সংবাদদাতা:
চকরিয়ায় রোগীদের প্রেসক্রিপশন হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে এক্স-রে ক্লিনিকের প্যাড। প্যাডে নেই চিকিৎসকের নাম ও পরিচয়। এভাবে চালিয়ে যাচ্ছে হরদম ব্যবসা। চিকিৎসকের পরিচয় বিহীন ভুতুড়ে প্রেসক্রিপশন নিয়ে প্রতিনিয়ত দ্বিধায় পড়ছে অন্যান্য চিকিৎসক ও সচেতন লোকজন। উপজেলার মালুমঘাট বাজারের মালুমঘাট এক্স-রে ক্লিনিক নামের প্রতিষ্ঠানে এমনি চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া গেছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, স্থানীয় চিকিৎসায় রোগী ভাল না হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য কোননা কোন কোয়ালিফাই চিকিৎসকের কাছে যায়। এখানে সঠিক চিকিৎসার স্বার্থে রোগ নির্ণয়ের পাশাপাশি রোগীর পূর্ব বিবরণীর প্রয়োজন রয়েছে। আগে কয় মাত্রায় কি ইনজেকশন বা কি ঔষুধ সেবন করছিল অথবা কোন শ্রেণির চিকিৎসক ওই রোগীকে চিকিৎসা দিয়েছিল ইত্যাদি। এব্যাপারে জানতে প্রেসক্রিপশন প্যাডে প্রদত্ত মোবাইল নাম্বারে শনিবার রাত ১০টা ২০মিনিটে যোগাযোগ করা হলে খোকন মল্লিক নামের এক ব্যক্তি ফোন রিসিভ করে। মালুমঘাট এক্স-রে ক্লিনিক নামের প্রতিষ্ঠানটি তাদের বলে জানায়। তবে প্রতিষ্ঠানের প্যাডে ব্যবস্থাপত্র ও ব্যবস্থাপত্রে চিকিৎসকের নাম পদবী না থাকার কারণ জনতে চাইলে তিনি কোন উত্তর দেননি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •