ইমাম খাইর, সিবিএনঃ 
ওষুধের প্যাকেটের গায়ে লেখা ৭০ টাকা। বিক্রি করা হয়েছে ৬০০ টাকা। তাও কৌশলে, আসল মূল্য লুকিয়ে!
রবিবার (২৬ মে) দিবাগত রাত সাড়ে ৮ টার কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের উত্তর গেটের ঠিক সোজাসুজি অবস্থিত ডিজিটাল হাসপাতালের ফার্মেসীতে এমন ঘটনাটি ঘটেছে।
পরে অবস্থা বেগতিক দেখে অতিরিক্ত আদায় করা টাকা ফেরত দিতে বাধ্য হয় ফার্মেসির সংশ্লিষ্টরা। একই অভিযোগ রয়েছে শহরের অনেক ফার্মেসির বিরুদ্ধে।
ভুক্তভোগী লক্ষণ দে (রনি) অভিযোগ করে জানান, সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মহেশখালী পৌরসভার আদিনাথ ঠাকুর তলা এলাকার অমর দের স্ত্রী রত্না রানী দের জন্য ডিজিটাল ফার্মেসিতে ওষুধ কিনতে যান। এক প্যাকেট ওষুধের মূল্য নেয়া হয় ৬০০ টাকা। ব্যবহারের পর ফেলে দেয়া প্যাকেটির গায়ে দেখেন মূল্য ৭০ টাকা। দেখে রীতিমতো ‘থ’ বনে যান।
তাৎক্ষণিক তিনি বন্ধু শুভ দাসসহ ফার্মেসিতে গিয়ে অতিরিক্ত আদায় করা টাকা ফেরত চান। কিন্তু ফার্মেসিওয়ালা তাতে রাজি নয়। উল্টো বাড়াবাড়ি শুরু করে।
লক্ষণ দে (রনি) জানান, টাকা ফেরত চাইলে বাড়াবাড়ি করায় ৯৯৯ নাম্বারে কল দেন। নির্দেশনা মোতাবেক কাজ করেন। কিছু ডকুমেন্ট সৃষ্টি করেন। ইত্যবসরে দোকানদার তা বুঝতে পেরে অতিরিক্ত নেয়া টাকা ফেরত দিতে বাধ্য হয়।
এদিকে, রোগীর স্বজনদের অভিযোগের ভিত্তিতে তাৎক্ষণিক সদর মডেল থানার একদল পুলিশ ফার্মেসিতে পৌঁছে। থানার এসআই প্রদীপ কুমার বিস্তারিত জেনে কর্তৃপক্ষকে সোমবার থানার হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন বলে ভুক্তভোগীরা জানিয়েছে।
রোগীর স্বজনদের দাবী, কক্সবাজার সদর হাসপাতালের কাছে হওয়ায় ফার্মেসীগুলো তাদের ইচ্ছে মতো দাম আদায় করে। প্রতারিত হয় সহজ সরল মানুষগুলো। গলাকাটা এসব ফার্মেসির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা চান ভুক্তভোগীরা।

  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •