প্রেস বিজ্ঞপ্তি

উখিয়া উপজেলার গুরা মিয়া গ্যারেজে প্রতিষ্ঠিত সম্ভাবনাময়ী ইসলামী শিক্ষাকেন্দ্র বয়ানুল কুরআন মাদ্রাসার পরিক্ষার্থীদের ফলাফল প্রকাশ ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। ১৭ জুন ( সোমবার) সকাল ১০ টায় মাদ্রাসা মিলনায়তনে এতদঞ্চলের প্রবীণ আলেম মাওলানা মোস্তাক আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক মাওলানা রেজাউল করিম আফজল।
অনুষ্ঠানে আদর্শ দেশ ও জাতি গঠনে দ্বীনি শিক্ষার গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা করেন, মরিচ্যা বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা মাহমুদুল হাসান, তরুণ লেখক, রামু লম্বরীপাড়া দারুল কুরআন নূরানী একাডেমীর পরিচালক হাফেজ মুহাম্মদ আবুল মঞ্জুর।
তারা বলেন, ইখলাসপূর্ণ প্রয়াস থাকলে অল্পসময়েই একটি শিশু প্রতিষ্ঠান মডেল প্রতিষ্ঠানে রূপ নিতে পারে তার এক বাস্তব উদাহরণ উখিয়া বয়ানুল কুরআন মাদ্রাসা। এটি সম্ভাবনাময়ী একটি দ্বীনি শিক্ষায়তন। অন্ধকারাচ্ছন্ন জনপদকে কুরআন-সুন্নাহর আলোকধারায় উদ্ভাসিত করার ইখলাসপূর্ণ প্রয়াসে এ দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গোড়াপত্তন এ অঞ্চলের জন্য আল্লাহর বিশেষ রহমত। খুব কম সময়েই এ দ্বীনি শিক্ষাকেন্দ্র সমাদৃতি লাভ করেছে, সাড়া জাগিয়েছে। কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীদের মাঝে ইসলামী শিক্ষার প্রসারের মধ্যদিয়ে এ দ্বীনি বাগিচা আজ ফুলে ফলে সুশোভিত। পুরো এলাকায় আজ এ দ্বীনি কাননের পুষ্পরাজির সৌরভে সুরভিত আলহামদুলিল্লাহ। এর ধারা বজায় রাখতে দু’আ ও আন্তরিক সহযোগিতা করা এলাকার দ্বীন অনুরাগী জনতার ঈমানী কর্তব্য।
অনুষ্ঠানে শিক্ষকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, শিক্ষা পরিচালক মাওলানা এম. নুরুল আমিন মাহমুদ, মাওলানা দেলোয়ার হোসাইন, মাওলানা আছগর আলী, মাওলানা আব্দুল হামিদ, মাওলানা আলী আহমদ। অভিভাবকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, শামসুল আলম বোখারী, সুলতান আহমদ, আব্দুচ্ছালাম, সিরাজ মিয়া, ছৈয়দ আহমদ বাবুল, কামাল হোসাইন আকাশ, জয়নাল আবেদীন প্রমুখ।
বিশেষ মুনাজাতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শেষ হয়।
উল্লেখ্য, অনুষ্ঠানে বিগত শিক্ষার্থীদের প্রাতিষ্ঠানিক পরিচয়পত্রও বিতরণ করা হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •