ডেস্ক নিউজ:

রাজধানীর খিলক্ষেত থেকে ২৪ জন রোহিঙ্গা নারীসহ ২৬ জনকে আটক করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। শুক্রবার (১০ মে) সকালে খিলক্ষেত মধ্যপাড়া এলাকার কোহিনুর ভিলা নামে একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

আটক ২৪ রোহিঙ্গা নারী ছাড়া বাকি দুইজনের মধ্যে একজন দালাল ও অন্যজন কোহিনুর ভিলার মালিকের ছেলে। ডিবি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আটক রোহিঙ্গা নারীদের মালয়েশিয়ায় পাঠানোর প্রস্তুতি চলছিল।

ডিবির উপ-কমিশনার (ডিবি পশ্চিম) মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান বলেন, ‘রোহিঙ্গা নারীদের নামে বাংলাদেশি পাসপোর্ট তৈরি করে তাদের মালয়েশিয়ায় পাঠানোর প্রস্তুতি চলছিল। আমরা তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করছি। তারা কীভাবে পাসপোর্ট সংগ্রহ করলো সেটা জানার চেষ্টা চলছে। পাশাপাশি তাদের যারা সহযোগিতা করেছে তাদের শনাক্তের চেষ্টা করা হচ্ছে।’

ডিবি সূত্র জানায়, কোহিনুর ভিলা থেকে বাংলাদেশি ৫৬টি পাসপোর্টও উদ্ধার হয়েছে। এ ঘটনায় রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার অভিযোগে বাড়ির মালিকের ছেলে কাজল ও আইয়ুব নামে এক দালালকে আটক করেছে পুলিশ।

ডিবি সূত্র জানিয়েছে, এক সপ্তাহ আগে ওই ২৪ রোহিঙ্গা নারীকে কক্সবাজার ক্যাম্প থেকে ঢাকায় এনে খিলক্ষেতের একটি তিনতলা বাড়িতে রাখা হয়। বিমানবন্দরের কাছাকাছি হওয়ায় এই বাড়িটিই বেছে নিয়েছিল তারা। একটি সংঘবদ্ধ দালাল চক্র ওই রোহিঙ্গা নারীদের এখানে এনে রেখেছিল। মালয়েশিয়া পাঠানোর আগে এই বাসাতে তাদের বাংলা ভাষা শেখানোর চেষ্টা চলছিল।

ডিবির একজন কর্মকর্তা জানান, রোহিঙ্গাদের চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে বিদেশে পাঠানো হচ্ছিল। তবে সত্যিই চাকরির উদ্দেশ্য নাকি পাচার বা বিক্রি করা হচ্ছিল তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গণহত্যা ও নির্যাতনের মুখে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর মাস থেকে মিয়ানমার থেকে প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে এসে বাংলাদেশের কক্সবাজারে আশ্রয় নিয়েছে । এর আগেও এমন অনেক রোহিঙ্গা বাংলাদেশি পাসপোর্ট নিয়ে বিদেশে যাওয়ার সময় গ্রেফতার হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •