cbn  

এম আবুহেনা সাগর, ঈদগাঁও:

কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁওতে চলতি রমজান মাসকে ঘিরে চড়া দামে বিক্রি করছে পাকা কলা। এই নিয়ে রোজাদারসহ সাধারন ক্রেতাদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। ১৩ মে পুরো বাজার এলাকা ঘুরে বেশ কটি দোকানে জোড়া প্রতি ৩০/৫০ টাকায় বিক্রি করার চিত্র চোখে পড়ে।

তবে এক ক্রেতা জানান, রমজানের পূর্বে কলার ডজন ছিল ৬০ থেকে ৭০ টাকা। দু:খজনক হলে ও সত্য যে, সাত রোজা পার হতে না হতেই কলার দাম বেড়ে তিনগুনে পরিনত হয়েছে। জোড়া প্রতি এখন কলা বেচাবিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকার উপরে।

ঈদগাঁওর পাইপ বাজার সংলগ্ন কলা বিক্রেতা আবুল কালাম তার দোকানে কলা জোড়া প্রতি ৪০টাকা বিক্রি করছে। তবে কিছু কলা ৩০টাকা হিসেবে বেচাবিক্রি করছে।

অন্যদিকে নিউ মার্কেটস্থ হাসপাতালের নিচে পান দোকানে কলা বিক্রি করছে জোড়া ৫০ টাকায়।  কমদাম হলে দোকানদারেরা কথাও বলছেনা। নানা সময়ে কলা ক্রেতাবিক্রেতার মাঝে দ্বিগুন দামে বেচাকেনাকে কেন্দ্র করে তর্কাতর্কিও হয়ে থাকে। পবিত্র রমজান মাসে সেহেরীর সময় কলা খেতে হচ্ছে করে রোজাদারেরা। দামের কারনে খেতে পারছেনা কোনভাবেই।

সচেতন মহলের মতে,জেলা সদরের ব্যস্তবহুল বানিজ্যিক উপশহর ঈদগাঁও বাজারে নিয়মনীতি বলতেই কিছুই নেই। যেনতেন বিকিকিনিসহ সবর্ত্রই অনিয়ম। এসবের দেখার যেন কেউ নেই।

তবে এসব বিষয়ে বাজারের দায়িত্বশীলরা নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করায় চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে সাধারন ক্রেতাদের মাঝে।

ফকিরা বাজার বাস্তহারা সমবায় সমিতির সভাপতি এবং ঈদগাঁও বাজারের ব্যবসায়ী নুরুল আলম কবিরাজ জানিয়েছেন, এ বছরের মত কলার দাম জন্মের পর থেকে শুনিনি। মনগড়া ব্যবসাসহ তিনগুন দাম হাতিয়ে নিচ্ছে ব্যবসায়ীরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •