সংবাদদাতাঃ

ঈদকে নানা আয়োজনে উদযাপন করেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের ঈদে থাকে না কোনো উদযাপনের ছোঁয়া। এবার এমন কিছু শিশুদের ঈদের আনন্দ দিতে উদ্যোগ নেয়া হয় ব্যতিক্রমী অনুষ্ঠানের। ঈদের দিন বিকালে কক্সবাজার সৈকতের লাবনী পয়েন্টে ‘আমাদের ঈদ আনন্দ’ শিরোনামে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
শৈশবের ডানা মেলে দুরন্তপনায় মাতোয়ারা শতাধিক সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের নিয়ে হয় এ আয়োজন। হতদরিদ্র্য এসব শিশুদের একটুখানি ঈদের আনন্দ দিতে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘মার্কি ফাউন্ডেশন’ এ আয়োজন করে। আয়োজনে সহযোগিতা করেছে টুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার রিজিয়ন।
নতুন জামা গায়ে দৌড় প্রতিযোগিতা, মোরগ লড়াই, চেয়ার চক্র, পাখি উড়ে প্রতিযোগিতা, গান, নাচ, কথামালা, বীচ বাইকে সমুদ্র ঘোরা এসবের মধ্য দিয়ে ঈদ উদযাপন করেছে এসব শিশুরা। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন টুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার রিজিয়নের পুলিশ সুপার মো. জিল্লুর রহমান।
পুলিশ সুপার মো. জিল্লুর রহমান বলেন- সামান্য চেষ্টা করলেই ওদের জীবনে এনে দেওয়া যায় এক চিলতে সুখ। ঈদের আনন্দ তাদের সাথে শেয়ার করে আমরা ঈদ উদযাপনের আনন্দ খুঁজেছি। সেই পরিপূর্ণতার অনুভূতিটা আমরা অনুভব করলাম সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সংগঠন নতুন জীবন’র বাচ্চাদের আনন্দ দেখে। এসব বাচ্চাদের সময় দিয়ে আমরা উপহার পেলাম তাদের প্রাণচঞ্চল হাসি। সুবিধাবঞ্চিত কাউকে সামান্য সুখ পৌঁছে দেওয়ার এই অনুভূতি অমূল্য।
মার্কি ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী ইব্রাহিম খলিল বলেন – ঈদ আনন্দ এসব সুবিধাবঞ্চিতদের দেয়ার মাঝেই উদযাপনের সুখ খুঁজেছেন মার্কি ফাউন্ডেশনের সদস্যরা। যে শিশুরা পেটের তাড়নায় দিনভর শহরের অলিতে-গলিতে ঘুরে, এক দিনের ঈদ আনন্দ হাসি আর গানে তারাও ভেসেছে উদযাপনের জোয়ারে। এ ধরণের আয়োজন প্রতিবছর হবে বলেও জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •