একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (৫ম পর্ব)

– অধ্যাপক আকতার চৌধুরী

(৫ম-পর্ব)

ইহরামের কাপড় পড়া অবস্থায় যখন পবিত্র মক্কার মিছফালায় মাটিতে পা রাখি তখন সৌদি সময় প্রায় সকাল ৬টা । যে জায়গায় আমাদের গাড়ি দাড়ায় তা একটা ফ্লাই ওভারের নিচে। নেমে মোবাইলের দিকে চোখ পড়তেই বুকটা ধড়ফড় করে উঠল। মাত্র ১০% ব্যাটারীর চার্জ বাকি । এর মধ্যেই সারতে হবে আত্মীয় স্বজনদের সাথে কল। জানাতে হবে আমাদের অবস্থান। বন্ধ হলেই আমাদের খোঁজে পেতে তাদের অসুবিধা হবে। মনে মনে আল্লাহ আল্লাহ করছি , যাতে ভাতিজা আবু তাহের অথবা ছোট ভাই টিটু কল দেয় চার্জ থাকতেই । তারা যে জায়গায় আমাদের অপেক্ষায় , সে জায়গায় ড্রাইভার গাড়ি পার্কিং করতে পারে নাই । অনেক সময় বড় বাস হলে মিছফালায় হোটেল পর্যন্ত গাড়ি যেতে দেয় না। ভাগ্যক্রমে আমাদের মিনিবাসটা ট্রাফিক আটকায় নাই । ফলে আরো বেশী হোটেলের কাছাকাছি চলে যাই । চার্জ থাকা পর্যন্ত শেষ কলটা আসে টিটুর। তাকে আমাদের গাড়ির অবস্থানটা জানানোর পর মোবাইলটা অফ হয়ে যায় । আমি কিছুটা নার্ভাস । সহযাত্রি নাসির ভাইয়ের মোবাইল তখনও সচল। ওনার মোবাইল থেকে অনেক্ষণ কথা বলার পর আমাদের বাস খোঁজে পায় তারা । তাই বলব , যারা সফরে আসবেন মোবাইলে ব্যাকঅ্যাপ রাখতে চাইলে অন্তত বিমানে অবস্থানকালীন মোবাইল সুইচ অফ করে রাখা ভাল। যেহেতু বিমান আকাশে উড্ডয়ন অবস্থায় মোবাইল নেটওয়ার্ক পায় না , তাই নেটওয়ার্ক খুজতে গিয়ে অযথা ব্যাটারীর চার্জ নস্ট হয়।

আত্মীয় স্বজনকে কাছে পেয়ে আমাদের এক প্রকার স্বস্তি ফিরে আসে। তবে যাত্রার ক্লান্তি পেয়ে বসে। আমরা বাসায় যেতে চাইলে তাহের বলে, ইহরামের কাপড় পড়ে বাসায় যাওয়া ভাল হবে না । আগে তওয়াব আর সাফা মারওয়া শেষ করতে হবে। তারাও তৈরী হয়ে এসেছে আমাদের সঙ্গ দেয়ার জন্য ইহরামের কাপড় পড়ে। মক্কা থেকে যারা ওমরাহতে অংশ নেন তাদের অনেকেই হযরত আয়েশা (র:) মসজিদ থেকে ইহরাম পড়া শুরু করেন। এ মসজিদটি হারাম শরীফ থেকে ৬কি:মি দুরে মদীনা যাওয়ার পথে। জানা যায়, হযরত মোহাম্মদ (স:) একবার তাঁর সহধর্মীনি বিবি আয়েশা (রা:)কে এই মসজিদে পাঠিয়েছিলেন ওমরাহ’র ইহরাম বাঁধার জন্য। সে কারণে এটাকে অনেকে ইহরাম পড়ার মসজিদ হিসেবে ব্যবহার করেন। আমিও ৩য় ওমরাহ শুরু করার জন্য এ মসজিদ থেকে ইহরাম ও দুই রাকাত নামাজ পড়েছিলাম।

আমরা মিছফালায় যেখানে নেমেছি সেখান থেকে পায়ে হেটে হারাম শরীফের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিলাম। অনেক দুর হাটা পথ । পায়ে যদিওবা নতুন দুই ফিতার স্পঞ্জের চ্যান্ডেল কিন্তু হেটে আরাম পাচ্ছিলাম না । ইহরামের কাপড় পড়ার পর কিছু বিধি নিষেধ খুব কঠিনভাবে মেনে চলতে হয় । এর মধ্যে সেলাই বিহীন কাপড় ও সেলাই বিহীন সেন্ডেল অন্যতম। আমার কাছে মনে হয়েছে একদম নতুন স্যা ল্ডেল পড়ার চেয়ে কিছুদিন ব্যবহৃত স্যান্ডেল পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করে পায়ে দেয়া ভাল। এতে হাটাচলা সহজ হবে। ওমরাহ বা হজে¦র সময় জুতা পড়ার কোন সুযোগ নেই বললেই চলে। তাই ২ জোড়া পূর্বে ব্যবহৃত স্যান্ডেল সফরে নিতে চেষ্টা করবেন।
তবে আমার পায়ে আজ কিসের শক্তি ! আমি একটা প্রচন্ড টান অনুভব করছি। আমার থেকে মাত্র এক দৃষ্টি দূরে আমার আল্লাহর ঘর। আমার পায়ে কোন ব্যথা আর দীর্ঘ পথ পাড়ি দেয়ার ক্লান্তি কোনটাই অনুভূত হচ্ছে না ! চুম্বকের টানের চেয়েও গতিময় মনের টানে আমি ছুটে চলেছি । লাব্বাইকা আল্লাহুমা লাব্বাইক – প্রভু আমি হাজির । প্রভু-তুমি আমার হাজিরাটা গ্রহণ কর।

চার কোণা বিশিষ্ট কাল গিলাপে জড়ানো একটি ঘর ।কাবা শরীফের গিলাফ একটি বস্ত্রখণ্ড যা দ্বারা কাবাকে আচ্ছাদিত করে রাখা হয়। বর্তমানে গিলাফ কালো রেশমী কাপড় নির্মিত, যার ওপর স্বর্ণ দিয়ে লেখা থাকে “লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলাল্লাহ”, “আল্লাহু জাল্লে জালালুহু”, “সুবহানাল্লাহু ওয়া বেহামদিহি, সুবহানাল্লাহিল আযিম” এবং “ইয়া হান্নান, ইয়া মান্নান”। ১৪ মিটার দীর্ঘ এবং ৯৫ সেমি প্রস্থবিশিষ্ট ৪১ খণ্ড বস্ত্রখণ্ড জোড়া দিয়ে গিলাফ তৈরি করা হয়। চার কোণায় সুরা ইখলাস স্বর্ণসূত্রে বৃত্তাকারে উৎকীর্ণ করা হয়।(সুত্র: উইকিপিডিয়া)

এটা কী শুধূই ঘর ! যে ঘর বা ক্বা’বা সর্বপ্রথম আল্লাহ তালার নির্দেশে নির্মাণ করেছেন ফিরিশতারা । পরে হযরত আদম (আ:) , এর পরে হযরত শীষ (আ:)। এর পরে হযরত নূহ (আ:)। তারওপরে  হযরত ইবরাহীম (আ:)।

হাজার হাজার বছর এখনো আল্লাহর একত্ববাদের মাহাত্ম্য প্রচার করে আসছে। আমি বলব, না এটা শুধূই ঘর নয় । এটা আমার কাছে মহান সৃষ্টি কর্তার অস্তিত্বের একটা উজ্জল সাক্ষর । যার আকর্ষণে মানুষ পতঙ্গের মত উড়ে উড়ে আসে । যার আলোতে পুড়ে নিজেকে পরিশুদ্ধ করে।
আমি আল্লাহর ঘরের দরজায় ডান পা এগিয়ে দিয়ে প্রাণভরে দেখছিলাম চতুষ্কোণাকৃতির হযরত ইব্রাহিম (আ:) এর নির্মিত সেই ঘর । তারপর বৃত্তাকারে নির্মিত তাওয়াবের চারিদিক দেখে নিলাম। বায়তুল্লাহ শরীফকে সামনে ও মকামে ইব্রাহিমকে মাঝে রেখে খালি জায়গা দেখে ২ রাকাত নামাজ পড়ে নিলাম। অনুমতি চাইলাম আমি পাপী বান্দা, সকল পাপ আজ পুড়িয়ে নিজেকে পরিশুদ্ধ করব। সবুজ সংকেত থেকে শুরু । ডান কাঁধ খালি রেখে চাদরের মাঝের অংশ বগলের নীচ দিয়ে এনে চাদরের পার্শ্ব বাম কাঁধের উপর ফেলে দিলাম।

অন্তরে নিয়ত করলাম- আল্লাহ । আমি তোমার পবিত্র ঘরের তাওয়াফ করার নিয়ত করেছি। আমার জন্য তা সহজ করে দাও এবং কবুল কর। সাতটি চক্কর যা একমাত্র তোমার সন্তুষ্টির জন্য। তুমি সর্বেসর্বা । তুমি পরাক্রমশালী । তুমি মহান। তুমি ক্ষমাশীল। তুমি ছাড়া এ পাপীর পাপ ক্ষমা করার আর কোন মালিক নাই।

সামনে ‘হাজরে আসওয়াদ’ বা কালো পাথর। এর দিকে তাকিয়ে ‘ ‘বিসমিল্লাহি আল্লাহু আকবর, ওয়ালিল্লাহিল হামদ্।’ ’ বলে তিনবার হাত ‘হাজরে আসওয়াদ’ বা কালো পাথরের দিকে করে নিজ হাতে চুমো খাচ্ছি। হাজীদের ভীড়ে কাছে যাওয়ার মত সুযোগ ছিল না । আর বিশাল ভীড় টেলে গায়ের জোরে স্পর্শ ও চুমো করতে যাওয়াটাও অনুচিত। এখানে নারী পুরুষ , সাদা কালো. ধনী গরীবের ভেদাভেদ নাই । সবাই পাগলপারা ,নিজের কৃতকর্মের মুক্তির জন্য । মনে রাখতে হবে , এ পাথর আমাদের কোন লাভ ও করতে পারে না , ক্ষতি
ও করতে পারে না । শুধূ মাত্র মহানবীকে (স:) এ পাথরকে চুমো খেয়েছেন বলে আমরা সেটাই অনুসরণ করছি। এই তাওয়াফকে নিয়ে নানা মুনির নানা মত, নানা পথ। কিন্তু আমার পথ একটাই । আল্লাহর সন্তষ্টি ।

এই সাত চক্করে দুনিয়ার সকল প্রকার কানেকটিভিটি থেকে মানুষ আলগা হয়ে যায় । তখন একটি মাত্র কানেকটিভিটি চালু থাকে, যা সরাসরি আল্লাহর সাথে। বার বার মনে পড়ে এটা শুধূ ইহরাম নয় , কাফনের কাপড়ও ! আমি জিন্দা বটে , তবে জিন্দা লাশ!

চলবে…

একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (১ম পর্ব)

একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (২য় পর্ব)

একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (৩য় পর্ব)

একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (৪র্থ পর্ব)

একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (৬ষ্ঠ পর্ব)

সর্বশেষ সংবাদ

হিন্দু কলেজ ছাত্রীকে কোরান বিলির নির্দেশ ভারতের আদালতের

মিন্নির পাশে কেউ নেই! পুলিশ সুপারের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ

রুবেল মিয়ার মেজ ভাইয়ের মৃত্যুতে সদর ছাত্রদলের শোক প্রকাশ

হালদা দূষণের অপরাধে বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ রাখার নির্দেশ : জরিমানা ২০ লাখ টাকা

তরুণ সাংবাদিক হাফিজের শুভ জন্মদিন আজ

চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান সাঈদী’র বরাদ্দ থেকে ১৫০০ পরিবারে চাউল বিতরণ

কলেজ আমার কাছে দ্বিতীয় পরিবার

রামু উপজেলা ছাত্রদল যুগ্ম আহবায়ক সানাউল্লাহ সেলিম কে শোকজ

No more than 2500 Easy Bikes in the city, Acting D.c Ashraf

An awaiting repatriation

25 elites relate to Yaba, SP Masud Hussain

উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই : সড়ক বিভাগের জমিতেই নান্দনিক ৪ লেন সড়ক

কক্সবাজারে এইচএসসিতে পাসের হার ৫৪.৩৯%

নিজেকে চেয়ারম্যান ঘোষণা করতে পারেন কাদের

ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করবেন যেভাবে

নিমিষেই এনআইডি যাচাই করবে ‘পরিচয়’

মনের শক্তিতে জিপিএ-৫ পেলো পটিয়ার সাইফুদ্দিন রাফি

হজে এবার ৮০০ কোটির ওপরে আয় করবে বিমান

ধর্মীয় নেতাদের উসকানিমূলক বক্তব্য নিয়ন্ত্রণের প্রস্তাব ডিসি সম্মেলনে

ওসি খায়েরের চ্যালেঞ্জ ছিল রোহিঙ্গা, মনসুরের চ্যালেঞ্জ ইয়াবা