চাঁদ দেখতে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন যন্ত্র কিনবে ধর্ম মন্ত্রণালয়

ধর্ম ডেস্ক:
পবিত্র রমজান ও ঈদের সঠিক তারিখ নির্ধারণে চাঁদ দেখার উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন উন্নত প্রযুক্তির থিওডোলাইট জাতীয় যন্ত্র কেনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। প্রতিটি থিওডোলাইট জাতীয় যন্ত্রের দাম পড়বে ৫০ লাখ টাকা।

গত সোমবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে মন্ত্রণালয়ের সচিব আনিছুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

প্রসঙ্গত, এ বছর ঈদ-উল-ফিতর উদযাপনে দেখা দেয় বিপত্তি। অনেক আলেম-ওলামা ও সরকারের উচ্চ দায়িত্বশীলদের সমন্বয়ে গঠিত বৈঠক থেকে জানানো হয়, দেশের কোথাও চাঁদ দেখা যায়নি। তাই ঈদ হবে ৬ জুন বৃহস্পতিবার। রোজা ৩০ দিন পূর্ণ করতে তারাবিহ নামাজ পড়ার পর রাত ১১টায় ঘোষণা আসে যে, চাঁদ দেখা গেছে। তাই ঈদ হবে ৫ জুন। অবশেষে ৫ জুন পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর পালিত হয়।

সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ চাঁদ দেখা নিয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন তোলা হলে সচিব কমিটিকে বলেন, ‘৪০-৪৫ জন আলেমের পরামর্শক্রমে সিদ্ধান্ত হয়েছে। প্রথমবার দেয়া ঘোষণার আগে দেশের কোথাও চাঁদ দেখা যায়নি। তখন আলেম-ওলামারা মতামত দেন যে, সৌদি আরবে চাঁদ দেখা যাওয়ার সঙ্গে এ দেশের ঈদের কোনো সম্পর্ক নেই। দেশে চাঁদ দেখা যেতে হবে। এ কারণে রোজা রাখার প্রথম ঘোষণা আসে। পরবর্তী সময়ে ধর্মীয় বিধান অনুযায়ী বিশ্বাসযোগ্য ব্যক্তি চাঁদ দেখতে পেয়েছেন। এ কারণে চাঁদ দেখা যাওয়ার ঘোষণা দেয়া হয়।’

আবার চাঁদ দেখতে উন্নত প্রযুক্তির যন্ত্র কেনার ব্যাপারেও বৈঠকে প্রশ্ন ওঠে। তখন ধর্ম সচিব বৈঠকে জানান, ‘চাঁদ দেখার জন্য থিওডোলাইট জাতীয় যন্ত্র কেনা হবে। প্রতিটি যন্ত্রের দাম পড়বে ৫০ লাখ টাকার মতো।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি রুহুল আমীন মাদানী জানান, তারা মন্ত্রণালয়কে সতর্ক করে দিয়েছেন যাতে ভবিষ্যতে এ ধরনের বিতর্ক তৈরি না হয়। সংসদীয় কমিটি মন্ত্রণালয়কে ভবিষ্যতে উন্নত প্রযুক্তির টেলিস্কোপ ব্যবহার করার প্রস্তাব দিয়েছে। চাঁদ দেখার টেলিস্কোপ থাকলেও তা আধুনিক নয়। মন্ত্রণালয় বলেছে, তারা চাঁদ দেখার জন্য আধুনিক যন্ত্র কিনবে।

চাঁদ দেখতে ধর্ম মন্ত্রণালয় কর্তৃক উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন যন্ত্র কেনা হলে রমজানের রোজা ও ঈদ পালনে দ্বিধামুক্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে বেশি। আশা করা যায়, সঠিক সময়ে মানুষ রোজা, ঈদ পালন করতে পারবে।

সর্বশেষ সংবাদ

রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট তৈরীতে সহায়তাকারীদের আইনের আওতায় আনা হবে : ডিআইজি

আ’লীগের প্রতিনিধি সভায় সফল করার আহবান জেলা ছাত্রলীগের

ভারুয়াখালীতে পরকিয়ার জেরে স্ত্রীকে হত্যা

কাজ না করেই বিল নেয়ার দিন শেষ: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মাদক ও ইভটিজিংয়ের বিরুদ্ধে টেকনাফে কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সভা

পাসপোর্ট করতে গিয়ে কথিত পিতাসহ রোহিঙ্গা নারী আটক

ছাত্রলীগের পর যুবলীগকে ধরেছি: প্রধানমন্ত্রী

যুবলীগ নেতা খালেদ মাহমুদ রিমান্ডে

চট্টগ্রাম রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ এএসআই নির্বাচিত হলেন রাশেদ খাঁন

নারী ও কন্যা শিশুর প্রতি সহিংসতারোধে যুব সমাবেশ

বাড়িভাড়া নিয়ন্ত্রণ আইন–১৯৯১ ও কক্সবাজারের প্রেক্ষাপট

সময়ের সর্বোত্তম কাজ হচ্ছে বৃক্ষরোপন- জেলা প্রশাসক

কোস্টগার্ডের বিরুদ্ধে বোট মালিক সমিতির বিক্ষোভ 

ইসলামপুরের হাফেজ বেদারের ইন্তেকাল

পেকুয়ায় পুলিশের অভিযানে প্রতারণা মামলার আসামী গ্রেফতার

বদরখালী জেনারেল হাসপাতালে দুর্বৃত্তের হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট

১১তম গ্রেডের দাবি: লোহাগাড়ায় প্রাথমিক শিক্ষকদের মানববন্ধন

খুটাখালী পুরাতন ইউপি ভবন যেন ধ্বংসস্তূপ!

বালক কক্সবাজার পৌরসভা ও বালিকা’য় মহেশখালী ফাইনালে

রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের জন্য বড় ধরনের বোঝা : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা