একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (৪র্থ পর্ব)

– অধ্যাপক আকতার চৌধুরী

(৪র্থ পর্ব)
২৪ মে রাতে সৌদি টাইম প্রায় ১২.১০ টায় আমাদের বিমান জেদ্দার মাটি ছোঁয়ে । আগে থেকেই ভীত ছিলাম সৌদি আরবের টেম্পারেচার নিয়ে । যেখানে আমাদের দেশে ৩০ ডিগ্রির উপরে গেলেই হা-পিত্তেস, সেখানে সৌদি আরবে ৫০ ডিগ্রি হিট সাধারণ ব্যাপার । যখন বিমান থেকে নামছি তখন কিন্তু বেমালুম ভুলে গিয়েছিলাম টেম্পারেচারের ব্যাপারটা । চিন্তা একটাই , আমি কবে দেখব সেই পবিত্র ঘর। তদুপরি রাতের বেলা হওয়াতে তেমন একটা গরমের প্রভাব শরীরে লাগে নাই । তবে বাতাস যখন আসে মনে হয় কয়লার আগুনে ফ্যান চালিয়ে কাবাবে বাতাস দেয়া হচ্ছে। আমাদের দেশের মত বাতাসে শীতলতা নেই । সেদিক থেকে আল্লাহকে ধন্যবাদ জানাতে হয় , আমরা তাঁর একটা দান বেশী পেয়েছি। তবে আশ্চর্যেও ব্যাপার ৫০ ডিগ্রি টেম্পারেচারে শরীরে তেমন একটা ঘাম দেয় না । এখানেও একটা মিরাকল , আল্লাহ ব্যালেন্স করেছেন। অতিরিক্ত ঘামে মানুষ শরীরিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়ে। আর প্রচন্ড তাপেও ঘাম কম হওয়ায় এখানকার মানুষ খুব তাড়াতাড়ি দুর্বল হয়ে পড়ে না ।

বিদেশে গেলেই আমি কিছু শব্দ জেনে নেয়ার চেষ্টা করি । এখানকার ভাষা আরবী হওয়াতে কিছু কিছু শব্দের সাথে পূর্ব পরিচিত। কিন্তু আরবীতে যখন কথা বলে তখন কিছুই বুঝতে পারি না । তবে কিছু কিছু কথা বেশ মনে ধরে যায় । যেমন , ইয়াল্লা ইয়াল্লা হাজ্বী হাজ্বী । এটা শুনে যে কেউ বুঝতে পারবে । কারণ আমরাও এমন শব্দ ব্যবহারে অভ্যস্ত । যে কোন সারপ্রাইজিং কাজে যেমন বলে থাকি -ইয়া-আল্লাহ , ইয়া-মাবুদ । হাজ্বী মানে তো বলার অপেক্ষা রাখে না । বেশ খুশীই লাগছিল , সৌদিয়ান ইমিগ্রেশনের লোকজন আমাদেও মত হাজী দেখে খুশিতে আটকানা! মনে মনে তাদেরকে ধন্যবাদ দিলাম। আল্লাহর ঘরের মেহমানদের একটা আলাদা ইজ্জত বৈকি!

হাজীদের টার্মিনালটা আলাদা। জেদ্দা হজ্ব টার্মিনালে নেমে ইমিগ্রেশনের কাজ সারছি । ফাঁকে ফাঁকে মোবাইলে আত্মীয় স্বজন যারা আমাদের রিসিভ করবে তাদের সাথে কথাও বলছি। যাওয়ার আগে সদ্য ওমরাহ ফেরত  আমার এক ফুফুর কাছ থেকে সৌদিয়ান সিমটি সংগ্রহ করে নিয়েছিলাম। এতে আমাদের অবস্থা জানাতে সুবিধা হল। ইমিগ্রেশনের কাজ সেরে বাইরে আসতেই প্রথমে মোয়াল্লেমের লোকেরা পাসপোর্ট নেয়া শুরু করে দিল। পাসপোর্ট বিহীন অবস্থায় স্বাভাবিকভাবে ভয় ঢুকে যায়। তাই পাসপোর্টটা দিতে চাইলাম না। মোয়াল্লেমের লোক বুঝাল পাসপোর্ট না দিলে সমস্যা হবে। অগত্যা এজেন্সির আগে থেকে দেয়া মোয়াল্লেমের নাম,ঠিকানা , মোবাইল নম্বর ও নিজেদের নাম ঠিকানা পাসপোর্ট নম্বর সম্বলিত কার্ডখানা গলায় ঝুলিয়ে নিলাম। আগে থেকে পাসপোর্ট ও বিমানের টিকেটের ফটোকপি বুকে বাধা ব্যাগে জমা ছিল। তাই যারা নতুন যাবেন তাদেরকে  বলব, যে কোন অবস্থায় রাস্তাঘাটে চলাফেরায় অরিজিনাল পাসপোর্ট কাছে না থাকলে এই কার্ড , হাত ব্যান্ড ও ফটোকপি সার্বক্ষণিক সঙ্গে রাখা জরুরী। নচেৎ চেকপোস্টে আটকে যেতে পারেন। অথবা আপনি হারিয়ে গেলে , কোন বিপদে পড়লে এ কার্ড দেখেই আপনাকে সনাক্ত করে সহযোগিতা করবে।

টার্মিনালে অযু ,গোছল , বাথরুম সারার  যথেষ্ট ভাল ব্যবস্থাপনা ও নামাজের পর্যাপ্ত জায়গা আছে । আমাদের বিমান সৌদি টাইম রাত ১২.১০টায় নামলেও ইমিগ্রেশনের কাজ শেষ করতে করতে রাত প্রায় ১টা বেজে যায় । গাড়ীতে উঠার আগে ২টা ফ্রি সিম ধরিয়ে দেয় মোবাইলি কোম্পানী । ফ্রি সিমে টক টাইম না থাকায় একটা সিমে প্রায় ২০ দিনের জন্য একটা প্যাকেজ চাইলাম। মোবাইল ওয়ালা  ৩৫০ রিয়েলের একটা প্যাকেটের কথা বললেন । এ টাকায় আনলিমিটেট টক টাইম ও ডাটা পাওয়া যাবে। আমি তাড়াতাড়ি মোবাইল ক্যালকুলেটরে হিসেবে করা শুরু করলাম । ঢাকা থেকে রিয়াল কিনেছিলাম ২২.৬২ টাকায় । সে হিসেবে ৭৯১২ টাকা হয় । আমার চক্ষু চড়ক গাছ, এত টাকায় প্যাকেজ নেব!

মক্কায় দেখে শুনে প্যাকেজ নেব চিন্তা করে মোয়াল্লেমের লোকের দেখিয়ে দেয়া ২২৪ নম্বর গাড়িতে উঠে বসলাম। প্রায় ১ ঘন্টা পর সৌদিয়ান ড্রাইভার এসে কী জানি বলার পর আবার শুরু সেই মধূর সম্ভাষণ – ইয়াল্লা ইয়াল্লা , হাজী হাজী ।

আমার পাশে বসা নাসির ভাইকে জিজ্ঞেস করে বসলাম – ‘ইয়াল্লা ইয়াল্লা , হাজী হাজী’ মানে কী । আরবী এক্সপার্ট নাসির ভাই যা বললেন তাতে আমার মাথা ধরে যাওয়ার অবস্থা । তার মানে – এ গাড়ি আমাদের জন্য না । তাড়াতাড়ি নেমে যেতে বলছে। ইয়াল্লা ইয়াল্লা মানে – জলদি জলদি ! ততক্ষনে এত কষ্ট করে গাড়ির ছাদে উঠানো ২টা ভারি লাগেজ নামানোর কাছে ব্যস্ত হয়ে পড়েছি।

আর মনে মনে ‘ইয়াল্লা ইয়াল্লা’র মানে না বোঝায় নিজের মুন্ডুপাত করছি !

(বি:দ্র: ইয়াল্লা ইয়াল্লা মানে ইয়া-আল্লাহ বা হে আল্লাহ নয় । বাংলায় তাড়াতাড়ি বা  জলদি জলদিকে বোঝায়।)

চলবে….

একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (১ম পর্ব)

একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (২য় পর্ব)

একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (৩য় পর্ব)

একটি সাদা কাফনের সফর নামা – (৫ম পর্ব)

সর্বশেষ সংবাদ

কক্সবাজারে বিশেষ সাইরেন বাজিয়ে ‘স্বঘোষিত ভিআইপি’দের তৎপরতা বেড়েছে

কোস্ট গার্ড কর্তৃক ৬ হাজার পিস ইয়াবা জব্দ

রামুতে বন্য হাতির আক্রমণে এক বৃদ্ধা নিহত

কীর্তি মানের মৃত্যু নেই…

স্ত্রীর সাথে যৌন মিলনের ছবি ফেসবুকে দিলেন পুলিশ সদস্য

দেখুন আলিম দারের যে আউট নিয়ে বিশ্বজুড়ে সমালোচনার ঝড়

বগুড়া-৬ আসনে বিএনপি প্রার্থী সিরাজ নির্বাচিত

প্রসূতি মায়ের অপ্রয়োজনীয় সিজার বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে রিট

এড. আমজাদের তৃতীয় নামাজে জানাজায় শোকার্ত জনতার ঢল, দাফন সম্পন্ন,

টেকনাফে ৪টি অস্ত্র ও ১০ রাউন্ড গুলিসহ অস্ত্রপাচারকারী আটক

আইনজীবী সমিতির পুরাতন ভবনের দেয়াল পড়ে এক শ্রমিক নিহত

কক্সবাজারের সাংবাদিকতার যতকথা (পর্ব-অষ্টম)

টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৩ মানবপাচারকারী নিহত

‘জঙ্গিরা নিজেদের স্বার্থে তরুণদের বেহেশতের স্বপ্ন দেখায়’

চট্টগ্রামে পুলিশের স্ত্রী নারী কনস্টেলের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মালুমঘাট স্টেডিয়ামে আন্ত:স্কুল ফুটবল টুর্নামেন্ট উদ্বোধন করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান সাঈদী

তামাক চাষ বন্ধে সরকারকে আহবান জানাচ্ছি

ভাইস চেয়ারম্যান ছুট্টোকে প্যানেল চেয়ারম্যান পদে ১৫ চেয়ারম্যানের সমর্থন

তীব্র ভাঙ্গনের মুখে বাঁকখালী নদী আতংকে হাজারো মানুষ

মহেশখালীর মাতারবাড়ীতে ইয়াবাসহ মহিলা গ্রেপ্তার