নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারা মালুমঘাট ডুমখালি এলাকায় মামা সাদ্দাম হোসেনের (৩০) হাতে ধর্ষিত হয়েছে ১৪ বছর বয়সী ভাগ্নি।
গত ২ জুন সংঘটিত চাঞ্চল্যকর এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে।
ভিকটিম কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ওসিসিতে চিকিৎসাধীন। এর আগে চকরিয়া উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নেয়।
ধর্ষণে অভিযুক্ত সাদ্দাম হোসেন (৩০) মালুমঘাট মিঠাছড়ি ২ নং ওয়ার্ডের খলিল আহমদের ছেলে। তিনি ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছেন।
ভিকটিমের মা অভিযোগ করেছেন, স্বামী মোঃ হোসেনের সাথে মনোমালিন্যের কারনে তিনি বান্দরবানের আলি কদমে ভাইয়ের বাড়িতে চলে যান। তার সতীনের সাথে মেয়ে থাকতো। স্বামীর বিরুদ্ধে অস্ত্র, হত্যা, ডাকাতিসহ বিভিন্ন অভিযোগ মামলা থাকায় বাড়িতে থাকেনা। সেই সুযোগে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটানো হয়েছে।
ভিকটিম জানিয়েছ, অতর্কিত বাড়িতে ঢুকে ঘরের দরজা বন্ধ করে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে মামা সাদ্দাম হোসেন। ওই সময়ের সৎ মা জান্নাতুল মাওয়া সবুজ বাড়িতে থাকলেও উদ্ধার করতে এগিয়ে যায়নি।
সে আরো জানায়, মামার হাতে পায়ে ধরলেো রেহাই দেয়নি। দীর্ঘ প্রায় দুই ঘন্টা পর মুক্তি পেয়ে পার্শ্ববর্তী একটি বাড়িতে ঢুকে পড়ে। এরপর খবর পেয়ে ভিকটিমের আসল মা উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।
ঘটনার প্রসঙ্গে চকরিয়া থানার ওসি মোঃ হাবিবুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে বলেন, বিষয়টি কেউ জানায়নি। লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •