হেলাল উদ্দিন, টেকনাফ :
টেকনাফের সহকারী কমিশনার (ভূমি) প্রণয় চাকমা পদোন্নতি পেয়ে রামুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার হওয়ায় টেকনাফ সাংবাদিক সমিতির উদ্যোগে বিদায় সংবর্ধনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
২৯ এপ্রিল দুপুর সাড়ে ১১টায় হ্নীলা নিউ মার্কেট হলরোমে টেকনাফ সাংবাদিক সমিতি (টেসাস) আয়োজিত বিদায় সংবর্ধনা সভা টেসাস উপদেষ্টা মমতাজুল ইসলাম মনুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে সংবর্ধিত ও প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউএনও পদে পদোন্নতি পাওয়া টেকনাফ উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) প্রণয় চাকমা।
টেসাস সদস্য সাংবাদিক জসিম উদ্দিন টিপুর পরিচালনায় উক্ত সংবর্ধনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হোয়াইক্যং মডেল ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ নুর আহমদ আনোয়ারী, হ্নীলা ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আবুল হোসেন , জেলা শিক্ষক সমিতি সভাপতি মোস্তফা কামাল চৌধুরী মুসা, হ্নীলা মঈন উদ্দিন মেমোরিয়াল কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আ.ন.ম তৌহিদুল মাশেক তৌহিদ, হ্নীলা বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জহির আহমদ, ফাষ্ট সিকিউরিটি ব্যাংক হ্নীলা শাখার ব্যবস্থাপক হারুন-অর রশিদ, ইউনিয়ন ব্যাংক হ্নীলা শাখার ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ হানিফ, হ্নীলা ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা আবুল মনছুর, হ্নীলা ইউপি মেম্বার হোছাইন আহমদ ও বাজার ইজারাদার জালাল উদ্দিন। এসময় উপস্থিত ছিলেন হ্নীলা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুহাম্মদ আব্দুস সালাম, রঙ্গীখালী খাদিজাতুল কোবরা মহিলা মাদ্রাসা সুপার ফখরুল ইসলাম ফারুকী, কাঞ্জরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম, নাইক্যংখালী নিম্মমাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ হোছাইন, হ্নীলা বণিক সমিতি সভাপতি নজরুল ইসলাম খোকন, হ্নীলা শাহ মজিদিয়া মাদ্রাসার প্রভাষক শহিদুল মোস্তফা প্রমূখ।
সভার শুরুতে অতিথিকে ফুলের তোড়া দিয়ে বরণ করেন টেসাসের উপদেষ্টা হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, মমতাজুল ইসলাম মনু, মুহাম্মদ তাহের নঈম, সভাপতি মুহাম্মদ ছলাহ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক হুমায়ূন রশিদ, জিয়াউর রহমান জিয়াসহ সদস্যবৃন্দ।
বিদায়ী অতিথিকে ক্রেস্ট প্রদান করেন সভার সভাপতি মমতাজুল ইসলাম মনু, টেসাস সভাপতি মুহাম্মদ ছলাহ উদ্দিন, সদস্য হেলাল উদ্দিন, এটিএন ফায়সাল, মোঃ নুর কামাল, জামাল উদ্দিন, হারুন সিকদার ও ফরিদুল আলম।

বিদায়ী প্রধান অতিথি উক্ত সভায় উপস্থিত অতিথিবৃন্দকে টেসাসের পক্ষ থেকে বিশেষ উপহার সামগ্রী প্রদান করেন। উপস্থিত অতিথিবৃন্দ পদোন্নতিজনিত বিদায়ী কর্মদ্যোমী এই কর্মকর্তার বিভিন্ন দিক নিয়ে স্মৃতিচারণমূলক বক্তব্য রাখেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যের বলেন, আমি ছোটকাল থেকে সাধারণ মানুষের সাথে মিশে বড় হয়েছি। আমার দৃষ্টি দেশের অসহায় সাধারণ নির্যাতিত-নিপীড়িত মানুষের দিকে। তাই সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিসেবে টেকনাফে চরম দুঃসময়ে আমার প্রথম চাকরী জীবন শুরু। আমার চাকরী জীবনে যত ধরনের চাপই আসুক না কেন তা উপেক্ষা করে মানব পাচার – মাদক প্রতিরোধ, পাহাড় কাটা ও পরিবেশ বিধ্বংসী কার্য্যক্রম বন্ধ, পর্যটক বান্ধব এলাকার সড়কে নিয়ম বর্হিঃভূত পণ্য উঠা-নামারোধ, ভূমিখাতে সাধারণ মানুষের ভোগান্তি কমিয়ে ডিজিলাইজের মাধ্যমে ভূমি সেবা সাধারণ মানুষের দ্বারে দ্বারে পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করেছি। কিন্তু শিক্ষা-দীক্ষায় পিছিয়ে থাকা এই টেকনাফের শিক্ষা উন্নয়নে সকলের ভূমিকা একান্ত প্রয়োজন। সরকারী নিয়মে চাকরীজীবি হিসেবে বদলী হওয়াই স্বাভাবিক। দেশের যেখানে যায়না কেন আমি সৎ ও ন্যায়ের পথে থেকে এই দেশের সাধারণ খেটে খাওয়া নির্যাতিত-নিপীড়িত মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করছি। টেকনাফে আমার এক বছর ৯ মাস কর্মজীবনে সাংবাদিকদের সর্বাতœক সহায়তা পেয়েছি। যা স্মরণীয় হয়ে থাকবে। আমার চাকরী জীবনে মহৎ লক্ষ্যে নিয়ে জনসেবায় অবশিষ্ট সময় টুকু উৎসর্গ করতে চাই। এই ব্যাপারে আপনারা সকলের দোয়া ও আর্শিবাদ কামনা করছি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •