জেলা জজ ও লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান খোন্দকার হাসান মোঃ ফিরোজের কাছ থেকে বর্ষসেরা প্যানেল আইনজীবীর সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদ গ্রহণ করেন ইয়াসমিন শওকত জাহান রোজি।

ইমাম খাইর, সিবিএনঃ
কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক ও জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান খোন্দকার হাসান মোঃ ফিরোজ বলেছেন, একসময় গরীবদের আইনগত সহায়তা করার মত কোন পক্ষ ছিল না। বর্তমান সরকার গরীব অসহায় মানুষের কথা বিবেচনা করে সম্পূর্ণ আইনি সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে।
প্যানেল আইনজীবী দের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, গরীবের কথা ভুলে গেলে চলবেনা। সাধ্যমতো অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে।
জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস উপলক্ষে জেলা লিগ্যাল এইড কমিটি আয়োজিত আলোচনা সভায় জেলা জজ এসব কথা বলেন।
রবিবার (২৮ এপ্রিল) বিকালে জেলা জজ আদালত প্রাঙ্গণে সভায় তিনি আরো বলেন, আইনগত সহায়তা নিয়ে মানুষকে এখন ভাবতে ভাবতে হচ্ছে না। লিগ্যাল এইড অফিসে যোগাযোগ করলেই মিলছে সেবা। তবে সরকার এই সেবার কথা তৃণমূল পর্যায়ে পৌঁছে দিতে হবে।
সভায় বক্তব্য রাখেন- সংরক্ষিত নারী আসনের সদস্য কানিজ ফাতেমা আহমেদ, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল-৩ এর বিচারক মোঃ নুরুল ইসলাম, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আলহাজ্ব তৌফিক আজিজ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ শাহজাহান আলী, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এডভোকেট আ.জ.ম মঈন উদ্দিন।
সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহর সঞ্চালনায় সভায় খাইরুল আমিন, ইয়াসমিন শওকত জাহান রোজি, মুহাম্মদ আবু ছিদ্দিক ওসমানীসহ আইনজীবীরা বক্তব্য রাখেন।
শেষে লিগ্যাল আইন লিগ্যাল এইডের প্যানেলভুক্ত ৪৬ জন আইনজীবীদের মধ্য থেকে ২ জনকে বর্ষসেরা প্যানেল আইনজীবী হিসেবে মনোনীত করা হয়েছে।
তারা হলেন- খাইরুল আমিন ও ইয়াসমিন শওকত জাহান রোজি।
বর্ষসেরা এই দুই আইনজীবীকে সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদ তুলে দেন কক্সবাজার জেলা জজের নেতৃত্বে বিচারকবৃন্দ।
ইয়াসমিন শওকত জাহান রোজি ২০১৭ ও ২০১৮ সালেও সেরা প্যানেল আইনজীবী হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছিলেন। পেয়েছিলেন ক্রেস্ট ও স্বীকৃতির সনদ। হ্যাটট্রিক করেন তিনি।
একইভাবে এডভোকেট খাইরুল আমিনও এবারসহ টানা তিনবার সেরা প্যানেল আইনজীবী স্বীকৃতি পেয়েছেন।
এদিকে, আইনগত সহায়তা দিবসে সকালে জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান, জেলা ও দায়রা জজ খোন্দকার হাসান মোঃ ফিরোজের নেতৃত্বে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়।
জেলা জজ আদালত প্রাঙ্গন থেকে শান্তির প্রতীক পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে উদ্বোধন হওয়া শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা আদালত প্রাঙ্গনে পৌঁছে সমাপ্ত হয়।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন- পুলিশ সুপার এ.বি.এম মাসুদ হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি আ.জ.ম মঈন উদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডাঃ মহিউদ্দিন মোহাম্মদ আলমগীর, জেলা সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাক্তার মহিউদ্দিন, জেল সুপার বজলুর রশিদ আখন্দ প্রমুখ।
এরপর সাড়ে ৯টায় লিগ্যাল এইড মেলা উদ্বোধন, জেলা লিগ্যাল এইড অফিস উদ্বোধন হয়।
সেখানে আগতদের রক্তদান কর্মসূচি, ব্লাড গ্রুপিং ও ডায়াবেটিস পরীক্ষাও হয়। সবশেষে মনোজ্ঞ সাস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়।
জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবসের কর্মসূচিতে লিগ্যাল এইডে কর্মরত ৪৬ আইনজীবী ছাড়াও পেশাজীবী, সাংবাদিক, এনজিও ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা অংশ গ্রহণ করেন।
মূলতঃ জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবসটি প্রতি বছর লিগ্যাল এইড কমিটি গুরুত্বের সাথে পালন করে থাকে।

এদিকে, পরপর তিনবার সফল প্যানেল আইনজীবী হিসেবে স্বীকৃতি পেয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন অ্যাডভোকেট ইয়াসমিন শওকত জাহান রোজি। অনুভূতি, অভিব্যক্তি জানিয়ে নিজের ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন।

হেট্টিকের শুভলগ্নে- হেড লাইন দিয়ে অ্যাডভোকেট ইয়াসমিন শওকত জাহান রোজি প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন ‘আলহামদুলিল্লাহ! লিগ্যাল এইড দিবসে কক্সবাজার জেলার শ্রেষ্ঠ আইনজীবী হিসাবে হেট্টিক করলাম। এ দিনে আমার মনে পড়ছে-আমার শ্রদ্ধেয় বাবা কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এডভোকেট আবুল বশর’কে। যিনি আমার শুধু জম্মদাতা নন, আইন পেশায় আমাকে প্রতিষ্ঠিত ও এগিয়ে যেতে নিরন্তর সাহস ও উৎসাহ যুগিয়েছেন। কৃতজ্ঞ-এ পথচলায় সকল সারথি, যাঁরা আমাকে প্রেরনা ও প্রত্যয়ে সমৃদ্ধ করেছেন। সাফল্যের এ সম্মাননা সমস্ত বিজ্ঞ বিচারক, আইনজীবী, বিচারাঙ্গনের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে উৎসর্গ করলাম। সবার কাছে দোয়া ও আশির্বাদ কামনা করছি।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •