরক বিদ্যাপীঠের প্রাথমিক শাখার শিক্ষকদের স্বপ্ন পূরণের এই দায়িত্বটা আপনাকে অবশ্যই নিতে হবে। প্লিজ, আপনার ছোট্ট হাতটি তাঁদের দিকে প্রসারিত করুন। আমি চ্যালেঞ্জ দিয়ে বলবো, আপনি পারবেন। অবশ্যই পারবেন। কারণ আপনার হাতের পরিধি প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত বিদ্যমান। আমি জানি, দেশের বেশকিছু বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে শিগগিরই জাতীয়করণের তালিকায় নিয়ে আসবে। এই তালিকায় বিদ্যাপীঠের (প্রাথমিক+মাধ্যমিক) শাখার নাম অন্তর্ভূক্ত দেখতে চায় অত্র বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকামন্ডলী।

প্রিয় শিক্ষাবন্ধব নেতা,
জাতীয়করণের কোনো সুযোগ যদি না আসে তাহলে তো প্রাথমিক শাখাকে এমপিও ভূক্ত করা যায়। বর্তমান সরকার
ইবতেদায়ি শিক্ষকদেরকে এমপিও ভূক্ত করার ঘোষণা দিয়েছেন। কিন্তু বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিষয়ে কোনো প্রস্তাব হয়ত আসে নি। আপনার মাধ্যমে সংসদে এই প্রস্তাবটি উপস্থাপন করার দাবি করছি। হয়তঃ আপনার একটি প্রস্তাব হাজার হাজার অসহায় শিক্ষকদের ভাগ্য খুলে যেতে পারে।

প্রিয় এমপি মহোদয়,
প্লিজ,একটু লক্ষ্য করুন। এবারের বাজেটে মানসম্মত শিক্ষার ব্যাপারেও সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। এ লক্ষ্যে জাপানের সাবেক সম্রাট মেইজির মতো বিদেশ থেকে শিক্ষক আমদানির ঘোষণাও এসেছে। আধুনিক তথ্য-প্রযুক্তির শিক্ষা (পাঠদান) ও প্রশিক্ষণের জন্যই মূলত এ উদ্যোগ। এছাড়াও এমপিওভুক্তির তালিকায় সাড়ে ৭ হাজারের বেশি প্রতিষ্ঠান; উল্লিখিত ৪৩১২টি মাদ্রাসাসহ মোট সাড়ে ৭ হাজারের বেশি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবার এমপিওভুক্ত হচ্ছে। এর মধ্যে বাকি ৩ হাজার মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুল-মাদ্রাসা, উচ্চস্তরের কলেজ-মাদ্রাসা। এ ছাড়া আছে বিভিন্ন ধরনের কারিগরি প্রতিষ্ঠান। তবে তালিকায় স্থান পায়নি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোনো প্রতিষ্ঠান।

প্রিয় অভিভাবক,
বর্তমানে প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়ন ও আধুনিক তথ্য-প্রযুক্তির ছোঁয়া দিতে ‘ডিজিটাল প্রাথমিক শিক্ষা’ শীর্ষক প্রকল্প গ্রহণের ঘোষণা এসেছে। শিক্ষকদের চলমান দেশি-বিদেশি প্রশিক্ষণও অব্যাহত থাকছে। এদিকে কোরক বিদ্যাপীঠ প্রাথমিক শাখার শিক্ষকরা আপনার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানতে চেয়েছেন- ইবতেদায়ি শিক্ষকরা এমপিও পেলে, বেসরকারী বিদ্যালয় হিসেবে আমরা পাবো না কেন? এবিষয়ে আপনার পূর্ণাঙ্গ সহযোগিতা কামনা করছি।

প্রিয় সভাপতি,
বর্তমান সরকারের আমলে বেশকিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বিশেষ বিবেচনায় তালিকাভুক্ত করা হবে বলে জানা গেছে। বিশেষ বিবেচনায় হাওর-বাঁওড়, চরাঞ্চল, পাহাড়িসহ দুর্গম এলাকার এবং নারী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান তালিকায় ঠাঁই পেতে পারে বলে জানিয়েছেন একজন অতিরিক্ত সচিব। এ ছাড়া যেসব উপজেলা থেকে শর্ত অনুযায়ী কোনো প্রতিষ্ঠান তালিকাভুক্ত করা যায়নি সেসব উপজেলা থেকেও কিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বিশেষ বিবেচনায় তালিকাভুক্ত করা হবে। এ লক্ষ্যে গত বুধ ও বৃহস্পতিবার দু’দিন মন্ত্রণালয়ে কয়েক দফা বৈঠক হয়েছে। তবে তালিকা তৈরির কাজ শেষ করতে আরও দু-একটি বৈঠক লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন কমিটির প্রধান অতিরিক্ত সচিব জাভেদ আহমেদ।

পরিশেষে প্রিয় আলহাজ্ব জাফর আলম এমপি মহোদয়ের কাছে আমার বিনীত আবেদন, চকরিয়া কোরক বিদ্যাপীঠ প্রাথমিক শাখার শিক্ষকদের দিকে তাকিয়ে হলেও কোনো একটি পথ বের করুন। যে পথে ঐ শিক্ষকরা শিক্ষার আলো ছড়াতে সক্ষম হবে।

ইতি
আপনারই স্নেহের
মোহাম্মদ রিদুয়ানুল হক
সহকারী শিক্ষক
চকরিয়া কোরক বিদ্যাপীঠ

cbn কক্সবাজার নিউজ ডটকম (সিবিএন) এ প্রকাশিত কোন সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।-কক্সবাজার নিউজ ডটকম  

সর্বশেষ সংবাদ

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ: কক্সবাজার পৌরসভার জার্সি উন্মোচন

ভালবাসার মানুষের প্রত্যেক অর্জনই ‘সুখের’!

ব্রিজের নিচ থেকে বালি উত্তোলন, ডাম্পার জব্দ

২৫ বছর আগের মামলা, ৪৫০০ গ্রামবাসীকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ

এয়ারলাইনসের টিকিট বিক্রিতে ব্যাংক গ্যারান্টি লাগবে না ট্রাভেল এজেন্সির

আমাদের বলির পাঁঠা বানানো হয়েছে: রাব্বানী

পোকখালীতে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে যুবকের মৃত্যু

রোহিঙ্গাদের এনআইডি: মামলার পর ইসি কর্মচারীকে বরখাস্ত

রোহিঙ্গাদের এনআইডি : ইসি কর্মচারীসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা

বিভাগীয় শহরে হচ্ছে পূর্ণাঙ্গ ক্যান্সার চিকিৎসাকেন্দ্র

অসম্মান, অশ্রদ্ধা

আলীকদমে এনজিওর প্রকল্পে স্থানীয়দের নিয়োগ দাবীতে মানব বন্ধন ও স্মারকলিপি

স্বাধীনতার ৪৮ বছরেও মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পায়নি বাইশারীর থোয়াইছাহ্লা

রোহিঙ্গা সমস্যা আরো দীর্ঘস্থায়ী হচ্ছে?

লোহাগাড়ায় ইয়াবা বিক্রি করতে গিয়ে যুবক আটক

জেলা দায়রা জজ আদালতের পিপি হলেন এডভোকেট ফরিদুল আলম

জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানানোয় এসপি মাসুদের কৃতজ্ঞতা

পেকুয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইসচেয়ারম্যান মঞ্জু গ্রেপ্তার

মাওলানা সোলায়মানের মৃত্যুতে লুৎফুর রহমান কাজলের শোক

কিশোর গ্যাং: যেভাবে গড়ে ওঠে দুর্ধর্ষ কিশোর অপরাধীদের এক একটি দল