cbn  

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু,নাইক্ষ্যংছড়ি:
কক্সবাজারে রামু উপজেলার গর্জনিয়ায় চাঁদার দাবীতে স্থানীয় একইউপি মেম্বার কর্তৃক ডিস সংযোগ কেটে দেওয়ায় অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে এলাকায় চলছে উত্তেজনা যে কোন মুহুর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা করছে এলাকাবাসী।

ডিস লাইনের মালিক সাইফুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, গর্জনিয়া ইউপির ৭নং ওয়ার্ডের বর্তমান মেম্বার মনিরুল আলম আমার কাছ থেকে প্রথমে এককালীন ৫০ হাজার টাকা এবং প্রতি মাসে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করেন। আমি চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় গত ২০ এপ্রিল ইউনুস শিকদারের বাড়ির সামনের ডিস লাইন বিচ্ছিন্ন করে দেয়। সোমবার (৯ জুন) দাবী কৃত চাঁদা না দেওয়ায় রাতে আমার ডিসের লাইন কেটে দেয়। এছাড়াও উক্ত মেম্বার আমাকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধুমকি দেয়। এক পর্যায়ে মেম্বার রাত্রে দেখে নেওয়ার কথা বলায় আমি মুমিনের দোকানে ডিসের লাইন সংযোগ না দিয়ে চলে আসি। ঐদিন রাত আনুমানিক তিনটারর দিকে হাফেজ আহমদের বাড়ির সামনে ডিস এবং ইন্টারনেটের লাইনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়।
এ ব্যাপারে আমি আমার ছোট ভাই আতিকুর রহমান, গর্জনিয়া যুবলীগের সভাপতি হাফেজ আহমদ ও ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমানকে এ ঘটনা মুঠোফোনে বলায় সে আমাকে পুনরায় হুমকি দেয়।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে মেম্বার মনিরুল আলম চাঁদা দাবি করার কথা অস্বীকার করে বলেন আমি বাড়ীতে ডিস লাইনের সংযোগ দেওয়ার জন্য ডিস মালিকদের খুঁজছিলাম।

সরেজমিনে পরিদর্শন করতে গিয়ে ঘটনা স্থলে উপস্থিত যুবলীগের সভাপতি হাফিজ আহমদ ও এলাকার অনেকে বলেন ৭ নম্বর ওয়ার্ডে মিটার লাগানোর সময় প্রতিটা বাড়ি থেকে মেম্বারকে টাকা দিতে হবে। যদি টাকা দিতে না পারেন তাহলে এখানে ডিসের লাইন এবং বিদ্যুৎ মিটার লাগানো যাবে না। কারণ জানতে চাইলে মেম্বার মনিরুল আলম বলেন আমি কষ্ট করে বিদ্যুৎ লাইন এখানে এনেছি আমাকে অবশ্যই টাকা দিতে হবে। এরকম সন্ত্রাস চাঁদাবাজ মেম্বার এর কাছ থেকে আমরা ভালো কিছু আশা করতে পারি না। স্থানীয়দের দাবী মেম্বার মনিরুল আলম কে আইনের আওতায় এনে উপযুক্ত শাস্তি দেওয়ার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •