মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

টেকনাফ মডেল থানা পুলিশের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে মফিজুর রহমান মুফিজ (৪০) নামে একজন তালিকাভুক্ত ইয়াবা কারবারী নিহত হয়েছে। রোববার (৩ জুন) রাত ১ টার দিকে পুলিশের হাতে আগে থেকেই গ্রেপ্তার হওয়া মফিজুর রহমানের স্বীকারোক্তি মতে টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্ষ্যং এলাকায় অবৈধ অস্ত্র ও ইয়াবা উদ্ধার করতে গেলে ঐ স্থানে আগে থেকে উৎপেতে থাকা মুফিজের সশস্ত্র সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে এলোপাথাড়ি গুলি ছুড়ে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুড়ে। এতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে মুফিজ গুরুতর আহত এবং হোয়াক্ষ্যং পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই ওয়াহেদ, কনস্টেবল মনির হোসেন ও রুবেল মিয় আহত হন। পরে ঘটনাস্থল তল্লাশি করে অবৈধ অস্ত্র, কার্তুজ ও ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। টেকনাফ পুলিশের দেয়া তথ্যানুযায়ী, ইয়াবাবাজ আহত মুফিজ ও ৩ জন পুলিশকে চিকিৎসার জন্য টেকনাফ উপজেলা হাসপাতালে নেয়া হলে মুফিজের অবস্থা গুরতর হওয়ায় তাকে চিকিৎসকগণ কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে রেফার করেন এবং আহত পুলিশ ত্রয়কে টেকনাফ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। মুফিজকে জেলা সদর হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সেখানে মৃত ঘোষনা করেন। মুফিজের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। টেকনাফ পুলিশের দাবী অনুযায়ী, নিহত মুফিজ চিহ্নিত ও তালিকাভুক্ত একজন ইয়াবাবাজ। নিহত মুফিজ হোয়াক্ষ্যং ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক মেম্বার ও উলুবনিয়া কাটাখালী এলাকার বাসিন্দা গোলাম আকবরের পুত্র। টেকনাফ মডেল থানা কর্তৃপক্ষ সিবিএন-কে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। নিহত ইয়াবাবাজ মুফিজ একাধিক মামলার পলাতক আসামী ও রোববারের ঘটনার ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে টেকনাফ মডেল থানা সুত্রে জানা গেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •