cbn  

মো. মনজুর আলম , চকরিয়া:

সরকারি ভাবে খাদ্য অধিদপ্তর কর্তৃক বেঁধে দেয়া ধান চাল সংগ্রহের নিয়মনীতি কোনটাই মানছেন না কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলা খাদ্য বিভাগ ও চিরিংগা খাদ্য গুদামের সংলিষ্ট কর্মকর্তারা। সম্প্রতি সময় গত ২১শে মে থেকে প্রান্তিক কৃষকদের কাছ থেকে ধান এবং চকরিয়া-পেকুয়ার চাল সিন্ডিকেট মিল ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাল সংগ্রহ করে চলছেন তারা । সরকারি নিয়ম অনুযায়ী উপজেলা ধান চাল সংগ্রহ মনিটরিং কমিটি থাকলেও সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে গুদামে ধান চাল সংগ্রহ (ক্রয়) করার সময় কমিটির কোন সদস্য উপস্থিত নেই ।

সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী কেজি প্রতি ৩৫টাকা দরে চাল সংগ্রহ করার নিয়ম থাকায় আর্থিকভাবে বেশী লাভবান হচ্ছেন সিন্ডিকেট মিল ও চাল ব্যবসালীরা । অথচ সরকারি টাকায় সংগ্রহকরা এসব চাল চকরিয়া – পেকুয়া উপজেলার বর্তমান বাজার মুল্যের চেয়ে অন্তত প্রতি কেজিতে পাচঁ টাকা বেশী বলে দাবী করেছেন স্থানীয় চাল ব্যবসায়ীরা। ফলে সরকারের অনেক টাকা বেশী চলে যাচ্ছে সিন্ডিকেট চাল মিল ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাল সংগ্রহ করার কারনে। তাছাড়া মিল সিন্ডিকেটি জেলার বাহির থেকে এসব চাল অনেক আগে থেকে তাদের গুদামে মজুদ করে রেখেছিল বলে একটি সূত্র থেকেও জানা গেছে। আদ্রতা নির্ভর বলা হলেও এসব চাল সংগ্রহ কালে দেখা গেছে মাত্রাতিরক্ত সাদা দানার ছড়াছড়ি। পর্যাপ্ত বৈশিষ্টতা না থাকার কারণে সংগ্রহ করা এসব চাল যা অল্প সময়ের মধ্যে গুদামে নষ্ট হয়ে যাবার সম্ভবনাও কম নয় বলে দাবি করেছেন কিছু চাল ব্যবসায়ী ।

জানাগেছে, চলতি অর্থ বছরে চিরিংগা খাদ্য গুদামের অধিনে চকরিয়া-পেকুয়া দুটি উপজেলায় সরকারি ভাবে ধান ৭৬৭ মেট্রিক টন এবং চাল ১৩৪৩ মেট্রিক টন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে ধান চাল সংগ্রহ করার চাহিদা পত্র চিরিংগা খাদ্য গুদামে পাটিয়েছে খাদ্য অধিদপ্তর ।

জানা গেছে , চাল সংগ্রহযোগ্য সরকারি নিয়ম অনুয়ায়ী আতপ চালে সর্বোচ্চ আদ্রতা ১৪%, বড় ভাঙ্গা দানা ৮% , ছোট ভাঙ্গা দানা ৫%, ভিন্ন জাতের মিশ্রণ ৮% , বিনষ্ট . মরা, বিবর্ণ দানা ১%, বিজাতীয় পদার্থ ০.৩%, খড়িময় দানা ১% সহ উত্তম ছাঁটাইয়ের নির্দেশনা থাকা সত্তেও চিরিংগা খাদ্য গুদামে তা যথায়ত ভাবে মানা হচ্ছেনা বলে অভিযোগ উঠেছে। সরকারের বেধেঁ দেয়া এসব নিয়ম থাকার পরেও গত ২১ মে থেকে ১০ জুন পর্যন্ত সিন্ডিকেট চাল মিল ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে ৫০০ মেট্রিক টন চাউল সংগ্রহ করেছেন চিরিংগা খাদ্য গুদামের কর্মকর্তারা ।

জানতে চাইলে চিরিংগা খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি ) সুনিল দত্ত জানান, সরকারি ভাবে বেধেঁ দেয়া নিয়ম অনুযায়ী ৫জন অটো রাইস মিল মালিকদের কাছ থেকে এই পর্য্যন্ত ৫০০শত মেট্রিকটন চাল সংগ্রহ করা হয়েছে এবং চাল সংগ্রহে কোন ধরনের অনিয়ম করা হয়নি। তা ছাড়া বর্তমানে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী ধান চাল সংগ্রহ কার্যক্রম চলমান রয়েছে ।

উপজেলা ধান চাল সংগ্রহ মনিটরিং কমিটির সভাপতি ও চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বলেন , সরকারিভাবে নিয়ম অনুযায়ী ধান চাল সংগ্রহ কার্যক্রম চলমান রয়েছে এবং এ ক্ষেত্রে সরকারি নিয়মের কোন ব্যতয় ঘটলে সংশ্রিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। #

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •