বার্তা পরিবেশক:

চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের বর্ণাঢ্য আয়োজনের মাধ্যমে  শুক্রবার চকরিয়া উপজেলা পরিষদস্থ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে মাদক বিরোধী ছাত্র সমাবেশ ও আনন্দ র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়েছে। সমাবেশের আগে উপজেলা ছাত্রলীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের অংশগ্রহনে উপজেলা পরিষদ সড়কে আনন্দ র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালীতে নেতৃত্ব দেন চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম। অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের পক্ষথেকে এমপি জাফর আলমকে সম্মাননা ক্রেস্ট উপহার দেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আরহান মাহমুদ রুবেল।

চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আরহান মাহমুদ রুবেল এর সভাপতিত্বে র‌্যালী পরবর্তী ছাত্র সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক জামাল উদ্দিন জয়নাল, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও কক্সবাজার জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম লিটু, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক আবু মুছা, চকরিয়া উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ কাউছার উদ্দিন কছির প্রমুখ। এছাড়াও সমাবেশে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান কমিটির সিনিয়র নেতৃবৃন্দ বক্তব্য দেন। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ছাত্রলীগের সকলস্তরের নেতাকর্মী, সকল ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি সম্পাদক ছাড়াও ছাত্রলীগের অসংখ্য নেতাকর্মী।

ছাত্রলীগের মাদক বিরোধী সমাবেশে প্রধান অতিথি এমপি জাফর আলম বলেছেন, ছাত্রলীগ একটি আর্দশের নাম। এই সংগঠনটি বাংলাদেশের স্বাধীনতার ধারক বাহক। ছাত্রলীগের ইতিহাসের সঙ্গে বাংলাদেশের অস্বিস্ত বিরাজমান। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই ছাত্রলীগের প্রবক্তা। তাঁর দৃঢ নেতৃত্বে ছাত্রলীগের দামাল ছেলেরা দেশ-মাতৃকার টানে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশনেন। দেশকে পরাধীণতার শৃঙ্খল থেকে মুক্ত করে। জাতির প্রতিটি ক্ষান্তিলগ্নে ছাত্রলীগ অগ্রণী ভুমিকা রেখেছে।

তিনি বলেন, ছাত্রলীগের সোনালী অতীত ধরে রাখতে আজকের নতুন প্রজন্মের সকল ছাত্রলীগ নেতাকর্মীকে জাতির পিতার আর্দশ ধারণ করে আওয়ামীলীগ সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অবিচল থেকে যোগ্যতার গুনাবলীতে এগিয়ে যেতে হবে। সব ধরণের অন্যায় কাজ থেকে ছাত্রলীগের প্রতিটি নেতাকর্মীকে বিরত থাকতে হবে। আমি আশা করি আগামী দিনে চকরিয়া-পেকুয়া উপজেলার প্রতিটি নেতাকর্মী সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ ছাত্রলীগের সোনালি অতীত বির্নিমান করবে। কেউ নৈতিকভাবে বিচ্যুতি হলে বা সংগঠনের দুর্নাম রটালে ছাত্রলীগের গৌরব ভুলুন্ডিত হবে। আশাকরি সবাই এব্যাপারে সতেষ্ঠ থাকবে।শু পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ পাহাড়তলী এলাকার হালিমাপাড়ার বাসিন্দা আমান উল্লাহ’র পুত্র।

নিখোঁজ আরমানের মাতা রোকসানা আক্তার বলেন, গত বুধবার দুপুরে আমার ছেলে আরমান তার কর্মস্থল থেকে বাসায় ফেরার কথা ছিলো। কিন্তু সে ওইদিন বাসা ও কর্মস্থল কোথাও ফিরেনি। দারিদ্রতার কারণে আমার ছেলে কক্সবাজার শহরের লালদিঘীর পাড়স্থ আছাদ কমপ্লেক্স ভবনের ‘দৈনিক রূপসীগ্রাম’ পত্রিকার প্রিন্টিং প্রেস (ইউনিভার্সেল প্রিন্টিং প্রেস) এ অফিস সহায়ক হিসেবে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে আসছে। আমরা আশংকা করছি, সম্প্রতি দায়ের করা একটি মামলার জের ধরে প্রতিশোধ নিতে আমার ছেলেকে অপহরণ করেছে চিহ্নিত দুর্বৃত্তরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •