cbn  

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া উপজেলা পরিষদের পুরুষ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের দু’টি পদে বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ভোট গ্রহন করা হবে। নির্বাচনে ২ জন পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আকবর খান (প্রতীক-উড়োজাহাজ), হুমায়ুন কবির হায়দার (প্রতীক-তালা), মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন প্রার্থী মেহেরুন্নিছা (প্রতীক-ফুটবল) ও হাসিনা আক্তার (প্রতীক-কলস) নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। চেয়ারম্যান পদে কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি এডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে গেজেট প্রকাশ করা হলেও আইনী জটিলতায় তিনি এখনো শপথ নিতে পারেননি। তাই চেয়ারম্যান পদে এখানে বৃহস্পতিবার নির্বাচন হচ্ছেনা। কুতুবদিয়া উপজেলায় মোট ইউনিয়ন ৬ টি, ভোট কেন্দ্র ৩৭ টি, মোট বুথ সংখ্যা ১৮৭ টি, তার মধ্যে স্থায়ী বুথ সংখ্যা ১৭৬ টি ও অস্থায়ী বুথ সংখ্যা ১১ টি। মোট ভোটার সংখ্যা ৮৪৫২৪ জন। যা জেলার ৮ টি উপজেলার মধ্যে সর্বনিম্ন। এরমধ্যে, পুরুষ ভোটার ৪৪০৬১ জন, মহিলা ভোটার ৪০৪৬৩ জন। বৃহস্পতিবার ভোট গ্রহনের জন্য প্রশাসন সার্বিক প্রস্তুতি গ্রহন করেছেন বলে কুতুবদিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান মোল্লা সিবিএন-কে জানিয়েছেন। ভোট গ্রহনের সার্বিক পরিস্থিতি তদারকি করতে কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাঃ শাজাহান আলি ৯ জুন ৪ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দিয়েছেন। তাঁরা হলেন-চকরিয়ার সহকারী কমিশনার (ভূমি) খোন্দকার মোঃ ইয়াহিয়া উদ্দিন আরাফাত, রামুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) চাই থোয়াইখলা মারমা চৌধুরী, মহেশখালীর সহকারী কমিশনার (ভূমি) অংগ্যাজাই মারমা, কুতুবদিয়ার সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুপ্রভাত চাকমা। তাঁরা ১২ জুন সকাল থেকে দায়িত্বপালন শুরু করেছেন বলে সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও কুতুবদিয়ার উপজেলা নির্বাহী অফিসার দীপক কুমার রায় সিবিএন-কে নিশ্চিত করেছেন। অন্যদিকে, কুতুবদিয়া চৌকি আদালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ রেজাউল হককে নির্বাচনে বিচারিক হাকিম নিয়োগ দেয়া হয়েছে। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ রেজাউল হক গত ১১ জুন থেকে আগামী ১৫ জুন পর্যন্ত নির্বাচনী অপরাধ আমলে নিয়ে সংক্ষিপ্ত বিচারকাজ সম্পন্ন করবেন। জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয় গত ১১ জুন জারীকৃত এক প্রজ্ঞাপন মূলে বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ভোট গ্রহনের দিন কুতুবদিয়ায় সাধারণ ছুটি ঘোষনা করেছেন। নির্বাচন উপলক্ষে ১২ জুন রাত থেকে কুতুবদিয়ায় মোটর সাইকেল সহ সকলপ্রকার যানবাহন ও নৌযান চলাচল নিষিদ্ধ ঘোষনা করা করেছেন। নির্বাচন সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীল ব্যক্তিবর্গ ও পাশপ্রাপ্ত লোকজন ছাড়া অন্যানদের চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। বুধবার ১২ জুন সকালে নির্বাচনে দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তাদের ব্রিফিং প্যারেড করা হয়েছে। ব্রিফিং প্যারেডে সকল ভয় ভীতি-চাপের উর্ধ্বে থেকে পেশাদারিত্ব, নিষ্ঠা ও সততার সাথে দায়িত্বপালন করার জন্য জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ব্রিফিং এ নির্দেশ দিয়েছেন। ব্রিফিং প্যারেডে মহেশখালী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রতন কুমার দাশ, চকরিয়া সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার কাজী মতিউল হক, কুতুবদিয়ার ইউএনও দীপক কুমার রায়, কুতুবদিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ দিদারুল ফেরদৌস সহ উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা ও দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। কুতুবদিয়া উপজেলার মোট ৩৭ টি ভোট কেন্দ্রে ব্যালট, সীল, অমোচনীয় কালি, ব্যালট বক্স সহ ভোটগ্রনের সরন্ঞ্জামাদি বেলা ২ টার মধ্যে কেন্দ্রের নিজ নিজ প্রিজাইডিং অফিসারকে সরবরাহ দেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে অধিকাংশ প্রিজাইডিং অফিসারগণ প্রয়োজনীয় নিরাপত্তারক্ষী সহ নিজ নিজ ভোটকেন্দ্রে পৌঁছে ভোট গ্রহনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে ইউএনও দীপক কুমার রায় সিবিএন-কে নিশ্চিত করেছেন। এদিকে, নির্বাচনে ৩৫০ জন পুলিশ, ৪৪৫ জন আনসার ও ১৬ জন কোষ্টগার্ড নিয়োগ দেয়া হয়েছে। ভোট গ্রহনকালে স্ট্রাইকিং ফোর্স জরুরী অবস্থা মোকাবেলার জন্য রাখা হয়েছে বলে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জামশেদুল ইসলাম সিবিএন-কে জানিয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •