cbn  

এম.মনছুর আলম,চকরিয়া (কক্সবাজার) :

কক্সবাজারের চকরিয়ায় মাদ্রাসা পড়ুয়া সপ্তম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে অপহরণের ৩৬ ঘন্টা পর মহেশখালী উপজেলার শাপলাপুর এলাকা থেকে বুধবার রাত ২টার দিকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ মোহাম্মদ সজিব (২২) নামের এক বখাটে যুবককে গ্রেফতার করেছে। গ্রেপ্তারকৃত যুবক উপকূলীয় বদরখালী ইউনিয়নস্থ ৩নম্বর ব্লকের ৪নম্বর ওয়ার্ডের খালকাঁচা পাড়া এলাকার মোহাম্মদ হাসান আলীর ছেলে। গত ৬ মে বিকাল ২টার দিকে মাদ্রাসা থেকে বাড়ি ফেরার পথে উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের দক্ষিণ পাশে ছৈনাম্মার ঘোনা সড়কে ওই ছাত্রী অপহৃত হয়। এ ঘটনায় অপহৃত ছাত্রীর মা বাদী হয়ে বুধবার বিকালে থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলা সূত্রে ও থানা পুলিশ জানায়, উপজেলার উপকূলীয় বদরখালী ইউনিয়নের খালকাঁচা পাড়া এলাকার মোহাম্মদ সজিব নামের এক বখাটে যুবক কিছুদিন পূর্বে বিএমচর ইউনিয়নের ছৈনাম্মার ঘোনা এলাকায় তার নিকট আত্বীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যাই। হঠাৎ একদিন অপহৃত ছাত্রীকে মাদ্রাসায় যাওয়ার পথে বখাটে যুবক দেখে তার আত্বীয়ের মাধ্যমে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। ছাত্রীর মা তার মেয়ে অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় মেয়ের বিয়ে দিতে অনীহা প্রকাশ করে। পরে অভিযুক্ত বখাটে যুবক বিভিন্ন সময় মাদ্রাসায় আসা-যাওয়ার পথে ওই ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করতেন। এ ঘটনায় ছাত্রীর পরিবার বখাটে যুবককে তাগাদা দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে গত ৬ মে বিকাল ২টার দিকে যুবক সজিবসহ তিন-চারজন সহপাঠী নিয়ে মাদ্রাসা থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে ওই ছাত্রীকে অপহরণ করে। অনেক জায়গায় খোঁজাখুঁজির পরও ওই ছাত্রীর খোঁজ না মেলায় মেয়েটির মা বাদী হয়ে চকরিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও মাতামুহুরী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) অরুন কান্তি চাকমা বলেন, অপহৃত ছাত্রীর পরিবারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: হাবিবুর রহমানের নির্দেশনানুযায়ী তথ্য প্রযুক্তির সাহায্যে অপহরণকারীদের অবস্থান শনাক্তের পর মহেশখালী শাপলাপুর এলাকার একটি বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। অভিযানের সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালানোর সময় অপহরণকারী চক্রের মূলহোতা সজিবকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে অপহৃত ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: হাবিবুর রহমান কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অপহৃত ছাত্রীর ঘটনায় জড়িত অভিযুক্ত আসামীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। আজ বৃহস্পতিবার ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য উদ্ধার হওয়া অপহৃত ছাত্রীকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পরে চকরিয়া জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক অপহরণের শিকার ওই ছাত্রীর জবানবন্দি গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।##

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •