এম. জিয়াবুল হক, চকরিয়া:

চকরিয়া উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়নের রামপুর স্টেশনের অদুরে অবস্থিত মাতামুহুরী দাখিল মাদরাসার বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরষ্কার বিতরণী এবং অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। মাদরাসা প্রাঙ্গনে সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হাজি মোজাহের আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন চকরিয়া-পেকুয়া (কক্সবাজার-১) আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম।

মাদারাসার অধ্যক্ষের স্বাগত বক্তব্যের মধ্যদিয়ে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাহারবিল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মহসিন বাবুল, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহনেওয়াজ তালুকদার, আওয়ামীলীগ নেতা মোহাম্মদ মুছা, মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হুমায়ুন কবির চৌধুরী প্রমুখ। এছাড়াও অনুষ্ঠানে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ, মাদারাসা কমিটির সকল সদস্য, শিক্ষকমন্ডলী, অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও এলাকার সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে আলহাজ জাফর আলম এমপি বলেছেন, চকরিয়া পেকুয়া জনপদে উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখার পাশপাশি জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের আমলে দুই উপজেলার প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে (মাধ্যমিক ও দ্বীনি প্রতিষ্ঠান মাদরাসা) উন্নয়নের মাধ্যমে ঢেলে সাজানো হচ্ছে। আগামীতেও সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রমের আওতায় চকরিয়া-পেকুয়া উপজেলার প্রতিটি সেক্টরে উন্নয়নের ক্ষেত্রে বিদ্যালয়ের পাশাপাশি দ্বীনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মাদরাসা গুলোতেও সমান অগ্রাধিকার নিশ্চিত করা হবে।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের সফল প্রধানমন্ত্রী একজন শিক্ষাবান্ধব মানুষ। তিনি বিশেষ নজরদারিতে দেশের শিক্ষাখাতের অগ্রগতি তরান্বিত হচ্ছে। তার প্রমাণ দেশব্যাপী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলোতে অবকাঠামো থেকে শুরু করে সব ধরণের উন্নয়ন। আছে শিক্ষা প্রসারের পরিকল্পিত কর্মসুচি। এরই আলোকে বর্তমান সরকার বছরের প্রথমদিন শিক্ষার্থীরা নতুন পাঠ্যবই পাচ্ছে। লেখাপড়া করতে সব ধরণের উপবৃত্তি সুবিধা পাচ্ছে। মেধাবীদের সরকারি চাকুরী নিশ্চিত করা হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের সুন্দর পরিবেশে লেখাপড়া নিশ্চিতে কাজ করছে সরকার।

জাফর আলম এমপি আরও বলেন, শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার মান্নোয়ন নিশ্চিতকল্পে চকরিয়া-পেকুয়া উপজেলার সবশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সাজানো হবে। এছাড়া মহান জাতীয় সংসদে দাবি জানাবো: আগামী পাঁচবছরের মধ্যে চকরিয়া-পেকুয়া উপজেলার অনেক প্রাচীণ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে সরকারি করণের আওতায় আনতে। আমি চাই লেখাপড়ার মাধ্যমে নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদেরকে সুনাগরিক হিসেবে তৈরী করতে হবে। সেইজন্য অভিভাবক ও শিক্ষক মন্ডলীকে সজাগ ভুমিকা পালন করতে হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •