ইমাম খাইর, সিবিএনঃ
কক্সবাজার জেলায় ১৪৪০ হিজরী সনের (২০১৯ সাল) সদকাতুল ফিতরের হার জনপ্রতি সর্বোচ্চ ১০৫৬ টাকা এবং সর্বনিম্ন ৬৪ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (১৬ মে) রাতে কক্সবাজার ইমাম পরিষদের ফিতরা নির্ধারণ সংক্রান্ত এক সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
সভায় সভাপতিত্ব করেন কক্সবাজার ইমাম পরিষদের সভাপতি ও কক্সবাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা মুফতি সোলাইমান কাসেমী।
ইসলামি শরিয়াহ মতে- আটা, খেজুর, কিশমিশ, পনির ও যব ইত্যাদি পণ্যগুলোর যেকোনও একটি দিয়ে ফিতরা প্রদান করা যায়।
আটা দিয়ে ফিতরা আদায় করলে অর্ধ সা’ বা ১ কেজি ৬৫০ গ্রাম বা এর সর্বোচ্চ বাজার মূল্য, যব দিয়ে আদায় করলে এক সা’ বা ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম বা এর সর্বোচ্চ বাজার মূল্য, কিশমিশ দিয়ে আদায় করলে এক সা’ বা ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম বা এর সর্বোচ্চ বাজার মূল্য, খেজুর দিয়ে আদায় করলে এক সা’ বা ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম বা এর সর্বোচ্চ বাজার মূল্য ও পনির দিয়ে আদায় করলে এক সা’ বা ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম বা এর সর্বোচ্চ বাজার মূল্য ফিতরা দিতে হবে।
মুসলমানরা নিজ নিজ সামর্থ্য অনুযায়ী উপরোক্ত পণ্যগুলোর যেকোনও একটি পণ্য বা এর বাজার মূল্য দিয়ে সাদাকাতুল ফিতর আদায় করতে পারবেন।
বৈঠকে আটা, যব, খেজুর, কিশমিশ ও পনিরের সর্বোচ্চ বাজার মূল্যের ভিত্তিতে এই ফিতরা নির্ধারণ করা হয়েছে।
ফিতরা নির্ধানী ওই সভায় উপস্থিত ছিলেন- কক্সবাজার বিমানবন্দর জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আতাউল করিম, কক্সবাজার বদর মোকাম জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা হাফেজ এমদাদুল্লাহ, লালদিঘির পূর্বপাড় বায়তুর রহমান জামে মসজিদের খতিব মাওলানা ক্বারী আতাউল্লাহ গনি, কক্সবাজার বায়তুল মোয়াজ্জেম জামে মসজিদের খতিব মাওলানা নুরুল মোস্তফা প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •